রাঙামাটি

৩৫০ পরিবারকে টয়লেট সামগ্রী দিল ‘কৈননীয়া’

পিছিয়ে পড়া জনসমষ্টিকে স্যানিটারি ল্যাট্রিন ব্যবহারে উৎসাহিত ও নিশ্চিত করতে জাতীয় বেসরকারি সংস্থা ‘কৈননীয়’ রাঙামাটির বিলাইছড়ি উপজেলার ৩৫০ পরিবারের মাঝে টয়লেট সামগ্রী বিতরণ ও ৬০০ পরিবার কৃষকের মাঝে সবজি বীজ বিতরণ করেছে।

সংস্থার চলমান বা¯Íবায়নাধীন ‘ওয়াটার এন্ড স্যানিটেশন অব এথনিক কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট’ প্রকল্পের আওতায় ২৮ ও ২৯ অক্টোবর বিলাইছড়ি সদর ইউনিয়ন ও ফারুয়া ইউনিয়নে এসব উপকরণ বিতরণের তথ্য পাওয়া গিয়েছে।

বিলাইছড়ি সদর ইউনিয়নের ২ পাড়ায় ৫০ সেট ও ফারুয়া ইউনিয়নে ১০ পাড়ায় ৩০০ সেট টয়লেট সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। আর বিলাইছড়ি সদর ইউনিয়নের ১০ পাড়ার কৃষক ও ফারুয়া ইউনিয়নের ১০ পাড়ার কৃষক ৬০০ পরিবারকে সবজি বীজ প্রদান করা হয়েছে।

কৈননীয়া বিলাইছড়ি উপজেলায় কর্মরত স্টাফদের পাংখোয়া পাড়ায় আয়োজিত এসব সবজি বীজ ও টয়লেট সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যন শুভমঙ্গল চাকমা, বিলাইড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান, সুনীল কান্তি দেওয়ান এবং ফারুয়া ইউনিয়নে সংশিøষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান বিদ্যালাল তঞ্চঙ্গ্যা উপস্থিত ছিলেন।

জানা যায়, বিলাইছড়ি উপজেলার দুর্গম প্রত্যন্ত অনেক অঞ্চলে এখনও খোলা জায়গায় পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা অব্যাহত রয়েছে। এদের স্বাস্থ্যসম্মত পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থার আওতায় নিয়ে আসতে ওয়াটার এন্ড স্যানিটেশন প্রকল্প বা¯Íবায়ন করে চলেছে কৈননীয়া ।

এ বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান শুভ মঙ্গল চাকমা এর কাছ থেকে অভিমত চাইলে তিনি বলেন, এনজিও সংস্থা কৈননীয়া বিলাইছড়ি ইউনিয়নের পাংখোয়া পাড়ায় আয়োজিত স্যানিটারি ল্যাট্রিন সামগ্রী বিতরণ করেছে। কৈননীয়া’র চলমান এ প্রকল্পটি প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষদের জন্য খুবই মহামূল্যবান একটি প্রকল্প। তাদের স্যানিটারি ল্যাট্রিন ব্যবহারে উদ্বুদ্ধ ও অভ্য¯Í করতে হবে এবং এ বিষয়ে তাদের সচেতনমূলক বার্তা প্রদান করতে হবে। তা না হলে এসব উপকরণ তারা সঠিকভাবে ব্যবহার নাও করতে পারে।

তবে মৌলিক অর্থে উপজেলার পশ্চাদপদ জনসমষ্টির কল্যাণে এ প্রকল্পটি টেকসই দীর্ঘস্থায়ী করার লÿে প্রশাসনসহ সর্ব¯Íরের সচেতন মহলের সহায়তার হাত বাড়ানে প্রয়োজন বলে মনে করেন উপজেলা চেয়ারম্যান।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button