ব্রেকিংরাঙামাটিলিড

স্বাস্থ্যগত সমস্যায় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে যাওয়ার পরামর্শ সিভিল সার্জনের

ব্লাড প্রেসার মাপা, ডায়াবেটিকসহ নানা স্বাস্থ্যগত প্রয়োজনে রাঙামাটির মানুষ আগে হাজির হতো নিকটস্থ ঔষুধের ফার্মেসীতে বা ডাক্তারের চেম্বারে। কিন্তু বর্তমান কভিড-১৯ করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে এখন ডাক্তাররা চেম্বার করছেন না। এমন পরিস্থিতিতে গণপরিবহনও বন্ধ থাকায় সাধারণ অনেক মানুষ পরেছেন বিপাকে।
করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ইতিমধ্যে তিন ফুট সামাজিক দুরুত্ব নিশ্চিত করতে রাঙামাটিতে কাজ করছে প্রশাসন। ডাক্তাররা চেম্বারে বসছেন না। যেসব ফার্মেসীতে আগে ব্লাড প্রেসার মাপা হতো সেসব ফার্মেসীর অনেকেই তিন ফুট দুরুত্বের কথা জানিয়ে বøাড পেসার মাপছেন না। এমন পরিস্থিতিতে যেকোন শারিরিক সমস্যার জন্য নিকটস্থ স্বাস্থ্যকেন্দ্রে যোগাযোগ করার পরামর্শ দিয়েছেন রাঙামাটির সিভিল সার্জন।
রাঙামাটির সিভিল সার্জন ডা: বিপাশ খিসা বলেছেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে করোনা ভাইরাসের সংক্রমন প্রতিরোধে চিকিৎসকরা চেম্বার করছেন না। কিন্তু বøাড পেশারসহ যে কোন শারিরিক সমস্যা দেখা দিলে জনসাধারণকে পরার্মশ দিব নিকটস্থ স্বাস্থ্যকেন্দ্রে যোগাযোগ করার জন্য। প্রতিটি স্বাস্থ্যকেন্দ্র ২৪ ঘন্টা খোলা রয়েছে। সেখানে আমরা সেবা দিচ্ছি। কোন ফার্মেসীতে বøাডপ্রেসার মাপার অনুমতি নাই, কেও যদি মাপান সেটা তার নিজ দায়িত্বে মাপাবেন।
অপরদিকে রাঙামাটি শহরের অন্যতম গণপরিবহন সিএনজি অটোরিক্স বন্ধ থাকায় অনেকেই হাসপাতালের যাওয়ার মতো জরুরি প্রয়োজনে বিপাকে পড়ছেন। তবে এই সমস্যা সমাধানে জরুরি প্রয়োজনে রাঙামাটি সিএনজি অটোরিক্সা শ্রমিক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এলাকাভিত্তিক বিভিন্ন সিএনজি চালকের নাম্বার দিয়েছে। যাতে জরুরি প্রয়োজনে এইসব নাম্বারে ফোন করলে সিএনজি পরিসেবা দেয়া যায়। তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ইতোমধ্যেই অভিযোগ উঠেছে, এইসব নাম্বারে ফোন দিয়েও মিলছেনা কোন সহায়তা।

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button
Close