রাঙামাটি

সুজয় চাকমাকে গুলির অভিযোগে জনসংহতির ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা

রাঙামাটির লংগদু উপজেলা সদরে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (এমএন লারমা) যুব সমিতির সদস্য সুজয় চাকমা (২৩) নামে এক সদস্য গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনায় সন্তু লারমাধীন জনসংহতি সমিতির ১১ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে লংগদু থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। বুধবার এই মামলাটি দায়ের করা হয়।

জেএসএস (এমএন লারমা) দলের লংগদু উপজেলার সদস্য সুজয় চাকমা বাদী হয়ে বুধবার লংগদু থানায় জেএসএস (সন্তু) দলের সাধারণ সম্পাদক মনিশংকর চাকমাকে প্রধান আসামি করে ১১ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। লংগদু থানা মামলা নং-০৩, তারিখ-২২-০৭-২০২০ইং। মামলার অপর আসামিরা হলেন যশো চাকমা(৪৩) পিতা-মৃত ভূপতি রঞ্জন চাকমা, মিলন চাকমা(৪০) পিতা রঞ্জিত চাকমা, রূপেন চাকমা(৩৫) পিতা-বাঁশি মোহন চাকমা, কাজল বিকাশ চাকমা(২৫), পিতা-মৃত বিমল চাকমা, বাবলু মনি চাকমা(২৫) পিতা জ্ঞান চাকমা, অয়ন্তিময় চাকমা মেম্বার(৪৮) পিতা শুক্র কুমার চাকমা, অর্জন চাকমা (২৬) পিতা মৃত সোনা চাকমা, রমেল চাকা(২৫) পিতা অমিত চাকমা, চিক্লোলো চাকমা পিতা সরশ বিকাশ চাকমা, সপ্পো কালা চাকমা পিতা-রাজমুখী চাকমা।

বাদী জানান, গত ১৫ জুলাই রাত আনুমানিক দেড়টা সময় লংগদু উপজেলা সদরে তিনটিলা এলাকায় গোডাউনের কোয়াটারস্থ জেএসএস (সংস্কার)এর কার্যালয়ে আমি এবং আমর পার্টির নেতা-কর্মীসহ ঘুমাচ্ছিলাম। এসময় উল্লেখিত বিবাদীগণ আমাদের হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা করে এলোপাতাড়ি গুলি করলে আমরা ঘুম থেকে জেগে উঠতেই ৪/৫জন (মুখবাঁধা) আমাদের রুমে ঢুকে সবাইকে মারধর এবং আমাকে বুকে গুলি করলে আমি আহত হই। তান্ডব করে পরে তারা পালিয়ে যায় বলে মামলার বাদী সুজয় চাকমা তার এজাহারে উল্লেখ করেছে।

লংগদু থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ মোহাম্মদ নুর জানায়, বাদীর যথাযথ অভিযোগের প্রেক্ষিতে এটি নিয়মিত মামলা রজ্জু করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্য আইনগত ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button