ব্রেকিংরাঙামাটিলিড

সমবায় কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

রাঙামাটি জেলা সমবায় ও উপজেলা সমবায় কর্মকর্তারা ‘দুর্নীতিগ্রস্ত’ হয়ে অনিয়মের মাধ্যমে অন্যায়ভাবে রাঙামাটি আসবাবপত্র ব্যবসায়ী কল্যাণ সমবায় সমিতি লিমিটেড’র ২০১৭ সালের নির্বাচনে পরাজিত কয়েকজন সদস্যদের সাথে যোগসাজস করে সমিতি ধ্বংসে লিপ্ত হওয়ার অভিযোগ করেছে সমিতিটির কার্যনিবার্হী কমিটির নেতারা। সোমবার সকালে রাঙামাটি শহরের কাঠালতলীস্থ নিজস্ব ভবনের অফিস কক্ষে এ সংবাদ সম্মেলন অভিযোগ তুলেন তারা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন- আসবাবপত্র ব্যবসায়ী কল্যাণ বহুমুখী সমবায় সমিতি লিমিটেডের সভাপতি মো. আমিনুল ইসলাম শামীম। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সহ-সভাপতি মোহাম্মদ আলী, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল শুক্কুর, সাংগঠনিক সম্পাদক এম হিরু তালুকদার, কোষাধ্যক্ষ এমদাদ হোসেন তালুকদারসহ অন্যান্যরা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে আমিনুল ইসলাম শামীম অভিযোগ করেন, ‘রাঙামাটি আসবাবপত্র ব্যবসায়ী কল্যাণ বহুমুখী সমবায় সমিতি লিমিটেডের ২০১৭ সালের নির্বাচনে পরাজিত হয়ে কিছু কুচক্রী মহল সমিতির নিরীহ ও শান্তিপ্রিয় সদস্যদের ভুল ও উস্কানি মূলক তথ্য প্রদান করে সমিতিকে ভাঙনের মুখে ফেলার অপচেষ্টা চালাচ্ছে।’

লিখিত বক্তব্যে সমিতির সভাপতি বলেন, ‘সমিতির নির্বাচনের পরে নির্বাচনে পরাজিত ও তাদের সমর্থক কয়েকজন সদস্যদের নিকট হইতে লোভের বশবতী হইয়া বিপুল পরিমাণ টাকা উৎকোচ নিয়ে জেলা সমবায় কর্মকর্তা ইউসুফ হাসান চৌধুরী, সদর উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা আশিষ কুমার দাশ পরষ্পর যোগসাজশ করে আইন ও বিধি লঙ্ঘন করে ২০১৯ সালে ৬ জানুয়ারি জেলা সমবায় কর্যালয়ের স্মারক নং- ২৭ মূলে আমাদের নির্বাচিত ব্যবস্থাপনা কমিটি ভেঙে দিয়ে একটি অন্তবর্তী ব্যবস্থাপনা কমিটি নিয়োগ করেন। এই নিয়োগের বিরুদ্ধে আমরা চট্টগ্রাম বিভাগীয় যুগ্ম নিবন্ধক সমবায় দপ্তররে আপিল করি। যার পরিপেক্ষিতে যুগ্ম নিবন্ধক, সমবায় দপ্তর চট্টগ্রাম জানুয়ারি মাসের ২৩ তারিখ বাদী ও বিবাদী উভয়পক্ষের উপস্থিতিতে শুনানী গ্রহণ করে পরবর্তীতে ২৪ জানুয়ারি বিভাগীয় সমবায় দপ্তর হতে স্মারক নং- ১৮০/৪, আদেশ নং- ১৮০ মুলে জেলা সমবায় কর্মকর্তা, রাঙামাটি কর্তৃক অন্তবর্তী ব্যবস্থাপনা কমিটি যথাযথ হয়নি মর্মে বাতিল করে নির্বাচিত ব্যবস্থাপনাটিই বহাল রাখেন।’

এ সময় তিনি কুচক্রী মহলের ভুল ও উস্কানিমূলক তথ্যে সদস্যদের বিভ্রান্ত না হওয়ার আহবান জানান। তিনি জেলা সমবায় ও উপজেলা সমবায় কর্মকর্তাদের ‘দুর্নীতিগ্রস্ত’ দাবি করে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের প্রতি অনুরোধ জানান।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button