নীড় পাতা / ব্রেকিং / সংবাদ সম্মেলনের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন
parbatyachattagram

রাঙামাটি আসবাবপত্র ব্যবসায়ী সমিতি

সংবাদ সম্মেলনের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

রাঙামাটিতে আসবাবপত্র ব্যবসায়ী কল্যাণ বহুমুখী সমবায় সমিতি লিমিটেড এর ৬ষ্ঠ ব্যবস্থাপনা কমিটির অদক্ষতা, অযোগ্যতা, অনিয়ম দূর্নীতি, সমিতির তহবিল ও ব্যাংক একাউন্ট হতে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ ও সংবাদ সম্মেলনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার দুপুরে রাঙামাটির স্থানীয় একটি হোটেলে এই সংবাদ সম্মেলন করেন রাঙামাটিতে আসবাবপত্র ব্যবসায়ী কল্যাণ বহুমুখী সমবায় সমিতি লিমিটেডের সাধারন সদস্যদের একাংশ।
এসময় লিখিত বক্তব্য রাখেন সমিতির উপদেষ্টা আবদুল ওয়াদুদ ভুইয়া। উপস্থিত ছিলেন, সাবেক সহ সভাপতি আবদুল করিম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ আবদুল খালেক, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোঃ মহি উদ্দিন।
এসময় লিখিত বক্তব্যে বলেন, সাংবাদিক সম্মেলন করে যেসব অপপ্রচার চালিয়েছে তা সত্যি নয়। এসব মনগড়া এবং কাল্পনিক কথাবার্তা। প্রকৃত ঘটনা এই যে, সমিতির ব্যবস্থাপনা কমিটির সহ সাধারণ সম্পাদক আব্দুল খালেক এর একটি ফার্নিচারের গাড়ী মানিকছড়ি চেকপোষ্টে পৌঁছালে ঐ গাড়ীতে অবৈধ ফার্নিচার আছে বলে সাধারণ সম্পাদক বন বিভাগকে উক্ত ফার্নিচার জব্দ করার জন্য বলে। এতে একটি অপ্রীতিকর ঘটনার সৃষ্টি হয়। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে সমিতির সাধারণ সদস্যবৃন্দ ও ব্যবস্থাপনা কমিটির কর্মকর্তাসহ অন্যান্যরা সমিতিতে আলোচনা সভা করতে গেলে সাধারণ সম্পাদক সমিতির অফিসে তালা লাগিয়ে দেন এবং সে ঢাকায় চলে যায়। পরে সমিতির সদস্য ও প্যানেল মেয়র, সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর, সমিতির সহ সভাপতি এবং দপ্তর সম্পাদক এর মধ্যস্থতায় সমিতির তালা খুলে দেন। সমিতির সাধারণ সদস্য এবং ব্যবস্থাপনা কমিটির কর্মকর্তাবৃন্দ সমিতিতে এই ব্যাপারে আলোচনা করতে গিয়ে দেখা যায় সমিতির ব্যবস্থাপনা কমিটির সাতজন কর্মকর্তা পদত্যাগ করবে বলে ঘোষণা দেন। তাৎক্ষণিক সমিতির সাধারণ সদস্যের মতামতের ভিত্তিতে উক্ত সভাকে মুতলবী সভা বলে ঘোষণা করা হয় এবং উক্ত সভায় ৯৭জন সাধারণ সদস্য উপস্থিত ছিলেন।
বক্তারা আরো বলেন, গত ১৩ ডিসেম্বর ব্যবস্থাপনা কমিটির ৭জন কর্মকর্তা পদত্যাগ করায় সাধারণ সদস্যগণের মধ্যস্থতায় হাজী দিদারুল আলমকে আহবায়ক করে একটি আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়। যেহেতু ব্যবস্থাপনা কমিটির কোরাম না থাকায় আহবায়ক মোঃ দিদারুল আলম সমিতির সঞ্চয় আদায় করতে থাকেন। গত ২৩ ডিসেম্বর উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা তদন্ত করতে গেলে সভাপতি/সাধারণ সম্পাদকের উপস্থিতিতে আরো একজন সহ মোট ৮জন কর্মকর্তা পদত্যাগ করেন। তদন্তকালে সমিতির জমা খরচের খাতা পাওয়া যায়নি। একটি ছোট কাঠের হিসাবের খাতায় সামান্য হিসাব লিখা আছে এবং সভাপতি/সাধারণ সম্পাদকের কোন স্বাক্ষর নেই। তদন্তকালে কমিটির সকল কর্মকর্তা ও সমিতির ৭৮ জন সাধারণ সম্পাদক সদস্য উপস্থিত ছিলেন।’

বক্তারা রাঙামাটিতে আসবাবপত্র ব্যবসায়ী কল্যাণ বহুমুখী সমবায় সমিতি লিমিটেড এর ৬ষ্ঠ ব্যবস্থাপনা কমিটির অদক্ষতা ও অযোগ্যতা, অনিয়ম দূর্নীতি, সমিতির তহবিল ও ব্যাংক একাউন্ট হতে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ ও সংবাদ সম্মেলনের বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

রাঙামাটি যুব রেড ক্রিসেন্ট’র সহশিক্ষা কার্যক্রমের  প্রশিক্ষণ সম্পন্ন

যুব রেড ক্রিসেন্ট রাঙামাটি ইউনিট’র সহশিক্ষা কার্যক্রমের আওতায় দুইদিন ব্যাপী রেড ক্রস/ রেড ক্রিসেন্ট মৌলিক …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

6 − 1 =