খাগড়াছড়িব্রেকিংলিড

শোকাবহ আগষ্টের সবগুলো দু:সহ ঘটনা একই সূত্রে গাঁথা

খাগড়াছড়িতে আওয়ামীলীগের আলোচনা সভা

২০০৫ সালের ১৭ আগষ্ট সারাদেশে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে আজ দুপুরে খাগড়াছড়িতে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সঞ্জিব ত্রিপুরার সভাপতিত্বে দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত আলোচনায় প্রধান অথিতির বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু।
আলোচনায় আরো বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পার্থ ত্রিপুরা জুয়েল, জেলা যুবলীগের সভাপতি যতন বিকাশ ত্রিপুরা, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি জাবেদ হোসেন, সদর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট বিশ^জিৎ রায় দাশ, জেলা কৃষকলীগের সভাপতি সৌরভ তালুকদার, জেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি জানু শিকদার, জেলা মৎস্যজীবীলীগের সভাপতি এমরান হোসেন মাসুদ, পৌর আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ফরিদুজ্জামান স্বাধীন, বুলবুল আহমেদ, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি টেকো চাকমাসহ বিভিন্ন পর্যায়ের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। আলোচনাসভা পরিচালনা করেন সদর আওয়ামীলীগের নেতা অংহ্লাগ্য মারমা।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু বলেছেন, ৭৫ এর ১৫ আগষ্ট থেকে শুরু করে শোকাবহ আগষ্টের সবগুলো দু:সহ ঘটনা একই সূত্রে গাথা; ৭১ এর পরাজিত শক্তির কাজ। এর সাথে বিএনপি-জামাত-জঙ্গীরা ওৎপ্রোতভাবে জড়িত। তিনি বলেন, পরিকল্পনাকারী, ষড়যন্ত্রকারী ও মদদদাতাদের অনেকেই বেঁচে আছেন, তাদেরকে আইনের আওতায় এনে বিচার নিশ্চিত করতে হবে। অন্যথায় ওই কালো শক্তি আবারও হামলা চালাতে পারে বলে আশংকা প্রকাশ করেছেন। জেলা আওয়ামীলীগ নেতা মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু অতিসম্প্রতি জেলার দীঘিনালায় ঘুমন্ত মানুষের ওপর সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা জানান এবং জড়িত সে যে-ই হোক তাদেরকে গ্রেফতারপূর্বক শাস্তির দাবী জানান।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পার্থ ত্রিপুরা জুয়েল বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সদস্যরা ছাড়াও আগষ্ট মাসে যারা শহীদ হয়েছেন, তাদের খুনীদের অবিলম্বে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় না করালে পুনরায় শোকাবহ আগষ্ট দেখতে হতে পারে বলেও মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, আগষ্ট হলো শোকের মাস। এই মাস এলেই প্রতিক্রিয়াশীল শক্তি মাথাচারা দিয়ে উঠে। খাগড়াছড়িতেও চলতি আগষ্ট মাসে আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠনের অন্তত ৩জনকে নেতার ওপর হামলা হয়েছে। আওয়ামীলীগের নাম ভাঙ্গিয়ে একশ্রেণির সুবিধাবাদী দোসররা এসব হামলার সাথে জড়িত বলে উল্লেখ করেন তিনি। চিহিৃত এসব লোকদের বিচারের আওতায় আনার দাবী করা হয়।
উল্লেখ্য, খাগড়াছড়ি পৌরসভার মেয়র রফিকুল আলমের সমর্থকদের হামলায় ৮নং পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি জয়নাল আবেদীন, বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদ ও পাঠাগারের সভাপতি ও পৌর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মো: জহির এবং পানছড়িতে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর আহত হন।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button