ব্রেকিংরাঙামাটিলিড

শেষ মুহূর্তে তুলির আঁছড়ে ব্যস্ত মৃৎশিল্পীরা

কাপ্তাইয়ের ৭ মণ্ডপে হবে দুর্গোৎসব

শিশিরে শিশিরে শারদে পাতে ভোরের আলো। আশ্বিন বিদায়ের পথে, শিউলি ফুলের মৌ-মৌ গন্ধে মাতোয়ারা চারিদিক। প্রতিবছর আশ্বিন এলে শুরু হয়ে যায়, সনাতনী সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বৃহৎ ধর্মীয় উৎসব শারদীয়া দুর্গাপূজার প্রস্তুতি।

তবে এবছর কালের পরিক্রমায় পূজা অনুষ্ঠিত হবে কার্তিক মাসে, দিন পন্জিকা অনুযায়ী মল মাসের কারণে এবছর পুজা একটু দেরীতে শুরু হচ্ছে। আগামী ২২ অক্টোবর মহা যষ্ঠীর মাধ্যমে দেবীকে আহ্বান করবেন ভক্তরা। ২৬ অক্টোবর বিজয়া দশমীতে প্রতিমা নিরজনের মাধ্যমে ৫ দিনব্যাপী এই পুজা শেষ হবে। তবে মহামারি করোনার প্রকোপে কিছুটা হলেও জনমনে আতঙ্ক নিয়ে পূজার প্রস্তুতি শুরু করেছেন সনাতন সম্প্রদায়ের মানুষ।

কাপ্তাই উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি দীপক কুমার ভট্টাচার্য জানান, এ বছর কাপ্তাইয়ে ৭টি পূজা মণ্ডপে দুর্গা  পূজা অনুষ্ঠিত হবে। মণ্ডপ হলো, কাপ্তাই লগগেইট জয়কালী মন্দির, রাইখালী ত্রিপুরা সুন্দরী কালি মন্দির, কেপিএম কয়লার ডিপু প্রকল্প হরি মন্দির, চন্দ্রঘোনা মিশন এলাকা আদি নারায়ণ বৈদান্তিক বিদ্যালয়র ও সিদ্বিশ্বরি কালি মন্দির, শিলছড়ি দূর্গা মন্দির এবং কাপ্তাই প্রজেক্ট ব্রিকফিল্ড দুর্গা মন্দির।

উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়তোষ ধর পিন্টু জানিয়েছেন, বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় পূজা উদযাপন কমিটির ২৬টি নির্দেশনা এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মেনে স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এ বছর পূজা উদযাপন করা হবে।

এদিকে বুধবার কাপ্তাইয়ের শিলছড়ি দূর্গা মণ্ডপে সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, শেষ মুহূর্তের তুলির আঁছড়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন মৃৎ শিল্পী মাদল আচার্য্য। তিনি জানান, গত কয়েকমাস ধরে তিনি এই প্রতিমা তৈরি করছেন।

মন্দিরের সভাপতি সুনীল দাশ জানান, আমরা অপেক্ষা করছি কখন মায়ের আগমন ঘটবে।

চন্দ্রঘোনা আদিনারায়ন বৈদান্তিক বিদ্যালয় পূজা মণ্ডপের সাংস্কৃতিক সম্পাদক অভিজিৎ দাশ কিষাণ জানান, বাঁশের মাচাং ঘরের আদলে তৈরি করা হয়েছে তাদের পূজা মণ্ডপকে।

কাপ্তাইয়ের ঐতিহ্যবাহী শতবর্ষী রাইখালী ত্রিপুরা সুন্দরী কালি বাড়ির সভাপতি মিলন কান্তি দে ও সাধারণ সম্পাদক টিটু দেব জানান, ‘ইতিমধ্যে প্রতিমা তৈরির কাজ প্রায় শেষ হয়েছে। এ বছর মা’র আগমন ঘটবে দোলায় এবং গমন ঘটবে গজে, ফলে শস্যপূর্ণ হবে বসুন্ধরা।’

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button