করোনাভাইরাস আপডেটরাঙামাটিলিড

শহর সুরক্ষায় রাঙামাটিবাসির পাশে সেভ দ্য ন্যাচার

করোনা ভাইরাসের সংক্রমনের কারনে সরকারি সিদ্ধান্তের কারনে লোকজন অঘোষিত হোম কোয়ারান্টাইনে আছে। জেলার সুরক্ষার জন্য সরকারি উদ্যোগের পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনও নিজ নিজ উদ্যোগে এগিয়ে আসেন। লোকজনকে সচেতন করাসহ স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা করেন তারা। সামাজিক সংগঠন সেভ দ্যা ন্যাচারের পক্ষ থেকে শহর সুরক্ষায় এবং লোকজনকে সচেতন করতে প্রচারপত্র বিলি করা হয়। এছাড়াও করা হয় পরিচ্ছন্নতা অভিযান।সংগঠনটির কর্মীরা শহরের বিভিন্ন এলাকায় স্প্রেও করেন।

সেভ দ্যা ন্যাচারের সভাপতি করিম খান জানান, বিগত এত সপ্তাহ ধরে শহরে আমরা সচেতনতা মূলক প্রচারপত্র বিলি, ২০ টি স্পটে স্যানিটাইজার স্থাপন, গাড়িতে স্প্রে করাসহ লোকজনদের সচেতনতা মূলক কাজ করেছি। আগামীতেও আমরা এসব কাজ অব্যাহত রাখব। আমাদের এই কাজে পুরোটাই স্পন্সর করেছেন ঠিকাদার মোঃ ছলিম উল্লাহ সেলিম,তিনি আমাদের সংগঠনের উপদেষ্টাও। 

 মোঃ ছলিম উল্লাহ সেলিম বলেন, নিজের সামর্থ্যনুযায়ী লোকজনকে সহযোগিতার চেষ্টা করি। আমি মনে করি প্রত্যেক এলাকায় বিত্তবানরা এগিয়ে এলে যেকোনো পরিস্থিতি সামাল দেয়া সম্ভব।

সেভ দ্য ন্যাচার এর কর্মীরা রাঙামাটি শহরে সবার আগে মাঠে নেমে পাড়ার মোড়ে মোড়ে ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানে স্যানিটাইজার বিলি এবং হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করে। তাদের পর মাঠে নামে আরো অসংখ্য সামাজিক সংগঠন।

সভাপতি করিম খান আরো বলেন, ‘ এখন বিশ্ববাসির দু:সময়। এই কঠিন সময়ে আমরা আমাদের শহরে কিছু করার চেষ্টা করেছি এবং করছি। যারা আমাদের পাশে থেকে সর্বতোভাবে সহযোগিতা করছে আমরা তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। আমাদের উপদেষ্টা সেলিম ভাই আমাদের নানাভাবে সবসময় সহযোগিতা করেন,এবারও করছেন।’

এদিকে রাঙামাটি শহরের মহিলা কলেজ ও এসপি অফিস সংলগ্ন এলাকায় নিজ উদ্যোগে একশো পরিবারকে চাল, ডালসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি প্রদান করেন ঠিকাদার মোঃ ছলিম উল্লাহ সেলিম।

স্থানীয় সানরাইজ স্পোর্টিং ক্লাবের অর্থ সম্পাদক মোঃ জামাল হোসেন জানান, শুধু করোনা মহামারী নয়, রাঙামাটির যেকোনো দুর্যোগে সেলিম ভাই নিজ উদ্যোগে দুর্গত মানুষের সহযোগিতায় এগিয়ে আসেন। এছাড়াও তিনি বছরের যেকোনো সময় উন্নয়নমুলক ও সেবামূলক কাজে সহযোগিতা করেন।’

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button