নীড় পাতা / ব্রেকিং / ল্যাব সংকট নিরসন ও বিভাগ উন্নয়নের দাবি
parbatyachattagram

রাঙামাটি সরকারি কলেজে

ল্যাব সংকট নিরসন ও বিভাগ উন্নয়নের দাবি

বক্তব্য রাখছেন প্রভাষক আতিকুর রহমান

রাঙামাটি সরকারি কলেজের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের ল্যাব সংকট নিরসন, বিভাগ উন্নয়ন ও শ্রেণি কক্ষের সংকট নিরসনের দাবি উঠেছে। শনিবার দুপুরে রাঙামাটি সরকারি কলেজের শিক্ষক মিলনায়তনে আয়োজিত এক আয়োজন সভায় এ দাবি তোলেন বক্তারা। এদিন কলেজের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক মো. আতিকুর রহমানের বিদায় ও সহকারী অধ্যাপক মো. সোহরাব হোসেনের বরণ উপলক্ষে সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এ সকল দাবি জানিয়েছেন বিভাগের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। এসময় কলেজ অধ্যক্ষ দ্রুততম সময়ের মধ্যেই এই সংকট নিরসনের আশ্বাস দেন।

আলোচনা সভায় উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. পার্থ প্রতিম ধর’র সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন, রাঙামাটি সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. মঈন উদ্দিন। বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী অসীম দাশগুপ্ত’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন, বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সুচরিতা চাকমা ও প্রভাষক অনোমদর্শী দেওয়ান। আলোচনা সভায় শিক্ষার্থীদের মধ্যে বক্তব্য দেন, মাস্টার্সের শিক্ষার্থী জ্ঞানেন্দু বিকাশ চাকমা, অনার্স চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী লিটন দাশ, তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী অক্ষয় কুমার বড়ুয়া, দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী চার্লি তঞ্চঙ্গ্যা, প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী মো. ইসমাইলসহ আরো অনেকেই।

অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা বলেন, ‘উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগে দীর্ঘদিন ধরে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বন্ধুসুলভ আচরণের মধ্যে কাটিয়েছেন প্রিয় শিক্ষক প্রভাষক আতিকুর রহমান। সম্প্রতি তাঁর বদলির কারণে তিনি চট্টগ্রাম কলেজে যোগদান করেন। তার এই বিদায়ে উদ্ভিদবিজ্ঞান পরিবারে এক ধরণের শূণ্যতা সৃষ্টি হয়েছে। আমরা আশা করি, আতিকুর রহমান স্যারের শূণ্যতা পূরণ করবেন নতুন যোগদানকৃত সোহরাব স্যার।’

এসময় শিক্ষার্থীরা উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের ল্যাব সংকট নিরসন ও বিভাগ উন্নয়নসহ একটি পূর্ণাঙ্গ বিভাগ সৃষ্টির লক্ষে কলেজ কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানিয়েছেন।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. মঈন উদ্দিন বলেন, ‘উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগ রাঙামাটি সরকারি কলেজের অন্যতম একটি বিভাগ। আমি মনে করি, রাঙামাটি সরকারি কলেজের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীরা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের চেয়ে কোনো অংশে কম না। আমরা দেখেছি, তারা বিগত সময়ে অনেক ভালো রেজাল্ট করেছে। এই বিভাগের শিক্ষার্থীরা ভবিষ্যতে আরও ভালো রেজাল্ট করবে বলে আমি আশাবাদী।’

অধ্যক্ষ বলেন, ‘আমি ইতোমধ্যে উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধানের সাথে কথা বলেছি। এই বিভাগের উন্নয়ন ও পূর্ণাঙ্গ বিভাগ করতে যা যা প্রয়োজন তার সবটাই করা হবে। বিভাগের ল্যাবরেটরির প্রয়োজনে আরও কী কী যন্ত্র সামগ্রির প্রয়োজন, সবই যুক্ত করা হবে। এছাড়া ডিসেম্বর মাসের মধ্যে আমাদের নতুন একাডেমিক ভবনটি চালু করা যাবে। নতুন একাডেমিক ভবনে তিনটি বিভাগ স্থানান্তর করা হবে। এতে করে অন্যান্য বিভাগের শ্রেণি কক্ষের সংকটও নিরসন হবে। আমি কলেজের উন্নয়নের স্বার্থে শিক্ষার্থীদের যা-যা প্রতিশ্রুতি দিয়েছি, তার সবই পালন করা হবে।’

আলোচনা সভার শেষের দিকে বিদায়ী প্রভাষক আতিকুর রহমানকে শিক্ষার্থীরা ও বিভাগের পক্ষ থেকে সম্মাননা স্মারক ও উপহার তুলে দেওয়া হয়। এসময় নবাগত সহকারী অধ্যাপক সোহরাব হোসেনকেও ফুল দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। এছাড়া মাস্টার্সের বিদায়ী শিক্ষার্থীদের হাতে স্মারক তুলে দেন অতিথিরা।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

প্রশিক্ষিত শিক্ষকের অভাবে ব্যাহত হচ্ছে মাতৃভাষায় পাঠদান

২০১৭ সাল থেকে চাকমা, মারমা ও ত্রিপুরা জনগোষ্ঠীর শিশুদের হাতে মাতৃভাষার বই দেয়া হলেও এখনো …

Leave a Reply