ব্রেকিংরাঙামাটি

লংগদুর ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় সরকারের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা

লংগদুতে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেছেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার রুহুল আমিন। সোমবার দুপুরে তিনি ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন শেষে তিনটিলা বৌদ্ধ বিহারে আশ্রয়রত ক্ষতিগ্রস্তদের সাথে কথা বলেন। এসময় তিনি ক্ষতিগ্রস্তদের ত্রাণ সহায়তা নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, দ্রুত ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে এবং দোষীদের বিচারও করা হবে।

এসময় তাঁর সাথে ছিলেন চট্টগ্রাম বিভাগের ডিআইজি মনিরুজ্জামান, রিজিওনাল কমান্ডার মীর মুশফিকুর রহিম, রাঙামাটির জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মানজারুল মান্নান, রাঙামাটির পুলিশ সুপার সাঈদ তারিকুল হাসান, মাইনিমুখ জোনের কমান্ডার লে. ক আব্দুল আলিম চৌধুরী।

ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা ও তিনটিলা বৌদ্ধ বিহার পরিদর্শন শেষে কর্মকর্তবৃন্দ উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এক মতবিনিময় সভায় মিলিত হয়। রাঙামাটির জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মানজারুল মান্নানের সভাপতিত্বে এতে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিভাগের ডিআইজি মনিরুজ্জামান, রিজিওনাল কমান্ডার মীর মুশফিকুর রহিম, রাঙামাটির পুলিশ সুপার সাঈদ তারিকুল হাসান, মাইনিমুখ জোনের কমান্ডার লে. ক আব্দুল আলিম চৌধুরীসহ এলাকাল জনপ্রতিনিধি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

এসময় প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ডিআইজি মনিরুজ্জামানের সাথে মুঠোফোনে কথা বলেন। এসময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সকলকে ধৈর্য ধরে পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হবে এবং অগ্নিসংযোগ ও হত্যাকান্ডের সাথে যারা জড়িত তাদেরকে দ্রুত গ্রেপ্তার করা হবে।

মতবিনিময় সভায় বিভাগীয় কমিশনার রুহুল আমিন বলেন, সরকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে খুবই কঠোর অবস্থান নিয়েছে। দোষীদের কোনও প্রকার ছাড় দেওয়া হবে না।

চট্টগ্রাম বিভাগের ডিআইজি মনিরুজ্জামান বলেন, আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। যতদিন পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক হবে না, ততদিন পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নিরাপত্তা দিয়ে যাবে।

রিজিওনাল কমান্ডার মীর মুশফিকুর রহিম বলেন, সেনাবাহিনী নিরাপত্তা বিধানে সবসময় তৎপর রয়েছে। তিনি বলেন, ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসনে জিওসি মহোদয়ের পক্ষ থেকে সাত লক্ষ টাকা অনুদান দেওয়া হচ্ছে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button