ব্রেকিংরাঙামাটিলিড

রাঙামাটি রেডক্রিসেন্টে সম্পাদক পদে লড়ছেন মাহফুজ ও সৈকত

রাঙামাটি রেডক্রিস্টে সোসাইটির নির্বাচনে সাধারন সম্পাদক পদে লড়ছেন সাবেক দুই ছাত্রনেতা মাহফুুজুর রহমান ও সৈকত রঞ্জন চৌধুরী।

আগামী ৩০ মার্চ অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে সাধারন সম্পাদক সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি ও বর্তমানে রাঙামাটি পৌর আওয়ামীলীগের সহসভাপতি মাহফুজুর রহমানের সাথে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন সাবেক জেলা ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি ও গণজাগরন মঞ্চের সংগঠক সৈকত রঞ্জন চৌধুরী। রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির ৬৩২ জন আজীবন সদস্য,৩৩৪ জন বার্ষিক সদস্য সহ মোট ৯৬৬ জন সদস্য এই নির্বাচনে ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

ইতোমধ্যেই এই সংগঠনটির কার্যনির্বাহী কমিটির অন্যান্য পদে সরকারি দল সমর্থিত প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। ভাইস চেয়ারম্যান পদে জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি ও পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ সদস্য হাজী কামালউদ্দিনের বিপক্ষে মনোনয়ন নিয়েছিলেন জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক,সদর থানা বিএনপির সভাপতি ও রাঙামাটি বারের যুগ্ম সম্পাদক এডভোকেট মামুনুর রশীদ মামুন। কিন্তু ‘অজ্ঞাত’ কারণে তিনি শেষ মুহুর্তে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেয়ায় বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হয়েছেন হাজী কামাল।

অন্যদিকে সদস্যের পাঁচ পদে ছয়জন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করলেও যাচাই বাছাই কালে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ক্যাচিং মার্মার মনোনয়ন বাতিল হওয়ায় বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হয়েছেন জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শাওয়ালউদ্দিন,জেলা যুবলীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক এবং সিএইচটি ভয়েচ সম্পাদক কামালউদ্দিন,সিএইচটি লাইভের বার্তা প্রধান ও পার্বত্য বাঙালি ছাত্র পরিষদের সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ সোলায়মান,সাবেক জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ও চিত্রশিল্পী রেজাউল করিম রেজা,বঙ্গবন্ধু প্রজন্ম লীগের জেলা আহ্বায়ক ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা এনএম জাহাঙ্গীর।

তবে সাধারন সম্পাদক পদে প্রার্থীতা প্রত্যাহারের ‘চাপ’ উপেক্ষা করেই নির্বাচনী লড়াইয়ে থেকে যান সাবেক ছাত্র ইউনিয়ন নেতা সৈকত। তিনি ভোটযুদ্ধে মুখোমুখি হচ্ছেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মাহফুজের।

সাধারন সম্পাদক প্রার্থী সৈকত রঞ্জন চৌধুরী বলেছেন,আমি দীর্ঘদিন রেডক্রিসেন্টের কার্যক্রমের সাথে জড়িত আছি এবং এই সংগঠনের মাধ্যমে রাঙামাটির মানুষের জন্য কিছু করতে চাই। তাই নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি। নির্বাচনে অংশ নেয়ার অধিকার সবারই আছে। কিন্তু একটি পক্ষ নির্বাচনের আগেই যেভাবে কেন্দ্র সরিয়ে নেয়া,নিজেদের কর্মীদের বার্ষিক সদস্য বানিয়ে ভোটব্যাংক তৈরি করা এবং ভিন্নমতাবলম্বী প্রার্থীদের মনোনয়ন প্রত্যাহারে অনৈতিকভাবে চাপ সৃষ্টি করেছে,তাতে আমি সন্দিহান,এরা আদৌ মানুষের সেবার জন্য,নাকি নিজেদের রাজনৈতিক স্বার্থে এই সংস্থাটির নিয়ন্ত্রন নিতে চাইছে।’

অন্যদিকে আরেক প্রার্থী মাহফুজুর রহমান মাহফুজ বলেন,আমি রেডক্রিসেন্ট এর মাধ্যমে রাঙামাটিবাসির সেবা করতে চাই। এবং আন্তর্জাতিক সংস্থাটির মাধ্যমে রাঙামাটির দুস্থ ,অসহায় মানুষের জন্য অনেক কিছু করার সুযোগ আছে এবং বিপন্ন মানুষের পাশে দাঁড়ানোর সুযোগও আছে। তাই আমি সাধারন সম্পাদক পদে নির্বাচনে অংশ নিয়ে রেডক্রিসেন্টকে আরো বেশি গতিশীল ও সক্রিয় করতে চাই।’

এই বিভাগের আরো সংবাদ

ি কমেন্ট

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: