নীড় পাতা / ব্রেকিং / রাঙামাটি বৃক্ষ মেলায় বিদেশি গাছের দাপট !
parbatyachattagram

রাঙামাটি বৃক্ষ মেলায় বিদেশি গাছের দাপট !

দেশি ফলদ, বনজ ও ঔষধি গাছের সমাহারের মধ্যে নানান জাতের বিদেশি গাছও রয়েছে পার্বত্য জেলা রাঙামাটিতে আয়োজিত বৃক্ষ মেলায়। মেলায় মজুদকৃত নানান জাতের গাছের মধ্যে দেশি জাতের চেয়ে বিদেশি জাতের গাছেরই দাপট রয়েছে। দাপুটে গাছগুলোর বেশিরভাগই হাইব্রিড, থাইল্যান্ড, চায়না ও অন্যান্য জাতের।

গত সোমবার রাঙামাটিতে সাত দিনব্যাপী বৃক্ষ মেলা শুরু হয়েছে। মেলা চলবে আগামী ২৮ জুলাই পর্যন্ত। প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের জন্য মেলা উন্মুক্ত রয়েছে। মেলায় সরকারি-বেসরকারি মিয়ে মোট আটটি স্টল বসেছে। এরমধ্যে বেসরকারি স্টলগুলোতেই মানুষের উপস্থিতি বেশ লক্ষ্য করার মত। এ পিছনের কারণ হলো এই স্টলগুলোতে রয়েছে নানান জাতের দেশি-বিদেশি ফলদ, বনজ ও ঔষধি গাছের মজুদ। অন্যদিকে মানুষের চাহিদার কারণে বেশির ভাগ বিক্রি হচ্ছে বিদেশি জাতের গাছ।

কয়েকটি স্টলের বিক্রেতারা জানিয়েছেন, মেলায় সবচে বেশি বিক্রি হচ্ছে বিভিন্ন বিদেশি জাতের গাছের ফলদ ও বনজ গাছ। তবে দেশীয় ফলদ, বনজ, ঔষধি গাছের পর্যাপ্ত মজুদ থাকলেও বিক্রি একদম কম। বিদেশি জাতের মধ্যে থাই পেয়ারা, মাল্টা বারি-১, আ¤্রপালি, রাবি-৪ আম, কিউজাই আম, চায়না লেবু, চায়না কমলা, থাই লেবু, বাটিমন লেবু, রাম্বুটাম, চায়না- ৩ লিচুসহ বিভিন্ন পাতাবাহার গাছের চাহিদা রয়েছে বেশি।

বুধবার সরেজমিন বৃক্ষ মেলা ঘুরে দেখা গেছে, মেলায় বিদেশি ফলদ, বনজ ও ঔষদি গাছের মধ্যে রয়েছে, থাই পেয়ারা, মাল্টা বারি-১, আ¤্রপালি, রাবি-৪ আম, কিউজাই আম, চায়না লেবু, চায়না কমলা, থাই লেবু, নিটলেস লেবু, বাটিমন লেবু, রাম্বুটাম লিচু, কফি, পাকিস্তানি মাল্টা, ভিয়েটনামি নারকেল, অ্যাভোকাডো, থাই জাম্বুরা, ডুয়ার্প নারিকেল, মালেশিয়ান নারকেল, থাই জবা, ড্রাগন ফল, ফনিকসপাস, চাইনিজ বট, সেন্টেস ব্রাশ, অভোকাটাম, সিলভার স্টার, ডুরিয়ান, এক ফ্রুট, লং গাছ, এষ্টার ফুল, স্ট্রবেরি পেয়ারা, কনা ইন্ডিয়ান, কাটাছাড়া লেবু, জয়ফল, পেজতা বাদাম, পেস্ত বাদাম, গোন্ডেল সাওয়ার, ফোর কেজি আম, বেলবেট, চায়না- ৩ লিচু, পলি পেয়ারা ইত্যাদি প্রজাতির গাছ।

অন্যদিকে দেশি প্রজাতির গাছের মধ্যে রয়েছে, বেল, ঘৃত কুমারি, ফজলি আম, রঙ্গনফুল, বকুল ফুল, তুলসি, হরতকি, পলাশ, হাসনাহেনা, সোনামুকুল, নারকেল, লিচু, আমলকি, জাম্বুরাা, সপেদা, আমড়া, লেবু, নারকেল, সুপারি, বড়ই, শিউলি ফুল, জুঁই ফুল, গোলাপ, কাষ্ঠ গোলাপ, জলাপাই ইত্যাদি প্রজাতির গাছ। তবে বৃক্ষ মেলায় বিপন্ন প্রজাতির গাছের দেখা মেলেনি।

উন্নয়ন বোর্ড নার্সারির বিক্রেতা মোজাম্মেল শামীম জানান, মেলার তিন দিন পর্যন্ত যেটা দেখছি, মানুষ দেশি চারার চেয়ে বিদেশি বিভিন্ন গাছের চারা ক্রয় করছে। এরমধ্যে ফলগাছ ও পাতাবাহার গাছের সংখ্যাই বেশি। তবে দেশীয় জাতের মধ্যে ঔষধি গাছের চাহিদা কিছুটা রয়েছে।

মায়েরদোয়া নার্সারির বিক্রেতা সালাহ উদ্দিন বলেন, আমাদের কালেকশানেই সবচে বেশি রয়েছে বিদেশি জাতের চারা। কারণ ক্রেতাগণ দেশির চেয়ে বিদেশি জাতের চারা বেশি খুঁজছেন। আমাদের কাছে পর্যাপ্ত দেশি জাতের গাছের চারাও রয়েছে।

লিমা নার্সারির বিক্রেতা আব্দুল গফুর জানান, মানুষ অল্প সময়ের মধ্যেই সব কিছু তাদের হাতের নাগালে চায়। তাই অল্প সময়ের মধ্যে ভালো ও উন্নতমানের চারা খুঁজেন। এজন্য অনেকেই বিদেশি জাতের চারা ক্রয় করছেন। আমাদের দেশি জাতের থেকে বিদেশি জাতের গাছের চারা বেশি বিক্রি হচ্ছে। আবার অনেকেই বিদেশি জাতের গাছের দাম বেশি হওয়ায় দেশি গাছও কিনছেন।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক পবন কুমার চাকমা জানিয়েছেন, ‘শহুরে এলাকার মানুষ সাধারণত কলম, হাইব্রিড চারা রোপণ করেন। এর কারণে হলো এ জাতের গাছে স্বল্প সময়ের মধ্যে ফল উৎপাদন হয়। পাহাড়ে বর্তমান সময়ে ড্রাগন, রাম্বুটান চাষ বেড়েছে। অন্যদিকে অনেকেই বাড়ির আঙ্গিনায় ও বাসার ছাদে টবে করে গাছ লাগান। আর এই গাছগুলো বেশির ভাগই বিদেশি জাতের। তাই এর প্রভাব পড়ছে বৃক্ষ মেলায়।’

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বান্দরবান শহর আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে অমল-সামশুল

বান্দরবান শহর আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সম্মেলনে অমল কান্তি দাশ সভাপতি, সম্পাদক পদে সামশুল …

Leave a Reply