নীড় পাতা / ব্রেকিং / রাঙামাটি পৌরসভার শতকোটি টাকার ‘উচ্চাভিলাষী’ বাজেট প্রস্তাব !
parbatyachattagram

রাঙামাটি পৌরসভার শতকোটি টাকার ‘উচ্চাভিলাষী’ বাজেট প্রস্তাব !

নিজেদের আয় যা’ই থাকুক না কেনো, প্রস্তাবিত বাজেটে পার্বত্য জেলা পরিষদকেও ছাড়িয়ে গেছে রাঙামাটি পৌরসভা। রবিবার নিজেদের আগামী অর্থবছরের জন্য প্রস্তাবিত বাজেটকে ‘শতকোটি টাকার বাজেট’ ঘোষণা করে দৃশ্যত সবাইকে চমকে দিয়েছে পাহাড়ের রাজধানী খ্যাত রাঙামাটির প্রথম শ্রেণীর পৌরসভাটি।

রাঙামাটি পৌরসভার ২০১৯-২০ অর্থবছরে ১১৫ কোটি ৪৭ লক্ষ ৯৫ হাজার টাকার প্রস্তাবিত বাজেট ঘোষণা করেছেন পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী। রবিবার সকালে জেলা ক্রীড়া সংস্থার মিলনায়তনে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) সহযোগিতায়, রাঙামাটি পৌরসভা ও সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) এ আয়োজন করা হয়।
গত ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে ৮৪ কোটি ৮২ লক্ষ টাকা ঘোষণা করা হলেও এবার গত বছরের চেয়ে ৩২ কোটি টাকার বেশি বাজেট ঘোষণা করা হয়। আয়ের ‘বিপুল প্রত্যাশা’ বুকে জারি রেখেই পাহাড়ের এই পৌরসভাটি নিজেদের বিশাল এই বাজেট প্রস্তাব উপস্থাপন করলো।

সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) সভাপতি অমলেন্দু হাওলাদারের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন রাঙামাটি পৌরসভার মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী, পৌরসভার কাউন্সিলরবৃন্দ, গণমাধ্যম কর্মী ও সুশীল সমাজেরর প্রতিনিধিগণ।

বাজের প্রস্তাব উত্থাপনকালের আলোচনায় অংশ নিয়ে রাঙামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক শফিউল আজম ক্রীড়া খাতে বাজেট বৃদ্ধি করে যুব সমাজকে মাঠে ফিরিয়ে আনতে পৌরসভার পক্ষ থেকে টুর্নামেন্টের আয়োজনের প্রস্তাব রাখেন। রিজার্ভ বাজার রাস্তার কাজ নিয়ে এক সাংবাদিক ক্ষোভ প্রকাশ করলে শফিউল আজম বলেন, ‘রিজার্ভ বাজার যাওয়ার আব্দুল আলী থেকে সিএনজি স্টেশন পর্যন্ত রাস্তাটি দু’বছর হতে না হতে আবারো খানা-খন্দে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে যাচ্ছে,এই কাজে নিন্মমানের সামগ্রী ব্যবহার করা হয়েছে। দ্রুত এটি সংস্কার করা না হলে রিজার্ভ বাজার এলাকার বাসিন্দাসহ কয়েক উপজেলার মানুষের যাতায়াতে অসুবিধা তৈরি হবে।’

সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) সভাপতি অমলেন্দু হাওলাদার বলেন, ‘এবারের বাজেটি অনেকটা উচ্চবিলাসী হয়েছে। এধরনের উচ্চাবিলাসী বাজেট সরকারকেও ঘোষণা করতে দেখেছি। কিন্তু আমরা যারা নাগরিক আছি, আমাদের দেখার বিষয় এই উচ্চবিলাসী বাজেট কিভাবে বাস্তবায়ন করে পৌরসভা। তিনি আরো বলেন, বাজেট বাস্তবায়নে সক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন থাকলেও আমরা আশা করি পৌরসভা কর্তৃপক্ষ তার দুর্বলতা কাটিয়ে উঠতে পারবে।

বাজেট ঘোষণায় বাজেট সংক্রান্ত ছাড়াও শহরের বিভিন্ন বিষয়ে প্রশ্নের উত্তর দেন রাঙামাটি পৌরসভার মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী। এসময় তিনি আরো বলেন, বর্ষা শেষ হওয়ার পর রির্জাভবাজার রাস্তার সংস্কারের কাজ শুরু হবে। রাস্তার নিচে পানির পুরনো পাইপ লাইন থাকায় শহরের বিভিন্ন এলাকার রাস্তা দ্রুত নষ্ট হচ্ছে। আধুনিক শহর গড়তে আমাদের এই বাজেট। বাজেট বাস্তবায়নে সকলের সহযোগিতা চান মেয়র।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

যুথবদ্ধ এক বিকেল রাঙামাটির স্বেচ্ছাসেবীদের

রাঙামাটির সামাজিক ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলো যুথবদ্ধভাবে পালন করছে আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবক দিবস ২০১৯। কাটিয়েছে নিজেদের মত …

Leave a Reply