করোনাভাইরাস আপডেটব্রেকিংরাঙামাটি

রাঙামাটির ৫৬ খেলোয়াড় পেলো করোনা প্রণোদনার চেক

রাঙামাটিতে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত খেলোয়াড়, প্রশিক্ষক, ক্রীড়া সংগঠক, ক্রীড়া সংশ্লিষ্টদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর আর্থিক অনুদানের চেক হস্তান্তর করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাঙ্গামাটি মারী স্টেডিয়ামের সভাকক্ষে এই চেক হস্তান্তর করা হয়।

এতে রাঙামাটির জেলা প্রশাসক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি এ কে এম মামুনুর রশিদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিছি ছিলেন খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকর তালুকদার এমপি। এই সময় উপস্থিত ছিলেন, রাঙামাটি পৌরসভার মেয়র ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি আকবর হোসেন চৌধুরী, সাবেক সহ-সভাপতি ও পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য হাজী মো. কামাল উদ্দিন, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য মনোয়ারা জসিম, সাবেক সহ-সভাপতি সুনীল কান্তি দে, সহ-সভাপতি এডভোকেট মামুনুর রশিদ ও বরুণ দেওয়ান। এতে সঞ্চালনা করেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক শফিউল আজম।

জেলা প্রশাসক বলেন, করোনা ভাইরাসে বৈশি^ক প্রাদুর্ভাবে যাতে রাঙামাটির কোন মানুষকে না খেয়ে থাকতে না হয় সে জন্য সরকারের পক্ষ থেকে প্রাপ্ত অনুদান শ্রমিক থেকে শুরু করে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের মাঝে আমরা ভাগ করে দিয়েছি। যার ধারাবাহিকতায় কারোনার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত খেলোয়াড়, প্রশিক্ষক, ক্রীড়া সংগঠক, ক্রীড়া সংশ্লিষ্টদের মাঝে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের মাধ্যমে প্রাপ্ত প্রধানমন্ত্রীর আর্থিক সহযোগিতার চেক আমরা বিতরণ করছি।

প্রধানমন্ত্রীর আর্থিক অনুদানের চেকপ্রাপ্ত প্রাক্তন ফুটবলার জনি চাকমা জানান, করোনা এই মহামারিতে প্রধানমন্ত্রী এই আর্থিক অনুদানের চেক পেয়ে আমি খুব খুশি। আমি আশা রাখবো ভবিষ্যতেও খেলোয়াড়দের সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধিতে সরকার ভূমিকা রাখবে। যেন তরুণ প্রজন্ম খেলাধুলায় মনোযোগী হয়। এখন আর আগের মতো তরুণদের মাঠে নামতে দেখা যায় না। এখন মোবাইলের অতিব্যবহার তরুণদের খেলাধূলা থেকে মনোযোগ কেড়ে নিচ্ছে।

রাঙামাটি জেলা মহিলা ফুটবল দলের কোচ লছমী দেবী নেওয়ার জানান, করোনার এই বৈশি^ক মহামারিতে প্রধানমন্ত্রীর এই আর্থিক অনুদানের চেক পেয়ে আমি খুশি। সরকারকে ধন্যবাদ জানাই আর্থিক প্রণোদনার মাধ্যমে আমাদের উৎসাহিত করার জন্য।

রাঙামাটি জেলা ফুটবল দলের খেলোয়াড় কন্টন চাকমা জানান, আমি প্রধানমন্ত্রীর আর্থিক অনুদানের চেক পেয়ে খুশি, পাশাপাশি রাঙামাটির অন্যান্য যে সকল বিভিন্ন খেলাধুলার টিম রয়েছে তাদের সকলকেও পর্যায়ক্রমে আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করা গেলে ভালো হবে। এতে যে কোন ক্রীড়ার পারদর্শী সকল খেলোয়াড়রা খেলাধূলায় আরো বেশি মনোযোগী হতে পারবে।

এসময় প্রধান অতিথি খেলোয়াড়দের হাতে চেক তুলে দিলেও কোনও বক্তব্য রাখেননি। জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ থেকে প্রাপ্ত টাকা ৪৫ জনকে ৭ হাজার টাকা করে এবং রাঙামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থা থেকে ১১জনকে ৫হাজার টাকা করে অর্থ সহযোগিতা দেয়া হয়।

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button