ব্রেকিং নিউজ
নীড় পাতা / পাহাড়ের অর্থনীতি / রাঙামাটির হবু সংসদ সদস্যের কাছে ব্যবসায়ীদের চাওয়া
parbatyachattagram

রাঙামাটির হবু সংসদ সদস্যের কাছে ব্যবসায়ীদের চাওয়া

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কে হচ্ছেন ২৯৯নং সংসদীয় আসনের সংসদ সদস্য, সে বিষয়ে ব্যবসায়ীদের যেমন আগ্রহ রয়েছে, তেমনি তারাও জানাতে চান নির্বাচিত হলে সাংসদের কাছে তাদের কি চাওয়া। ব্যবসায়ীদের সে ভাবনা তুলে ধরতে দৈনিক পার্বত্য চট্টগ্রাম ও পাহাড়টোয়েন্টিফোর ডট কম এর স্টাফ রিপোর্টার শুভ্র মিশু কথা বলছেন রিজার্ভ বাজারের কয়েকজন ব্যবসায়ীর সাথে, জানতে চেয়েছেন যিনিই নির্বাচিত সংসদ সদস্য হন না কেন তার প্রতি ব্যবসায়ীদের প্রত্যাশা কি?

রিজার্ভ বাজার কাপড় ব্যবসায়ী মো. আনোয়ার আদি আনু জানান, যিনিই সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন না কেন, তার কাছে আমার প্রত্যাশা এটি এমন একটি অঞ্চল যেখানে অনেকগুলো জাতিগোষ্ঠীর মানুষ বসবাস করে। এখানে সকল জাতি গোষ্ঠী যাতে সম্প্রীতি বজায় রেখে বসবাস করতে পারে এবং কেউ যাতে সম্প্রীতি বিনিষ্ট করে ব্যবসায়ের ওপর কোন প্রকার প্রভাব ফেলতে না পারে, সে বিষয়টি নিশ্চিত করার দাবি জানান।

এছাড়াও তিনি উৎপাদনমুখী শিল্প যাতে বিকশিত হতে পারে সে জন্য একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত সরকারি বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা দেয়া ও বিভিন্ন আইনের জটিলতা শিথিল করা হয় সে বিষয়েও কাজ করতে পারে এমন সংসদ সদস্য নির্বাচিত হবেন বলে প্রত্যাশা করেন।
আর এক কাপড় ব্যবসায়ী মো. আব্দুল গণি জানান, নিরবিছিন্ন বিদ্যুতের ব্যবস্থা করতে হবে রাঙামাটির ব্যবসায়ীদের জন্য। শীতকালে তাও সারা যায়, কিন্তু ফালগুন চৈত্র মাসের শুরু থেকেই শুরু হয় বিদ্যুৎ ভোগান্তি। বিশেষ করে সন্ধ্যার থেকে কিছুক্ষণ পর পর বিদ্যুৎ চলে যাওয়ায় আমাদের কেনা বেচায় প্রচুর ভোগান্তির সম্মুখীন হতে হয়। যা কোনওভাবেই কাম্য নয়। এমনকি অনেক ব্যবসায়ীর বিদ্যুতের ভোগান্তিতে দোকান থেকে ছোটখাট চুরিও হয়। যিনিই সংসদ সদস্য হন না কেন তার কাছে আমার প্রত্যাশা সরকার এত বিদ্যুৎ উৎপাদন করছে তার মধ্যে রাঙামাটিতে ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানগুলো যাতে নিরবিচ্চিন্ন বিদ্যুতের ব্যবস্থা করেন।

পাশাপাশি ব্যবসায়ীদের ব্যবসার উন্নয়নে পর্যটন শিল্পের বিকাশ, উন্নত হোটেলের ব্যবস্থা যাতে পর্যটক রাঙামাটিমুখি হয় এবং রাঙামাটির সাথে যাতে করে সকল উপজেলায় দিনে গিয়ে কাজ শেষ করে দিনে ফেরত আসতে পারে, সে জন্য ব্যক্তি মালিকার পাশাপাশি সরকারি মালিকানায় স্বল্পমূল্যে স্পিড বোটের ব্যবস্থার দাবি জানান।

টেলিকম ব্যবসায়ী মো. আজিজুর রহমান চান সরকারি উদ্যোগে ব্যবসায়ীদের জন্য উন্নত মার্কেটের ব্যবস্থা করা হোক। আলাদা আলাদা পণ্যের জন্য আলাদা আলাদা জোন করা হলে ক্রেতা বিক্রেতা উভয়ের জন্য সুবিধা হবে। এছাড়াও শহরবাসী যাতে করে পৌরসভার সুযোগ-সুবিধা শতভাগ পান সে বিষয়ে পৌরসভাকে পরামর্শ প্রদান এবং তিনি পার্বত্য রাঙামাটির মানুষের কথা সংসদে উত্থাপন করে সমস্যা সমাধান করবেন।

তিনি ফিসারি বাঁধসহ বনরূপা, রিজার্ভ বাজার সড়কটি দ্রুত সংস্কারের প্রত্যাশা করেন, যাতে করে এই সড়কটি বর্ষার অতিবৃষ্টিতে কোনভাবে ভেঙ্গে যান চলাচল বন্ধ হয়ে না যায়। যদি এমনটা হয় তাহলে এই এলাকার ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া ছাড়াও এই এলাকার সাধারণ মানুষসহ নৌপথে চলাচলকালী বিভিন্ন উপজেলাবাসীও প্রচুর সমস্যার সম্মুখীন হবে।

এই টেলিকম ব্যবসায়ীসহ আরো অন্তত সাত ব্যবাসয়ীও তাদের সাথে একমত প্রকাশ করে পার্বত্য এই আসনে ছয় প্রার্থীর মধ্যে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এমন প্রার্থীকে রাঙামাটিবাসী নির্বাচিত করবেন, যিনি ব্যবসায়ীদের এই সমস্যাগুলোসহ রাঙামাটির সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করবেন এবং সমাধানের পথ খুঁজে তা সমাধানের চেষ্টা করবেন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

সঠিকভাবে শিক্ষা প্রদান করা হচ্ছে কিনা মনিটরিংয়ের নির্দেশ বৃষ কেতুর

ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী শিক্ষার্থীদের মাতৃভাষার ওপর শিক্ষাদানের জন্য জেলার যে সমস্ত বিদ্যালয় হতে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ প্রদান …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

eighteen − 9 =