করোনাভাইরাস আপডেটব্রেকিংরাঙামাটিলিড

রাঙামাটিতে করোনায় মৃত্যু বেড়ে ৯

বৃহস্পতিবার নতুন শনাক্ত ৩৩, ২৯টি সদরেই

পার্বত্য শহর রাঙামাটিতে করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া এক ব্যক্তির নমুনা রিপোর্ট পভিটিভ এসেছে। একইসঙ্গে জেলায়  দ্রুত গতিতে বাড়ছে নভেল করোনাভাইরাসের (কভিড-১৯) সংক্রমণও। বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম ভেটেনারি এন্ড অ্যানিমেল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাব থেকে আসা ৭১টি নমুনা রিপোর্টের ৩৩টি পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে। যার মধ্যে ২৯টিই জেলা সদরের। বাকি শনাক্তদের মধ্যে কাপ্তাইয়ে ২, বরকলে ১ ও নানিয়ারচর ১ জন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে জেলা সিভিল সার্জন অফিসের করোনা বিষয়ক ফোকাল পারসন ও মেডিকেল অফিসার ডা. মোস্তফা কামাল জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার সকালে সিভাসু ল্যাব থেকে রাঙামাটিতে ৭১টি রিপোর্ট এসেছে; যার ৩৩টিই পজিটিভ। নতুন শনাক্তদের মধ্যে সদর উপজেলার ২৯ জন ও নানিয়ারচর উপজেলার ১, বরকল উপজেলার ১ ও কাপ্তাই উপজেলার ২ জন রয়েছেন। এনিয়ে রাঙামাটিতে মোট করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৭৬ জনে।

একই দিনের রিপোর্টে গত ২১ জুলাই করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া জেলা শহরের টিএন্ডটি এলাকার বাসিন্দা এনামুল হকের নমুনা রিপোর্টও পভিটিভ এসেছে। এতে করে জেলায় করোনায় মৃতের সংখ্যা আরও একজন বেড়ে ৯ জনে দাঁড়িয়েছে বলে জানান এই স্বাস্থ্য কর্মকর্তা।

রাঙামাটি সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তথ্য বলছে, ৬ মে দেশের সবশেষ জেলা হিসেবে রাঙামাটিতে প্রথম ধাপে চারজনের দেহে কভিড-১৯ শনাক্ত হয়। পরবর্তীতে এ সংখ্যা ক্রমান্বয়ে দাঁড়িয়েছে ৫৭৬ জনে। তবে সবচেয়ে বেশি ৩৬৯ জন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে রাঙামাটি সদরেই। শনাক্তে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ স্থানে রয়েছে কাপ্তাই, এ উপজেলায় ৯৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এখন পর্যন্ত জেলায় সবচেয়ে কম সংক্রমণ হওয়া উপজেলা হলো বরকল। এ উপজেলায় মাত্র ৪ জন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে।

ইতোমধ্যে জেলায় ৩৮৫ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন। বর্তমানে জেলায় প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে আছেন ১৪ জন এবং করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৯ জন। এছাড়া করোনা পরীক্ষার জন্য এ পর্যন্ত রাঙামাটি থেকে মোট ২৭১০টি নমুনা পাঠানো হয়েছে। এরমধ্যে রিপোর্ট এসেছে ২৬৭৪টি, যার ৫৭৬টিই পজিটিভ। এখনো অপেক্ষমান নমুনা রিপোর্টের সংখ্যা ৩৬।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button