ব্রেকিংরাঙামাটি

রাঙামাটিতে অনুষ্ঠিত হলো বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ স্মৃতি মেধাবৃত্তি

রাঙামাটিতে অনুষ্ঠিত হলো বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ স্মৃতি মেধাবৃত্তি। শুক্রবার সকালে রাঙামাটি সদর ও কাউখালী উপজেলায় একযোগে অভিন্ন প্রশ্নপত্রে এই বৃত্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। তৃতীয় থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত প্রায় সহ¯্রাধিক শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে। এসময় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের জন্য মুক্তিযুদ্ধের শতাধিক ছবি প্রদর্শন করা হয়।

বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এই বৃত্তি পরীক্ষার আয়োজন করা হয়। রাঙামাটি সদর উপজেলায় রাঙামাটি সিনিয়র মাদ্রাসা ও শিশু নিকেতনে এবং কাউখালী উপজেলায় বেতবুনিয়া উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

পরীক্ষা চলাকালিন সময়ে রাঙামাটি সিনিয়র মাদ্রাসা ও শিশু নিকেতন কেন্দ্র পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক এ কে এম মামুনুর রশিদ। কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে তিনি সন্তোষ প্রকাশ করে এই ধরনের আয়োজনের মাধ্যমে আগামী প্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জিবিত হবে বলে মন্তব্য করেন।

এছাড়াও কেন্দ্র পরিদর্শন করেন রাঙামাটি সরকারি মহিলা কলেজের সহকারি অধ্যাপক মোঃ রাশেদুল হক, রাঙামাটি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক মোঃ হানিফ, রাঙামাটি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক মোঃ আনোয়ার কবির, জেলা স্কাউটস সম্পাদক মোঃ ইলিয়াছ আযম আশরফী, তৈয়বিয়া আইডিয়াল স্কুলের অধ্যক্ষ আলহাজ¦ মোঃ আখতার হোসেন চৌধুরী, নিউ রাঙামাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পারভিন ফেরদৌস, স্বর্ণটিলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নজির আহমদ তালুকদার, কাঠালতলি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হাজী মোঃ বদিউল আলম, পুলিশ লাইন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক চি কুচি মগ, শাহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পূর্ণিমা বড়–য়া, সেন্ট ট্রিজার স্কুলের শিক্ষিকা ছবি মার্মা, শিক্ষক ও মানবাধিকার সংগঠক অরুপ মুৎসুদ্দি, বিশিষ্ট সমাজসেবক ও ব্যবসায়ী হাজী মোঃ রোকন উদ্দিন এবং হাজী মোঃ মনসুর আলী। এছাড়াও বিভিন্ন প্রশাসনিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ কেন্দ্র পরিদর্শন করেন।
কেন্দ্র সচিবের দায়িত্ব পালন করেন রাঙামাটি শিশু নিকেতনের অধ্যক্ষ মোঃ মোস্তফা কামাল।

বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ ফাউন্ডেশনের উদ্যোক্তা ও পরিচালক ইয়াছিন রানা সোহেল বলেন, প্রথমবারের মত রাঙামাটি সদর ও কাউখালী উপজেলায় আয়োজিত এই বৃত্তি পরীক্ষায় অর্ধ শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় সহ¯্রাধিক শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছে। আগামীতেও এই ধারাবাহিকতা অব্যহত থাকবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

আগামী ১২ এপ্রিল স্থানীয় দৈনিক পত্রিকার মাধ্যমে বৃত্তির ফলাফল প্রকাশ করা হবে এবং ২০ এপ্রিল আনুষ্ঠানিকভাবে বৃত্তি প্রাপ্তদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হবে।
(প্রেস বিজ্ঞপ্তি)

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button