রাঙামাটি

মোবাইলে অভিনব প্রতারণা এই রাঙামাটিতেই !!

সৈকত বাবু
মোবাইলে এক অভিনব প্রতারণা শুরু করেছে একটি প্রতারক চক্র। মোবাইল নাস্বারে বিকাশে টাকা জমা হয়েছে এমন এসএমএস পাঠায়। পরে সে টাকা ভুলবশত দেয়া হয়েছে বলে টাকা ফেরত চায়। মূলত প্রতারক তাদের নাম্বার থেকে বিকাশে টাকা জমা হওয়ার হুবহু এসএমএস পাঠায় কিন্তু কোন টাকা জমা হয়না।

জানা গেছে, রাঙামাটির স্থানীয় একাধিক ব্যক্তির কাছে ০১৭৯৯৯৩৪৯৮৯ ও ০১৩২২২৯৯৫৯৮ এ দুই নাম্বার থেকে টাকার এসএমএস পাঠানো হয় এবং ফোন করে টাকা ফেরত দিতে বলে। এসএমএসটি আসার পর পর প্রতারক চক্র নানা নাম ব্যবহার করে ফোন দিয়ে বলে ভুলবশত টাকাটি আপনার একাউন্টে চলে গেছে অনুগ্রহপূর্বক দ্রুত ফেরত দিন। ক্রমাগত ফোন দিতেই থাকে এমন প্রতারক চক্র! এক্ষেত্রে প্রতারক চক্র সরকারি গুরত্বপূর্ণ কর্মকর্তারও নাম ব্যবহার করে। এবিষয় রাঙামাটি কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে অবহিত করা হয়। অবশ্য এমন প্রতারণায় পুলিশের নাম ব্যবহার করা হলেও পুলিশ প্রতারক চক্রকে এখনো আটক করতে পারেনি।

রাঙামাটির স্থানীয় বাসিন্দা তপন কান্তি বড়ুয়া বলেন, আমার মোবাইলে বিকাশে ১৫ হাজার টাকা ক্যাশইনের একটা এসএমএস আসে ঠিক তার পরপর একজন ফোন করে বলে আমি রাঙামাটি কোতয়ালী থানা ওসি তদন্ত গোলাম মোস্তফা। আপনার নাম্বারে আমি ভুল করে টাকা পাঠিয়ে দিয়েছি। দ্রুত টাকাগুলো ফেরত দিন। আমি দেখছি বলার পরও সে বারবার ফোন করে বলতে থাকে টাকাটা তার স্যারের টাকা না দিলে সমস্যা হবে দ্রুত যাতে টাকাটা পাঠিয়ে দেই। আমি দ্রুত বিষয়টি রাঙামাটি কোতয়ালী থানার ওসিকে অবহিত করি এবং তিনি নিশ্চিত করেন যে এ নামের কোন অফিসার রাঙামাটি থানায় নেই।

রাঙামাটি জেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তপন চাকমা তার ফেসবুকে জানান, ০১৭৯৯৯৩৪৯৮৯ নাম্বার থেকে কোতোয়ালী থানা ওসি তদন্ত পরিচয় দিয়ে বিকাশে ভুলেভাবে পনেরো হাজার টাকা পাঠিয়েছে। যাতে টাকাগুলো ফেরত দেই। মজার বিষয় হচ্ছে আমার বিকাশ বা নগদ একাউন্টই নেই! পরে বুঝতে পারি বিষয়টি ভুয়া। এ প্রসঙ্গে রাঙামাটি কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কবির হোসেনবলেন, ‘এমন প্রতারণার বিষয়ে আমারা জেনেছি এবং প্রতারকের লোকেশনও বের করতে পেরেছি।’

 

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button