ব্রেকিংরাঙামাটি

মেয়র প্রার্থীর মনোনয়নপত্র ছিনতাই ও মারধরের অভিযোগ ইশা’র!

সাইফুল বিন হাসান

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ’র রাঙামাটি জেলার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সংগঠনটির মনোনীত মেয়র প্রার্থী মোহাম্মদ ইসমাঈল হোসেন’র ওপর হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। রোববার চতুর্থ ধাপে দেশের অন্যান্য জেলার পৌরসভার মতই রাঙামাটিতে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ছিলো। সকাল থেকে রাঙামাটি পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের সাধারণ ও সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর পদপ্রার্থী এবং মেয়র পদপ্রার্থীরা মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তবে বিকেল বেলায় মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ মুহুর্তে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের এই মেয়র প্রার্থী জেলা নির্বাচন অফিসে এসে হামলার অভিযোগ করেন।

তিনি অভিযোগ করেন, ‘আমি চরমনাই পীরের সংগঠন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ’র মনোনীত মেয়র প্রার্থী হিসেব মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছিলাম। মনোনয়নপত্রের সব কিছু পরিপূর্ণ করে আজ (রোববার) জমা দেয়ার কথাও ছিলো। কিন্তু গত বৃহস্পতিবার রাতে আমাকে শহরের আসামবস্তি এলাকায় দুর্বৃত্তরা হামলা করে। এসময় আমার সকল কাগজপত্র তারা ছিনিয়ে নেয় এবং হুমকি দেয় একথা যেনো প্রশাসনের কানে না যায়। গেলে আমার ও আমার পরিবারের ক্ষতি হবে বলেও হুমকি দেয় তারা। দুর্বৃত্তকারীরা আমাকে প্রচুর মারধর করে। পরে আমি হাসপাতাল থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা গ্রহন করি।’

তিনি বলেন, ‘এ ব্যাপারে রাঙামাটি কোতয়ালী থানায় অভিযোগ করেছি এবং এ অভিযোগের কথা রাঙামাটি নির্বাচন অফিসে এসে জানিয়েছি। তবে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ও জমা দেওয়ার শেষ মুহুর্ত হওয়ায় তারা আমাকে আর কোন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে পারবো না বলে জানায়। তবে আমি দেশের আইনের ওপর আস্থাশীল। আমার ওপর এমন নির্যাতন ও হামলার তীব্র প্রতিবাদ জানাই।’

এ প্রসঙ্গে রাঙামাটি সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা শফিকুর রহমান বলেন, ‘তিনি কোন মনোনয়নপত্র জমা দেননি। এসে আমাদের কাছে অভিযোগ করেছে। মনোনয়ন যখন জমা দেননি সে হিসেবে এখানে আমাদের কোন কিছু নেই। ব্যক্তিগত বিষয়েও এমন ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। তিনি থানায় অভিযোগ করেছেন বলে জানিয়েছেন এখন এটি থানা দেখবে।’

উল্লেখ্য, আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি চতুর্থ ধাপে রাঙামাটি পৌর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ১৭ জানুয়ারি পৌর নির্বাচনের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ছিলো। এদিন মেয়র পদে ৫ জন, সংরক্ষিত আসনে ২০ জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৪৩জন পদপ্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button