করোনাভাইরাস আপডেটব্রেকিংরাঙামাটিলিড

মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে মানুষ

ধীরলয়ে ধেয়ে আসা অজানা মৃত্যুভয় যেনো মানুষকে নিয়ে এসেছে আরো কাছাকাছি। কভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাসের কারণে বিশ্বের প্রায় ৩০০ কোটি মানুষ যখন ঘরবন্দী সেই সময় ব্যতিক্রম নয় পার্বত্য জেলা রাঙামাটিও। কর্মজীবি,চাকুরিজীবি, দিনের শ্রমিক,নিন্ম আয়ের মানুষ সবাই এক কঠিন ভিন্নতর অভিজ্ঞতার মুখোমুখি। সবচে বেশি বিপদে পড়েছেন দরিদ্র নিন্ম আয়ের মানুষ। আয় রোজগার বন্ধ হয়ে যাওয়ায় অসহায় ও বিপন্ন বোধ করা এইসব মানুষকে নিয়ে দ্বিধাও সর্বত্র। তবে সব শংকাকে জয় করে একে এক এইসব মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছেন সক্ষম ও সামর্থ্যবান মানুষ,প্রশাসন,আইনশৃংখলাবাহিনী।

নিন্ম আয়ের এইসব মানুষের জন্য প্রধানমন্ত্রীর তরফ থেকে আসা ১০০ মেট্রিক টন খাদ্যশস্য এবং নগদ ১০ লক্ষ টাকা ইতোমধ্যেই বন্টন করা শুরু হয়েছে উপজেলা প্রশাসন ও পৌরসভার মাধ্যমে। ফলে কেটে আসছে সংকট।
রাঙামাটির জনবান্ধব জেলা প্রশাসক একে এম মামুনুর রশীদও শনিবার জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বেশ কয়েকটি স্থানে নিন্ম আয়ের মানুষের জন্য খাস্য সহায়তা প্রদান করেছেন। শুধু তিনি নিজেই দিচ্ছেন তা নয়, জেলা প্রশাসনের কর্মচারিরা গাড়ীতে করে এইসব খাদ্য সহযোগিতা পৌঁছে দিচ্ছেন এলাকায় এলাকায়,বাড়িতে বাড়িতে।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকেও শনিবার শহরের নিন্মআয়ের অনেক মানুষকে দেয়া হলো শুকনো খাবার সহযোগিতা। সেনা সদস্যরা বাড়ী বাড়ী গিয়ে পৌঁছে দিচ্ছেন এসব সহযোগিতা।

তবে সবচে আশার কথা হলো, নিন্ম আয়ের এইসব মানুষের জন্য নিজের সর্বোচ্চ নিয়ে পাশে দাঁড়াচ্ছেন অনেক সাধারন মানুষ,ব্যবসায়িরা।

শনিবার শহরের তরুণ ব্যবসায়ি তৈয়ব হোসেন মামুন ১০০ দরিদ্র ও নিন্ম আয়ের মানুষকে খাদ্যশস্য সহযোগিতা করেছেন। প্রত্যেককে ১০ কেজি করে চাল,২ লিটার তেল,২ কেজি পেয়াজ,২ কেজি আলু ,২ কেজি লবণ এবং ১ টি করে বাংলা সাবান দেন মামুন। এই সময় মামুনের সহোদর তারেক,মানিকসহ পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

একই দিন ভেদভেদী ব্যবসায়ি কল্যাণ সমিতির সভাপতি আজগর সওদাগরও ভেদভেদী এলাকার ৫০ টি পরিবারের হাতে খাদ্যশস্য সহায়তা তুলে দেন।

সরকারি নির্দেশনা যাতে লোকজন মেনে চলে এবং এসময় হত দরিদ্র  লোকজন যাতে খাদ্যাভাবে না থাকে সেজন্য নিজের সামর্থ্যনুযায়ী পাশে দাঁড়িয়েছেন  রাঙামাটি সিভিল সার্জন অফিসে কর্মরত স্বাস্থ্য কর্মকর্তা(বিসিএস) মোস্তফা কামাল।  নিজ উদ্যোগে দিনমজুর হত দরিদ্র লোকজনের মাঝে শুকনা খাবার বিতরন করেছেন তিনি । শনিবার শহরের স্বর্নটিলা এলাকার বিশ পরিবারের মাঝে চাল, ডাল, তেলসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি বিতরণ করেন তিনি। তাঁর এই উদ্যোগের জন্য এলাকার লোকজন তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন ।

সরকারি কর্তৃপক্ষ ও প্রশাসনের পাশাপাশি সাধারন মানুষের এইভাবে মানুষের পাশে এগিয়ে আসাকে স্বাগত জানাচ্ছেন সচেতন মানুষও।

দৈনিক পার্বত্য চট্টগ্রামের নগর সম্পাদক ও সময় টেলিভিশনের রাঙামাটি জেলা প্রতিনিধি সৈয়দ হেফাজত উল বারি সবুজ এইসব উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে বলেন- এটা খুবই আশাবাদের খবর যে, প্রশাসনের পাশাপাশি সমাজের বিত্তবানরাও দরিদ্র মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে। নানাভাবে সহযোগিতা করছেন। এই বিপন্ন সময়ে এটাই তো মানবিকতা। আমার প্রত্যাশা করি জেলা উপজেলার সকল বিত্তবানরা এইভাবে এগিয়ে আসবেন নিন্ম আয়ের মানুষের পাশে।

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button