রাঙামাটিলিড

মাদক মামলায় রাঙামাটি আদালতে ব্যতিক্রমি রায়

শংকর হোড় ॥
রাঙামাটির আদালতে মাদক মামলায় লিটন চাকমা নামে এক আসামি দোষী প্রমাণিত হওয়ার পর জেলে না দিয়ে এক বছরের প্রবেশনে মুক্তি দিয়েছে। আর এই একবছরে তিনি তাঁর এলাকার বিভিন্ন স্কুল,কলেজ ও মন্দিরে ১০০টি বৃক্ষ রোপণ ও হাটবাজারে মাদক বিরোধী প্রচারণার মাধ্যমে জনগণকে সচেতন করবেন। রবিবার জেলার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শিপলু কুমার দে এই ব্যক্তিক্রমী সাজা প্রদান করেন।

রায়ে উল্লেখ করা হয়, প্রবেশনার আগামী এক বছরের জন্য প্রবেশন অফিসারের তত্ত্বাবধানে থাকবেন এবং তার নির্দেশনাসমূহ মেনে চলতে হবে। উক্ত সময়ে তিনি কোন অপরাধ করবেন না, শান্তি বজায় রাখবেন, সদাচরণ করবেন এবং আদালত, প্রবেশন অফিসার ও আইন প্রয়োগকারী সং¯’ার তলবমতে যথা সময়ে যথাস্থানে উপস্থিত হতে হবে। উক্ত সময়কালে তিনি তার পরিবারের নির্ভরশীলদের প্রতি যতœশীল হবেন এবং পারিবারিক বন্ধন বজায় রাখবেন । প্রবেশন কর্মকর্তার অনুমতি না নিয়ে তিনি পেশা ও বাসস্থান পরিবর্তন করতে পারবেন না। সব সময় কোর্টের স্থানীয় অধিক্ষেত্রের মধ্যে নির্দিষ্ট বাসস্থান বা পেশায় থাকতে হবে। তিনি মাদক সেবন ও বিক্রয় করতে পারবেন না। মাদকসেবী ও মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে মেলামেশা করবেন না। তিনি প্রবেশনকালীন সময়ে প্রবেশন কর্মকর্তার তত্ত্বাবধানে তার নিজ উপজেলায় বিভিন্ন স্কুল কলেজ ও মন্দিরে বিভিন্ন প্রজাতির ১০০ টি বৃক্ষ রোপণ করবেন। তিনি তার নিজ উপজেলায় প্রতি হাট-বাজারে প্রবেশন কর্মকর্তার তত্ত্বাবধানে মাদক বিরোধী প্রচারণা করে জনগণকে মাদকের ভয়াবহতা সম্পর্কে সচেতন করবেন।

উক্ত প্রবেশনের শর্ত ভঙ্গ করলে আসামিকে ২০১৮ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ৩৬ (১) সারনি এর ১৯ (ক) ধারার বিধান মতে এক বছরের সশ্রম কারাদন্ড এবং ৫,০০০/- জরিমানা, অনাদায়ে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হবে। তাছাড়া প্রবেশন কর্মকর্তা আসামি প্রবেশনকালীন শর্তসমূহ পরিপালন করছেন কিনা তৎমর্মে প্রতি তিন মাস অন্তর অন্তর আদালতে রিপোর্ট প্রদান করবেন মর্মে রায়ে উল্লেখ করা হয়।

মামলার বাদীপক্ষের আইনজীবি ভবতোষ দেওয়ান বলেন, আসামি একজন কৃষক ও পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি এবং তার পূর্বের অপরাধের কোন রেকর্ড না থাকায় ও আসামি কোন অভ্যাসগত অপরাধী না হওয়ায় প্রথম অপরাধ বিবেচনায় তাকে কারাগারে দাগী আসামিদের সংস্পর্শে না রেখে সমাজে অবস্থান করে সংশোধন হওয়ার সুযোগ দিয়ে তাকে জেল হাজতে প্রেরণের পরিবর্তে The Probation of Offenders Ordinance, ১৯৬০ এর ৫ ধারার বিধানমতে শর্ত সাপেক্ষে প্রবেশন কর্মকর্তার অধীনে এক বছরের প্রবেশন প্রদান করেছে আদালত।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে লিটন চাকমা (৩৯) নামে মামলা হয়।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × two =

Back to top button