খাগড়াছড়িলিড

মাতৃভাষায় বর্ণমালার বই বিতরণ ‘সাঙু’র

শিক্ষার্থীদের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর মাতৃভাষায় পাঠদানের জন্য শিÿকদের নিজস্ব মাতৃভাষার বর্ণমালার ধারণা দেওয়ার পর এবার শিক্ষার্থীদের বর্ণমালা শিক্ষার বই দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে সাঙু পাঠাগার। এ বইয়ের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা মাতৃভাষার বর্ণমালার উচ্চারণ বাংলা অক্ষর দিয়ে বানান করে শিখতে পারবে। তাতে মাতৃভাষায় শিক্ষা তাদের জন্য অনেকটা সহজ হবে। বাল্য শিক্ষা বইয়ের আদলে সে বইতে নিজস্ব মাতৃভাষার অনেক ছড়া, ছোট গল্পও রাখা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, সরকার প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষায় ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর মাতৃভাষায় বর্ণমালার পাঠ্য বই পৌছে দেওয়ার পর শিক্ষা নিয়ে অনুসন্ধান চালায় খাগড়াছড়ির দীঘিনালার স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘সাঙু পাঠাগার’। সংগঠনটি তাদের অনুসন্ধানে জানতে পারে অধিকাংশ বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মাতৃভাষার বর্ণমালার সাথে পরিচয় না থাকায় শিক্ষার্থীদের মাতৃভাষায় ব্যাহত হচ্ছে। এমন সময় শিক্ষকসহ আগ্রহীদের বিনা বেতনে চাকমা ভাষার বর্ণমালা শিখাতে প্রত্যন্ত এলাকায় কাজ শুরু করেন সাঙু পাঠাগারের কর্মীরা। দীঘিনালা উপজেলা ছাড়িয়ে এ সংগঠনটি জেলার অন্যান্য উপজেলাতেও কার্যক্রম শুরু করে। এতে অনেকটা সফলতা আসে। এর পর তারা এখন শিশুদের মধ্যে অক্ষর শিক্ষার জন্য বাল্য শিক্ষার আদলে তৈরি বই বিনা মূল্যে বিতরণের উদ্যোগ নিয়েছেন। যে বইটিতে চাকমা বর্ণমালার প্রতিটি বর্ণের উচ্চারণ, লেখার নিয়ম, বানানসহ সবকিছু বাংলায় অনুদিত। এতে শিশুরা সহজেই তাদের বর্ণমালার সাথে পরিচিত হতে পারবে। ‘সাঙু ২০১৭’ নামের বইটিতে চাকমা সম্প্রদায়ের ঐতিহ্যগত ছোট ছোট গল্প, ছড়াও রাখা হয়েছে। যা শিশুদের মন সহজেই আকৃষ্ট করবে।

এ উদ্যোগটি সফলভাবে শেষ করার জন্য গঠন করা হয়েছে প্রকাশনা পরিষদ। ৩৩সদস্য বিশিষ্ট প্রকাশনা পরিষদের আহ্বায়ক  দেবাশীষ চাকমা। সহকারী আহবায়ক ইনজেব চাকমা ও রিকন চাকমা। সদস্য সচীব বিকেন চাকমা। ইনজেব চাকমা জানান, আগামি বছরের জানুয়ারি মাসে বিভিন্ন বিদ্যালয়ের ২০ হাজার শিক্ষার্থীর হাতে বই তোলে দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। সরকার ২০১৭ সালে যেহেতু মাতৃভাষার বই বিতরণ শুরু করেছেন তাই সে বছরটিকে স্মরণীয় করে রাখার জন্যই বইটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘সাঙু ২০১৭’। তাদের হিসেবমতে প্রতিটি বই ছাপানো পর্যন্ত খরচ হবে ৮ টাকা। এতে পরিবহন, বিতরণসহ কমপক্ষে ২লাখ টাকার প্রয়োজন। কিন্তু স্বেচ্ছাসেবি সংগঠনটির এত টাকা না থাকায় তাঁরা সমাজের সচেতন মহলের দ্বারস্থ হচ্ছেন; আর কারণেই একটু সময় লাগছে।

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button