খেলার মাঠ

মাঠে নেই খেলা, বেকার কাপ্তাইয়ের খেলোয়াড়রা

ক্রীড়া ক্ষেত্রে জাতীয় পর্যায়ে বেশ সুনাম রয়েছে কাপ্তাই উপজেলার নাম। সাবেক জাতীয় দলের ফুটবল খেলোয়াড় চিংহ্লা মং মারি, আসলাম খান, এফ আই কামাল, শাহাজউদ্দীন টিপু, বিপ্লব মারমা, পান্না নন্দী, বাবু খান, প্রয়াত অংচথোয়াই চৌধুরী, লড়াই খিয়াংসহ কাপ্তাইয়ের অনেক ফুটবলার জাতীয় পর্যায়ে অংশ নিয়ে কাপ্তাইয়ের জন্য গৌরব বয়ে এনেছিলেন। এছাড়া সাবেক অ্যাথলেট শাহানউদ্দিন, সুব্রত বড়ুয়া, মংক্যসিং মারমা, ব্যাডমিন্টনে মাহাবুব হাসান বাবু, ক্রিকেটার নাঈমুর রহমানসহ অনেকে ক্রীড়া ক্ষেত্রে জাতীয় পর্যায়ে নিজেদের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করেছেন। খেলাধূলায় কাপ্তাই এই অঞ্চলের মধ্যে অনেক এগিয়ে রয়েছে। বছরের প্রায় সময় বিভিন্ন খেলাধুলার আয়োজন হতো কাপ্তাইয়ের বিভিন্ন মাঠে। বিশেষ করে উপজেলা সদর শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম, কেপিএম সোনালী ব্যংক মাঠ, কাপ্তাই পিডিবি স্কুল মাঠ, নারানগিরি প্রয়াত অংথোয়াইচিং চৌধুরী(অনন্ত) খেলার মাঠে খেলোয়াড়দের নৈপুণ্য উপভোগ করতো দর্শকরা তুমুল করতালির মাধ্যমে। অনেক খেলোয়াড়ের আয় রোজগারের একমাত্র পথ ছিল এই খেলাধুলা।

কিন্তু করোনা ভাইরাসের প্রকোপে এখন বন্ধ রয়েছে সব ধরনের খেলাধূলা। বর্তমানে নেই কোন টুর্নামেন্ট। ফলে এই মাধ্যমে জড়িত অনেকে আজ বেকার বসে আছে।

কাপ্তাইয়ের কৃতি ফুটবলার বাবু খান, বেনু, সেন্টু, ডিকসনসহ অনেকে জানান, বিগত ৪ মাসেরও অধিক সময় আমরা খেলাধূলা থেকে বঞ্চিত। করোনার প্রকোপে খেলোয়াড়রা এখন ঘরবন্দী।

কাপ্তাই উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাবেক সাধারণ সম্পাদক কৃতী ফুটবলার শাহাবুদ্দীন আজাদ জানান, ক্রীড়াক্ষেত্রে সমগ্র বাংলাদেশে কাপ্তাইয়ে একটা সুনাম আছে। এই উপজেলা হতে তৈরি হয়েছে শত শত ফুটবলার, ক্রিকেটার এবং অ্যাথলেট। কিন্তু করোনার প্রকোপে এখন নিষ্প্রাণ খেলার মাঠ।

কাপ্তাই উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক বির্দশন বড়ুয়া জানান, আমরা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে বছরব্যাপী বিভিন্ন টুর্নামেন্ট সচল রেখেছি। সবসময় মাঠে ফুটবল, ক্রিকেট, অ্যাথলেটিক্স, ব্যাডমিন্টন, ভলিবল টুর্নামেন্ট আয়োজন করে আসছি, এছাড়া ক্রীড়া সংস্থার উদ্যোগে কৃতী খেলোয়াড় এবং কোচ মাহাবুব হাসান বাবুর তত্ত¡াবধানে প্রথমবারের মতো মাসব্যাপী মহিলাদের ফুটবল প্রশিক্ষণ প্রদান করেছি। কিন্তু করোনার প্রকোপে সব কিছু এখন বন্ধ। তবে করোনার প্রকোপ কমে গেলে আমরা আবারোও সচল রাখবো মাঠ। সে সাথে প্রথমবারের মতো আয়োজন করা হবে মহিলাদের নিয়ে ফুটবল টুর্নামেন্ট।
কাপ্তাইয়ের কৃতী খেলোয়াড় কোচ ক্রীড়া সংস্থার যুগ্ম সম্পাদক মাহাবুব হাসান বাবু জানান, কাপ্তাইয়ে প্রচুর সম্ভাবনাময় খেলোয়াড় রয়েছে। কিন্তু পৃষ্ঠপোষকতার অভাবে তারা তাদের প্রতিভা তুলে ধরতে পারছে না। যদি সঠিক পৃষ্ঠপোষকতা পায়, তাহলে কাপ্তাইয়ে ক্রীড়াক্ষেত্রে আবারো হারানো গৌরব ফিরে আনা সম্ভব।

এই করোনাকালীন সময়ে সকলকে এসব খেলোয়াড়দের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আহŸান জানিয়েছেন ক্রীড়া সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা, সংগঠক এবং কোচগণ।

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button