পাহাড়ে নির্বাচনের হাওয়াব্রেকিংরাঙামাটিলিড

মনি স্বপন ও ঊষাতনকে ধুয়ে দিলেন দীপংকর

জেএসএস সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী ও দলটির সহসভাপতি সংসদ সদস্য ঊষাতন তালুকদার ও বিএনপির ধানেরশীষের প্রার্থী মনি স্বপনকে ধুয়ে দিলেন আওয়ামীলীগ প্রার্থী দীপংকর তালুকদার।
বুধবার রাতে বনরূপা বাজারে অনুষ্ঠিত নির্বাচনী সমাবেশে দীপংকর তালুকদার বলেন, অবৈধ অস্ত্রের প্রভাব কাটিয়ে ও ভোট ডাকাতি করে বিগত নির্বাচনে জয়লাভ করেছে ঊষাতন তালুকদার। নির্বাচিত হয়ে তিনি জনগনের জন্য কিছুই করেননি। রাঙামাটিবাসীর দুঃখের সময় তাকে পাওয়া যায়নি। গতবছর রাঙামাটিতে সংঘটিত ভয়াবহ পাহাড়ধসে আওয়ামীলীগ পরিবারের অনেক নেতাকর্মীই দিনরাত পরিশ্রম করেছেন, দুর্গত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন, আশ্রয়কেন্দ্রে গিয়ে অসহায় মানুষগুলোর সেবা করেছেন,নিহতদের কবর দেয়া ও সৎকারেও আন্তরিক ভুমিকা রেখেছিলেন,অথচ ঊষাতন তালুকদারকে পাহাড়ধসে আহত-নিহতদের উদ্ধারে, আশ্রয়কেন্দ্র কিংবা হাসপাতাল কোথাও দেখা যায়নি, তার অনুসারিদেরও দেখা যায়নি। তিনি নির্বাচিত হয়ে নিজের আখের গুছিয়েছেন। এখন আবার এসেছেন ভোট চাইতে। তিনি বলেন, আমি হেরে গিয়েও কিন্তু জনগনের সাথে ছিলাম। এসময় ‘এবার আর ভোট ডাকাতির সুযোগ দেয়া হবেনা’ বলে মন্তব্য করেছেন দীপংকর।
বিএনপি প্রার্থী মনি স্বপন দেওয়ান সম্পর্কে দীপংকর তালুকদার বলেন, হঠাৎ বিএনপিতে এসে এমপি নির্বাচিত হয়ে মন্ত্রী হয়েছিলেন মনি স্বপন দেওয়ান। এরপর দল ছেড়ে গেছেন। বারো বছর পরে আবারো মধু খেতে এসেছেন তিনি। এত বছর তিনি রাঙামাটিতেই ছিলেন তবে নিজেকে নিয়েই ব্যস্ত ছিলেন। পাহাড়ধস কিংবা রাঙামাটির কোনো দুর্যোগেও দেখা মিলেনি তার। বিএনপি’র টিকেটে তিনি আবারো এমপি হতে এসেছেন। এসব বসন্তের কোকিলকে ভোট দিবেন কিনা আপনারাই বিবেচনা করবেন।
বৃহত্তর বনরূপা ব্যবসায়ী কল্যান সমিতির উদ্যোগে আয়োজিত সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সমিতির সভাপতি আবু সৈয়দ। বক্তব্য রাখেন পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী, পৌর আওয়ামীলীগ সভাপতি সোলায়মান চৌধুরী প্রমুখ।
দীপংকর তালুকদার বিএনপি’র জেলা কমিটির নির্বাচন নিয়ে বলেন, ২০১৬ সালে জেলা বিএনপির সম্মেলনে দীপেন দেওয়ান ও শাহ আলম সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্ধিতা করেন। দীপেন দেওয়ান হেরে যান শাহ আলমের কাছে। হেরে গিয়ে দীপেন দেওয়ান সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে অভিযোগ করেন, তাকে আওয়ামীলীগের ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে হারানো হয়েছে। পরের দিন শাহ আলম ও দীপন তালুকদার দীপু সংবাদ সম্মেলন করে বলেন, দীপেন দেওয়ান জেএসএস’র দালাল। দীপেন দেওয়ান বলেন, তাকে আওয়ামীলীগ হারিয়েছে আবার শাহ আলম-দীপু বলেন, দীপেন দেওয়ান জেএসএস’র এজেন্ট। দীপংকর তালুকদার অট্টহাসি দিয়ে বলেন, ‘তাহলে বিএনপি কই’?
দীপংকর তালুকদার আরো বলেন, আর এজন্যইতো দেখি ১১ ডিসেম্বর থেকে যেখানেই গেছি সেখানেই দলে দলে বিএনপি থেকে আওয়ামীলীগে যোগ দিচ্ছে। যারা আওয়ামীলীগে যোগ দিয়েছে তাদের আমরা হতাশ করবনা। তাদেরকেও পুরনোদের মত মূল্যায়ন করা হবে। দেরীতে হলেও আপনারা বুঝতে পেরেছেন আসল জায়গা কোনটা। কোথায় মিলবে শান্তি,সম্প্রীতি,ভালবাসা আর মূল্যায়ন।’ তিনি সকলকে নৌকা মার্কায় ভোট দেয়ার আহবান জানান এসময়।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four − two =

Back to top button