ব্রেকিংরাঙামাটিলিড

ভিসির দু:খপ্রকাশ, প্রকাশনা প্রত্যাহারের আশ্বাস

রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম প্রকাশনা ‘গিরিলহর’-এ প্রধানমন্ত্রীর অবদানকে স্বীকার না করা এবং প্রকাশনার কোথাও প্রধানমন্ত্রীর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের তথ্য ও ছবি ব্যবহার না করায় ক্ষিপ্ত রাঙামাটি জেলা ছাত্রলীগকে ঘটনার জন্য দু:খপ্রকাশ করে প্রকাশনাটি প্রত্যাহার করে পুন:প্রকাশ ও পরবর্তী প্রকাশনাকেই প্রথম প্রকাশনা হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়টির ভিসি ড. প্রদানেন্দু বিকাশ চাকমা।

সোমবার রাঙামাটি জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল জব্বার সুজন ও সাধারন সম্পাদক প্রকাশ চাকমার সাথে এক বৈঠকে ভিসি নিজের অবস্থান ব্যাখ্যা করে এই সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন ছাত্রলীগ সম্পাদক প্রকাশ চাকমা।

এর আগে রবিবার রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘গিরিলহর’ নামক এই প্রকাশনা শীঘ্রই বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশের ঘোষণা দেয় জেলা ছাত্রলীগ। কিন্তু ভিসি ফোন করে কর্মসূচী পালনের আগে জেলা ছাত্রলীগকে আলোচনায় বসার প্রস্তাব দিলে ছাত্রলীগ কর্মসূচীটি স্থগিত করে বলে জানিয়ে প্রকাশ চাকমা বলেন, ভিসি এই বিষয়ে জননেতা দীপংকর তালুকদারের কাছেও ফোন করে দু:খপ্রকাশ করেছেন এবং আমাদেরকে নিজেদের ভুল সংশোধনের সুযোগ দেয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন। ফলে আমরা কর্মসূচীটি স্থগিত করেছিলাম।

সোমবার জেলা ছাত্রলীগের একটি প্রতিনিধি দল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির সাথে সাক্ষাৎ করেন। এসময় ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে ৭২ঘন্টার আল্টিমেটাম দেয়া হয়। যাতে অবিলম্বে প্রকাশনাটি বাতিল বলে ঘোষণা করা হয়। ভিসি ড. প্রদানেন্দু বিকাশ চাকমা ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দের দাবি মেনে নিয়ে অবিলম্বে প্রকাশনাটি বাতিল করে নতুন করে প্রকাশনা বের করার ঘোষনা দেন।

ছাত্রলীগ জেলা সাধারন সম্পাদক প্রকাশ চাকমা বলেন, ভিসি আশ্বাস দিয়েছেন প্রকাশনাটি প্রত্যাহার করা হবে। তার আশ্বাসের প্রেক্ষিতে আমরা তার সাথে আলোচনায় বসে আমাদের সুনির্দিষ্ট দাবি তুলে ধরেছি। আমরা আমাদের কর্মসূচী সাময়িকভাবে স্থগিত করেছি,কিন্তু বাতিল করিনি। যদি ভিসি কথা না রাখেন,তবে আমরা আবারো কঠোর কর্মসূচী দিতে বাধ্য হবে। তখন আর আলোচনার সুযোগ থাকবেনা।

এই ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের বক্তব্য জানার জন্য উপ-রেজিস্টার অঞ্জন কুমার চাকমার মুঠোফোনে বেশ কয়েকবার ফোন করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

প্রসঙ্গত, রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম প্রকাশনা গিরিলহরে বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠার কোন ইতিহাস ও প্রেক্ষিত না থাকা,মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অবদানকে স্মরণ না করা,জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন না করা,ইউজিসি চেয়ারম্যান ও চ্যান্সেলরের বাণী না থাকা এবং দীপংকর তালুকদারসহ স্থানীয় শীর্ষ নেতাদের অবদান স্বীকার না করার ঘটনায় ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠে রাঙামাটির মানুষ। প্রকাশনাটি প্রকাশের পর রাঙামাটি আওয়ামীলীগ,যুবলীগ,ছাত্রলীগসহ বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠার সাথে জড়িতরা ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

১টি কমেন্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four + nine =

Back to top button