রাঙামাটি

বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টে পাহাড়ের জয়সেন-রূপনা-মং ক্য চিং

বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টে তিন পার্বত্য জেলা থেকে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী তিন সম্প্রদায়ের তিনজনকে মনোনীত করেছে সরকার। এরা হলেন রাঙামাটির বিলাইছড়ি উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান জয় সেন তঞ্চঙ্গ্যা,খাগড়াছড়ি জেলা মহিলা লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রুপনা চাকমা এবং বান্দরবান পৌরসভার মং ক্য চিং চৌধুরী।

সম্প্রতি ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সহকারী সচিব তরিকুল ইসলাম স্বাক্ষরিক এক প্রজ্ঞাপনে এই নিয়োগের কথা জানানো হয়েছে।

বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট আইন ২০১৮ এর ৫ নং ধারা অনুযায়ী আগামী ৩ বছরের জন্য গঠিত ট্রাস্টি বোর্ডের পদাধিকার বলে চেয়ারম্যান নিয়োগ পেয়েছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান দুলাল। একইসঙ্গে পদাধিকার বলে ট্রাস্টি হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মো. নুরুল ইসলাম।

সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান নিয়োগ পেয়েছেন যথাক্রমে সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন, সংরক্ষিত আসনের এমপি বেগম আরমা দত্ত। আর ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন সুপ্ত ভূষণ বড়ুয়া।

১২ সদস্যের ট্রাস্টি বোর্ডের  অন্য সদস্যরা হলেন কুমিল্লা জেলার লালমাই উপজেলার জ্যোতিষ সিংহ,প্রাক্তন ছাত্রনেতা মিথুন রশ্মি বড়ুয়া,লোহাগড়া উপজেলার পদুয়া গ্রামের মিসেস ববিতা বড়ুয়া এবং রাঙ্গুনিয়া উপজেলার ঘাটচেক গ্রামের রঞ্জন বড়ুয়া। 

প্রসঙ্গত, বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন একটি সংবিধিবদ্ধ সংস্থা । সরকার ১৯৮৩ সালে মহামান্য রাষ্ট্রপতির ৬৯ নং অধ্যাদেশ বলে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের ধর্মীয় কল্যাণ সাধনের  লক্ষ্যে এ ট্রাস্ট প্রতিষ্ঠা করেন।  মন্ত্রী, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী পদাধিকার বলে বোর্ডের চেয়ারম্যান এবং দেশের বৌদ্ধ অধ্যুষিত এলাকাসমূহ হতে মনোনীত বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের ১জন বিশিষ্ট ব্যক্তিকে ভাইস-চেয়ারম্যান ও ৫ জন বিশিষ্ট ব্যক্তিকে সদস্য করে সরকার কর্তৃক মোট ৭ সদস্য বিশিষ্ট  গঠিত ট্রাস্টি বোর্ড দ্বারা উক্ত ট্রাস্ট পরিচালিত হয়।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button