রাঙামাটি

বোরোর আশার ফলনে কৃষকের হাসি

কাপ্তাই প্রতিনিধি
চলতি বোরো মৌসুমে রাঙামাটি জেলার কাপ্তাই উপজেলায় বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি ধান উৎপাদন হওয়ায় কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে। ফলে ব্যস্ততা বেড়েছে কৃষাণ-কৃষাণীর। জানা যায়, কাপ্তাই উপজেলা রাইখালী এবং চিৎমরম ইউনিয়নে সবচেয়ে বেশি ধানের ফলন হয়েছে।
কাপ্তাই উপজেলার রাইখালী ইউনিয়নের রিফিউজি পাড়া, বড়খোলা পাড়ায় এবং চিৎমরম ইউনিয়নের আমতলী পাড়ায় সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ধানের ব্যাপক সমারোহে ভরপুর সবুজ প্রান্তর। জমিতে জমিতে ধানের গন্ধে মৌ মৌ করছে চারপাশ। কৃষাণ-কৃষাণী ব্যস্ত ধান কাটায়। তবে গত বছরের মতো এই বছরও করোনা ভাইরাসের প্রার্দুভাবে অনেক কৃষক ধান কাটার শ্রমিক সংকটে ভুগছেন বলে কৃষক উথোয়াই মং মারমা এবং কৃষক ইসমাইল হোসেন জানান।

কাপ্তাই উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সামসুল আলম চৌধুরী জানান, এই বছর কাপ্তাই উপজেলার ৫টি ইউনিয়নের প্রায় ৩৩২ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের ব্যাপক ফলন হয়েছে। যার মধ্যে উফসী জাতের ব্রি-ধান-২৮ – ১৫০ হেক্টর, ব্রি-ধান-২৯ -৭৫ হেক্টর, ব্রি-ধান-৫৮ – ২৫ হেক্টর, ব্রি-ধান-৭৪ – ১০ হেক্টর, হাইব্রিড জাতের হিরা- ৩ হেক্টর, সেরা- ৩ হেক্টর, নবি -৪ হেক্টর,, টিয়া -১ হেক্টর, এসএল ৮ এইস- ৬ হেক্টর, আগমনী – ৩৯ হেক্টর সহ সর্বোমোট ৩৩২ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের ফলন হয়েছে। এই বছরের কৃষি বিভাগের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১১০০ মেট্রিকটন। তবে এই লক্ষ্যমাত্রা ছেড়ে যেতে পারে বলে কৃষি বিভাগ জানিয়েছেন।
ইতিমধ্যে উপজেলার প্রত্যেকটি ইউনিয়নে ধান কাটা শুরু হয়ে গেছে। এইবার ধানের ব্যাপক ফলন হওয়ায় কৃষকেরা আশানুরূপ ফলন গোলায় তুলতে পারবে বলে মাঠ পর্যায়ের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা অংছাই মং চৌধুরী এবং চথোয়াই মং মারমা আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five × 1 =

Back to top button