লাইফস্টাইল

বোধিধারা’র মোড়ক উন্মোচন

রাঙামাটির অন্যতম বৌদ্ধ সংগঠন ত্রিশরণ ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশ কর্তৃক নিয়মিত প্রকাশিত ত্রৈমাসিক ‘বোধিধারা’ পত্রিকার ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসের প্রকাশনার মোড়ক উন্মোচন করা হয়েছে। পবিত্র মধূ পূর্ণিমা উপলক্ষে সোমবার সকালে রাঙামাটি রাজবন বিহারের দেশনালায় প্রাঙ্গণে পূণ্যানুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হয়।

শুরুতেই রাজবন বিহারের আবাসিক প্রধান অধ্যক্ষ ভদন্ত প্রজ্ঞালংকার মহাথেরকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন বোধিধারা প্রকাশনার প্রতিষ্ঠাতা বোধিপুর বন বিহার অধ্যক্ষ শ্রীমৎ জিনবোধি মহাথের। পরে রাজবন বিহারের ভিক্ষু সংঘ ও পূণ্যার্থীদের উপস্থিতিতে ভদন্ত প্রজ্ঞালংকার মহাথের ‘বোধিধারা’ প্রকাশনাটির মোড়ক উন্মোচন করেন । এসময় রাজবন বিহারের আবাসিক ভিক্ষুসংঘসহ নিগিরা রতন চাকমা, সুকান্ত চাকমা, অনুময় চাকমা, করুণা সিন্দু তংচঙ্গ্যা প্রমূখ পূণ্যার্থীবৃন্দ উপস্তিত ছিলেন।

এসময় প্রজ্ঞালংকার মহাথের বলেন, দীর্ঘ ১০ বছরে অতিক্রম হয়ে গেলেও আরো অনেক কিছু করার বাকি রয়েছে। সকলের মতামত ও ইতিবাচক বিষয়ভিত্তিক লেখনীর মাধ্যমে এগিয়ে যেতে হবে। ধর্মের প্রশিক্ষণ টিকে থাকতে হলে ধৈয্যের্র সাথে কাজ করতে হবে। অনেক বাধা-বিঘœ পার করতে হবে। তিনি বলেন, বোধিধারা পত্রিকা মূলত বৌদ্ধ ধর্মীয় ব্যাখ্যা তথা দিক নির্দেশনার আলোকে সমাজ ব্যবস্থার মধ্যে ইতিকাচক ও কাঙ্খিত মূল্যবোধ যুক্ত করে প্রকাশিত হচ্ছে যা বৌদ্ধ সমাজে বোধিধারার ভূমিকা অপরিসীম।

ত্রিশরণ ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশ সভাপতি অধ্যক্ষ শ্রীমৎ জিনবোধি মহাথেরো বলেন, বৌদ্ধ জগতে শান্তি ও সংহতির বার্তা নিয়ে শুভ মধূ পূর্ণিমার আগমন ঘটে। প্রতিবছরের এবছরেও এসেছে। বৌদ্ধ হিসেবে মধূ পূর্ণিমার শ^াশ্বত আবেদন সকল বৌদ্ধদের অন্তরে প্রত্যয় শীল ও চেতনা জাগায়। সকল বাঁধা বিপত্তি, দুঃখ হতাশা ও অনৈক্যের বাঁধ ভেঙে শান্তি ও সংহতি গড়ার প্রেরণা লাবে বৌদ্ধ সমাজ সংস্কৃতি ধন্য হয়ে ওঠে। তিনি বলেন, বুদ্ধ বলেছেন ‘সুখা সংঘসস্ সামগিগ্, সমগ্গানং তপো সুখো’ অর্থাৎ সংঘের সমন্বয়-চেতনা এবং সমন্বিত প্রয়াস সুখাবহ। বুদ্ধের পথে চলতে গেলে সকল ভেদ, বুদ্ধি, অহমিকা, দম্ভ ছেড়ে, ক্ষমা, সহনশীলতা ও সহানুভূতির পথ বেছে নেয়া উচিত।

উল্লেখ্য, বৌদ্ধ সমাজ, সাহিত্য, ধর্ম ও সাংস্কৃতিক গবেষণায় নিবেদিত ‘বোধিধারা’ নামক ত্রৈমাসিক বৌদ্ধ পত্রিকাটি ২০০৭ সালের প্রবারণা পূর্ণিমা তিথিতে প্রথম প্রকাশিত হয়।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × five =

Back to top button