ব্রেকিংরাঙামাটিলিড

বিদ্যুৎ বিভ্রাটে রাঙামাটিবাসীর জীবনযাত্রা ব্যাহত

বিদ্যুৎ বিভ্রাটে রাঙামাটিবাসীর মধ্যে অসন্তোষ দানা বাঁধছে। গত বেশ কিছু দিন ধরে দিনে ও রাত্রিতে বিভিন্ন সময়ে এ সমস্য দেখা দিচ্ছে। বিদ্যুৎ বিভ্রাট ও অসহনীয় গরমে রাঙামাটিবাসীর স্বাভাবিক জীবনযাত্রা বিঘœ ঘটছে।

বনরূপা এলাকার বাসিন্দা মো: মফিজুর রহমান বলেন, রাঙামাটিতে বেশ কিছু দিন ধরে বিদ্যুতের সমস্য দেখা দিচ্ছে। এতে করে অসুস্থ রোগীদের জন্য যেমন সমস্য হচ্ছে ঠিক তেমনিভাবে বাসাবাড়ির নানান কাজেও সমস্য সৃষ্টি হচ্ছে।

রাঙামাটি কলেজে অনার্স প্রথম বর্ষের পরীক্ষার্থী মাসুদুর আলম বলেন, আমাদের অনার্স প্রথম বর্ষের চুড়ান্ত পরীক্ষা শুরু হয়েছে। রাঙামাটি শহরে বেশ কিছু দিন ধরে বিদ্যুতের এত বেশি সমস্য হচ্ছে যে আমাদের পড়ালেখা করতে সমস্য হচ্ছে প্রচুর। বিদ্যুতের এমন সমস্য যাতে আর না হয় এর জন্য পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি। রাঙামাটি হাসপাতালে ভর্তিকৃত রোকসানা আক্তার বলেন, এমনিতে বেশ কিছু দিন ধরে প্রচুর গরম পরছে, তার মধ্যে কয়েকদিন ধরে বিদ্যুতের এত বেশি সমস্যা দেখা দিচ্ছে যে আমাদের পক্ষে গরম সহ্য করা খুবই কষ্টসাধ্য হয়ে পরেছে।

রাঙামাটির বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সবুজ কান্তি মজুমদার বলেন, লোডশেডিং আমাদের স্থানীয় কোন সমস্যা নয়, এটা হচ্ছে জাতীয় গ্রিডের সমস্যা। লোড বেড়ে যাওয়ার কারণে সিকিউনন্সি ডাউন হয়ে যায়, যার ফলে লোডশেডিং দিতে হয়। এ সমস্যা শুধু রাঙামাটিতে নয় দেশের বিভিন্ন এলাকায় হচ্ছে। এই বিষয়টি ঢাকা থেকে পরিচালনা করা হয় বলে জানান তিনি। তিনি আরো জানান, বেশ কিছু দিন নয় রাঙামাটিতে গত সপ্তাহের বুধবারে একবার এবং বৃহস্পতিবারে দুইবার আর গত বুধবার দুপুরের দিয়ে লোডশেডিং সমস্যাটা দেখা গিয়েছে। তবুও আমি বিভিন্ন স্থানের সাথে কথা বলে বিদ্যুৎ বরাদ্দ নিয়েছি। আশা করছি এ সমস্যা দ্রুত সমাধান হবে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

ি কমেন্ট

  1. রাংগামাটি থেকে কিভাবে বিদুৎ যায় সেটা আমার বোধগম্য নয়। যে এলাকায় বিদুৎ উৎপাদন করা হয় এবং এ এলাকার মানুষ বছরে ছয় মাস বন্যার পানিতে ভাসমান থাকে। প্রয়োজন হলে অন্য অন্য জায়গায় লোডশেডিং থাকবে কিন্তু রাংগামাটি তে নয়। এসব কর্মকর্তার জানা নেই এই বিদুৎ উৎপাদনে কোন এলকার মানুষ ভোক্তভোগী।

  2. রাঙামাটিতে যদি কোনো কারখানা থাকতো তাহলে একটা কথা ছিল।
    but এত ভালো জায়গায় ভালো সময়ে কারেন্ট না থাকার কারন কি??
    আবার অন্য জায়গায় বিক্রি হচ্ছে নাতো??

  3. রাংগামাটি বিদুৎ কর্মকর্তা মানুষের থেকে জর্ম্ম নয়,কুকুরের থেকে জর্ম্ম।বর্তমানে এস এসসি টেষ্ট চলতেছে,,,আগামী কিছু দিন পর প্রথমিক,মধ্যমিক পরীক্ষা হবে।।।তাদের কি হবে যারা দেশ গড়বে,আমাদের ভবিষ্যত প্রজম্ম???অবিলম্বে ভালোয় ভালোয় বিদুৎ চাই…নাহলে পাবলিক যদি ক্ষেপেগেলে না,,বুঝতেই পারছেন….।

  4. এই বিষয় টা তুলে ধরার জন্য পত্রিকা ও সম্পাদক কে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই। এবার যদি বিদ্যুৎ বিভাগের রাঙ্গামাটি জেলার A/C, Xen সাহেবদের বিষয়টি জনগুরুত্বপূর্ণ বলে মনে হয় এবং ব্যবস্হা নেন তাহলে ধন্য হবো।

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: