খেলার মাঠবান্দরবানব্রেকিংলিড

বান্দরবানে পর্দা উঠলো বঙ্গবন্ধু নবম বাংলাদেশ গেমসের

বান্দরবান প্রতিনিধি
জমকালো আয়োজনে বান্দরবানে বঙ্গবন্ধু ৯ম বাংলাদেশ গেমসের পর্দা উঠেছে। আজ মঙ্গলবার সকালে বান্দরবানের মেঘলাস্থ পার্বত্য জেলা পরিষদের নবনির্মিত অডিটোরিয়াম ভবনে বেলুন উড়িয়ে ৩ দিন ব্যাপী বাংলাদেশ গেমসের কারাতে ইভেন্টের উদ্ধোধন করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি।
এসময় অন্যান্যদের মধ্যে সেনাবাহিনীর বান্দরবান ৬৯ রিজিয়ন কমান্ডার ব্রীগেডিয়ার জেনারেল জিয়াউল হক, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ক্যশৈহ্লা, জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি, পুলিশ সুপার জেরীন আখতার, সিভিল সার্জন ডা: অংসুই প্রু মারমা, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও পৌরসভার মেয়র মো: ইসলাম বেবী, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম জাহাঙ্গীর, পার্বত্য জেলা পরিষদের মূখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা এটিএম কাওছার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
আয়োজকরা জানায়, কারাতে গেমসের ১৯টি ইভেন্টে সাতটি বিভাগের ৩৯টি গ্রুপের দেড়শ জন খেলোয়ার অংশ নিচ্ছে। গেমস চলবে ৮ এপ্রিল পর্যন্ত প্রতিদিন সকায় নয়টা থেকে বিকাল তিনটা পর্যন্ত। বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশনের তত্বাবধানে জাতীয় পর্যায়ের এ গেমস স্থানীয়ভাবে বান্দরবান জেলায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে। উদ্ধোধনী দিনে কাতাতে প্রথম গোল্ড জিতেছে বান্দরবান জেলার মেয়ে নুমে মারমা। ব্রোঞ্চ জিতেছে আনসার বাহিনীর হুমায়রা আকতার অন্তরা।
টূর্নামেন্ট আয়োজন কমিটির চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট মোয়াজ্জেম হোসেন সেন্টু বলেন, গেমস আয়োজনের মূল লক্ষ্য হচ্ছে তৃনমুল থেকে খেলোয়ার উঠে আসুক। এই গেমস থেকে নতুন নতুন কারাতে খেলোয়ার বেড়িয়ে আসবে। যারা আগামীকে এসএ গেমস, অলিম্পিক গেমসে বাংলাদেশের পক্ষে স্বর্ণ, ব্রোঞ্চ পদকের জন্য লড়বে। আমরা আশাবাদি সফলভাবে গেমস সম্পন্ন করে আর্ন্তজাতিক গেমসের জন্য প্রস্তুতি নিতে পারবো। এই গেমসে পদক বিজয়ীরাই লড়বে দেশের হয়ে আর্ন্তজাতিক টূর্ণামেন্টে।
উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে পার্বত্য চট্টগ্রাম মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি বলেন, খেলাধূলা নিজের এবং দেশের জন্য গৌরব বয়ে আনার অন্যতম একটি প্লাটফর্ম। স্থানীয়ভাবে জাতীয় টূর্ণামেন্ট আয়োজনের লক্ষ্য হচ্ছে তৃনমূল থেকে খেলোয়ার তৈরি করা। খেলাধূলায় শিক্ষার্থীদের মনোযোগী করা। সরকার আন্তরিকভাবে চেষ্টা করছে ক্রীড়াঙ্গনের উন্নয়নের মাধ্যমে দেশের ক্রীড়াঙ্গনের বিকাশ ঘটাতে। খেলোয়ারদের জন্য একটি নিশ্চিত ভবিষ্যত গড়ে তোলতে।
কারাতে ইভেন্টে প্রথম গোল্ড জয়ী বান্দরবানের খেলোয়ার নুমে মারমা বলেন, আমি অত্যন্ত আনন্দিত। এটি আমার প্রথম গোল্ড পদক। দেশের মাটিতে গোল্ড জয় আমাকে ভবিষ্যতে আর্ন্তজাতিক গেমসে দেশের জন্য স্বর্ণ জিততে অনুপ্রেরণা জোগাবে। আমার এ কৃতিত্বের জন্য আমি শিক্ষক এবং ক্রীড়াসংস্থাকে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

 

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button