বান্দরবান

বাইশারীর অভ্যন্তরীণ সড়কের বেহাল দশা

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী ইউনিয়নের অভ্যন্তরিণ সড়কগুলো বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। বিগত কয়েক বছরে অভ্যন্তরিণ সড়কগুলোতে দৃশ্যমান কোন উন্নয়ন কর্মকান্ড না হওয়ায় বর্তমানে সড়কগুলো দিয়ে চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। যার ফলে ইউনিয়নের সদরের সাথে অধিকাংশ সড়কে গাড়ি যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন।

ইউপি চেয়ারম্যান ও অন্যান্য সদস্যদের মধ্যে সমন্বয়হীনতার অভাবে ছোট ছোট কাজগুলোর উন্নয়ন সাধিত হচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন ইউপি সদস্যা সাবেকুন্নাহার। তিনি জানান, চেয়ারম্যান নিজের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী উন্নয়নের রুপরেখা দিলেও সদস্যদের প্রতিশ্রুতি রক্ষায় কোন প্রকার উদ্যোগ গ্রহণ করছে না। এভাবে চলতে থাকলে একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে এলাকার মানুষদের মুখ দেখানো যাবে না বলেও জানান এই প্রবীণ মহিলা ইউপি সদস্য।

বাইশারী সদরের সাথে যোগাযোগের প্রায় ২০ কি:মি: পর্যন্ত লম্বা সড়ক রয়েছে। সড়কগুলো হল করলিয়ামুরা-বাইশারী বাজার সড়ক, আলীক্ষ্যং-থুইলাঅং পাড়া সড়ক, বাইশারী বাজার লম্বাবিল সড়ক, বটতলি বাজার-নারিচবুনিয়া সড়ক, চাকপাড়া সড়কসহ বিভিন্ন ছোট খাটো অনেক সড়ক রয়েছে। এর মধ্যে অধিকাংশ সড়ক ইট বিছানো। বর্তমানে সড়কগুলো কাদা মাটিতে পরিণতসহ বিভিন্ন জায়গায় খানাখন্দ ও ছোট ছোট পুকুরে পরিণত হয়েছে।

বিগত দিনে এসব সড়ক দিয়ে জীপ, মাইক্রো, সিএনজি, অটোরিক্সা, মোটর সাইকেল চলাচল করত। বর্তমানে যানবাহন চলাচলতো দূরের কথা মানুষ পায়ে হেটে পর্যন্ত চলাচলের সুযোগ নেই।

বাইশারীর অভ্যন্তরিণ প্রতিটি সড়কের উভয় পার্শ্বে বিভিন্ন গ্রামসহ ফলফলাদির আবাদ লক্ষণীয়। তাছাড়া বাইশারী-লম্বাবিল সড়ক দিয়ে রাবার বাগানে উৎপাদিত লক্ষ লক্ষ টাকা পণ্য সামগ্রী আনা-নেয়া করতে হয়। সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ায় কাঁধে বহন করে দুর্গম পাহাড় থেকে রাবার সংগ্রহ করে নিয়ে আসা, আয়-ব্যয় সমান হয়ে যাচ্ছে বলে জানালেন স্থানীয় রাবার বাগান মালিক মোঃ আলী।

মধ্যম বাইশারী এলাকার বাসিন্দা দিদারুল আলম জানান, প্রতি বছর বর্ষা মৌসুমে চলাচল পথ হাঁটার অনুপযোগী হয়ে যায়। সংস্কারের জন্য লিখিত আবেদন করলেও জনপ্রতিনিদের কোন ধরনের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড দেখা যায়নি। তবে এলাকার লোকজন নিজেদের অর্থায়নে চলাচলের জন্য কিছুটা উপযোগী করার চেষ্টা করা হয়।

কৃষক ছৈয়দ আহমদ বলেন, বিগত বছরগুলোতে শাক-সবজি চাষ করে নিজের সংসার ভালভাবে চালাতে পারলেও এ বছর এলাকায় যোগাযোগ পথ অত্যন্ত খারাপ হওয়ায় তেমন কোন লাভ করতে পারে নাই।

সরেজমিনে দেখা যায়, অভ্যন্তরিণ সড়কগুলো বছর বছর অতিবৃষ্টিতে এবং পাহাড়ি ঢলে ভেঙ্গে যাওয়ায় পর কোন প্রকার মেরামত বা সংস্কার করা হয়নি।

এ বিষয়ে বাইশারী ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আলম বলেন, ইউপি সদস্যদের সমন্বহীনতার বিষয়টি আদৌ সত্য নয়। পরিষদবর্গ সড়ক গুলোর বিষয়ে অবগত আছেন এবং শীগ্রই সবার মতামত নিয়ে পরিষদের মাধ্যমে রেজুলেশন করে উপজেলা প্রশাসনকে অবহিত করা হবে।

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button