বান্দরবানব্রেকিংলিড

‘বঙ্গবন্ধু মানে বাংলাদেশ, বাংলাদেশ মানেই বঙ্গবন্ধু’

বঙ্গবন্ধু মানে বাংলাদেশ, বাংলাদেশ মানেই বঙ্গবন্ধু। বাংলাদেশ আর বঙ্গবন্ধু এক সুত্রে গাঁথা। ১৯২০ সালে ১৭ মার্চে স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম না হলে আমরা কখনো এই সোনার বাংলাদেশ আমরা পেতাম না। শনিবার সকালে বান্দরবান জেলা প্রশাসনের আয়োজনে বঙ্গবন্ধু মুক্ত মঞ্চে জাতীয় শিশু দিবস ও বঙ্গবন্ধুর ৯৮তম জন্মদিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা, পুরষ্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি।

‘বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন: রঙ ছড়ানো আলো, লাল সবুজের বাংলাদেশ থাকবে শিশু ভালো’ এই প্রতিপাদ্য বিষয় নিয়ে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বান্দরবানে জাতীয় শিশু দিবস ও বঙ্গবন্ধুর ৯৮ তম জন্মদিবস উদযাপিত হয়েছে।

দিবসটি উপলক্ষে শনিবার সকালে বান্দরবান জেলা প্রশাসনের আয়োজনে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় হতে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে বঙ্গবন্ধু মুক্তমঞ্চে গিয়ে মিলিত হয়। এরপর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, কেক কাটা, রচনা প্রতিযোগিতা, চিত্রাংকন প্রতিযোগিতাসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।

পরে দিবসটি উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু মুক্তমঞ্চে এক আলোচনা সভা, পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক মো: আসলাম হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকির হোসেন মজুমদার, পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য মো. শফিকুর রহমান, পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য ক্য সা প্রু, সদস্য লক্ষীপদ দাস, সদস্য সিং ইয়ং ম্রো, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. মুফিদুল আলম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আলী হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. ইয়াছির আরাফাত, সিভিল সার্জন ডা.অং সুই প্রু, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর বান্দরবানের উপ-পরিচালক. অংচালু, সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাজমা বিনতে আমীন নেজারত ডেপুটি কালেক্টর আলীনূর খান, জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা শিলাদিত্য মুৎসুদ্দি, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা সুস্মিতা খীসাসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, অভিভাবকসহ সরকারি বেসরকারি কর্মকর্তা এবং সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button