অরণ্যসুন্দরীফিচারব্রেকিংরাঙামাটিলিড

ফুল প্রেমী গোপা চাকমা’র উঠোন জুড়ে ফুটল ড্রাগন ফুল

রাঙামাটি জেলা শহরের পশ্চিম ট্রাইবেল আদাম নিবাসী গোপা চাকমা (৪৮)। তিনি একজন সৌখিন ফুল প্রেমী। তাঁর ছোট্ট উঠোন জুড়ে নানান ফুলের সমাহার। মূলতঃ সকালে বুদ্ধকে পুজো দেওয়ার জন্যই তাঁর এই আয়োজন! তো এই এই করতে করতে এখন বাগান করাটা তার নেশা।

এভাবেই বছর চারেক আগে প্রতিবেশি রীপা চাকমার কাছ থেকে ছোট্ট একটা ড্রাগন ফলের ডাল এনে উঠোনে লাগান গোপা। সেই ছোট্ট ডাল ১৮ মাসের মাথায় এসে ফুল দেয়। ফুল থেকে ফল। প্রথমবার মোট ৮ টি ফুল থেকে ফল পান তিনি।

 

 

 

এরপর তাঁর উৎসাহ দ্বিগুন বেড়ে যায়। যত্ন-আত্তি করতে থাকেন। ড্রাগন ফলের চারাটি যেন রোদ পায় সে ব্যবস্থা করেন। আর গাছের গোড়ায় গোবর দেন। এর ফলশ্রুতিতে পরের বছর ১৮ টি ফুল এল; তিনি উচ্ছ্বিসিত হয়ে উঠেন।

তখন তিনিও প্রতিবেশীদের ডাল দিতে শুরু করেন। আর এভাবেই সোমবার সন্ধ্যায় তার ড্রাগন গাছে ২৫টি ফুল ফুটেছে। আর ১০/১২ টি আসার অপেক্ষায় আছে। কিন্তু অতি রোদ আর অতি বৃষ্টি ড্রাগন ফুলের শত্রু। অতি রোদে ছোট্ট কলি শুকিয়ে ঝরে পড়ে, আর অতি বৃষ্টি ফুলের পঁচন ধরায়। তারপরও একসঙ্গে ২৫টি ফুলের আগমনে তিনি বেশ আনন্দিত।

একসঙ্গে ২৫ টি ফুল ফোটার আনন্দকে তিনি প্রতিবেশীদের সাথে উদযাপন করছেন। আর বলছেন, আমি ড্রাগন ফল খাই না। আমার ছেলেরা পছন্দ করে এটেই আমার তৃপ্তি। আমি উপভোগ করি ফুলের সৌন্দর্য।

ড্রাগন ফুলের স্থায়ীত্ব খুব কম। বিকেল থেকে ফুটতে শুরু করে সন্ধ্যায় ফুটে রাতেই চুপসে যায়। তাঁর খুব শখ ড্রাগন ফুলের সৌন্দর্যটা যদি দিনব্যাপী থাকতো। ড্রাগন গাছে এপ্রিল থেকে কলি আসা শুরু করে। ফুল ফোটে জুন মাসে। আর ফল পাওয়া যায় নভেম্বরে। পুষ্টি গুণে জাদুকরী এ ফলটির ফুলের মায়াও অনবদ্য…

 

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button