রাঙামাটিলিড

ফারুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের ভিত্তি স্থাপন দীপংকর তালুকদারের

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥
খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকর তালুকদার এমপি বলেছেন, রাঙামাটিসহ পার্বত্য চট্টগ্রামের এমন কোনো জায়গা নেই, যেখানে উন্নয়ন হয়নি। বর্তমান সরকার উন্নয়নবান্ধব, এ সরকারের সময়ে পার্বত্য চট্টগ্রামে অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। ফলে পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকায় শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও যোগাযোগসহ সব খাতে ব্যাপক উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। আওয়ামীলীগ সরকারের আমলে পার্বত্য চট্টগ্রামের সর্বত্র উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে। তিনি মঙ্গলবার রাঙামাটি বিলাইছড়ি উপজেলার ফারুয়া উচ্চ বিদ্যালয় একাডেমিক ভবনে ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন উপলক্ষে বিদ্যালয়ের হল রুমে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, এক শ্রেণীর মানুষ আছে যারা পাহাড়ের উন্নয়ন চায় না। তারা সব সময় সহিংসতার মাধ্যমে পাহাড়ের উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত করছে। অতীতে কোনো সরকার পার্বত্য চট্টগ্রাম নিয়ে ভাবেনি, যার কারণে পার্বত্য চট্টগ্রাম দেশের অন্যান্য অঞ্চলের চেয়ে পিছিয়ে ছিল। রাঙামাটি জেলায় যেসব উন্নয়ন প্রকল্প চলমান রয়েছে, তা দ্রুত বাস্তবায়ন করা হবে এবং এ উন্নয়ন প্রকল্পের সুবিধা ভোগ করবে রাঙামাবাসী।

এসময় ফারুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটি ও রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য রেমলিয়ানা পাংখোয়ার সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বিলাইছড়ি উপজেলার জোন অধিনায়ক লে: কর্নেল ইসরাত হোসেন (পিএসসি), কাপ্তাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মফিজুল হক, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য দীপ্তিময় তালুকদার, সাবেক সদস্য ত্রিদিব কান্তি দাশ, বিলাইছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অভিলাষ তঞ্চঙ্গ্যা, সাধারণ সম্পাদক সাইদুল হক, বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি জয় সেন তঞ্চঙ্গ্যা বক্তব্য রাখেন।

সভায় দীপংকর তালুকদার আরো বলেন, পাহাড়ে অবৈধ অস্ত্রের ব্যবহার বন্ধ করা না হলে গণতান্ত্রিক নির্বাচন কখনোই সম্ভব নয়। সাম্প্রদায়িক শক্তি ও অবৈধ অস্ত্রধারীরা কখনোই জনগণের বন্ধু হতে পারে না। তিনি সেনাবাহিনীকে পাহাড়ে অবৈধ অস্ত্রধারীদের বিরুদ্ধে আরো বেশি তৎপরতা বাড়ানোর আহবান জানান। পাশাপাশি অবৈধ অস্ত্রধারীদের বিরুদ্ধে জনমত গঠন করে সেনাবাহিনীকে সহযোগিতা করতে জনগনকে এগিয়ে আসার আহবান জানান।

এর আগে এগুজ্যাছড়ি আর্যমৈত্রী বুদ্ধ বিহার ভবন, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর বাস্তবায়নাধীন ফারুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। এবং পার্বত্য জেলা পরিষদ কর্তৃক নির্মিত এগুজ্যাছড়ি বাঙালি পাড়া জামে মসজিদ, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড নির্মিত ফারুয়া বাজার শ্রী শ্রী হরি মন্দিরের উদ্বোধন করেন।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button