রাঙামাটিলিড

প্রাক্তন উপজেলা চেয়ারম্যানদের বকেয়া ভাতা প্রদানের দাবি

তিন পার্বত্য জেলা

সৈকত বাবু
রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবান- এই তিন পার্বত্য জেলার চতুর্থ উপজেলা পরিষদের প্রাক্তন চেয়ারম্যান, ভাইস-চেয়ারম্যান ও নারী ভাইস-চেয়ারম্যানরা বকেয়া সম্মানি ভাতা ও ভ্রমন ভাতাসহ অন্যান্য ভাতা পাওয়ার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। মঙ্গলবার সকাল ১১টায় রাঙামাটি প্রেসক্লাস মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলন থেকে তারা চলমান সংকটের স্থায়ী সমাধানের লক্ষে ৩ দফা দাবি জানিয়েছেন।

দাবিগুলো হল- চলতি অর্থবছরের (২০২০-২১) জুন মাসের মধ্যে চেয়ারম্যান ও ভাইস-চেয়ারম্যানদের ন্যায্য প্রাপ্য সম্মানি ও ভ্রমণ ভাতাসহ বিভিন্ন ভাতাসমূহ প্রদানের উদ্যোগ গ্রহন। তিন পার্বত্য জেলায় উপজেলা পরিষদসমূহকে স্থায়ী সমাধানের জন্য ত্বরিত পদক্ষেপ গ্রহন এবং তিন পার্বত্য জেলার উপজেলা পরিষদসমূহকে আপাতত বিশেষ প্রণোদনা থোক বরাদ্দ প্রদানের মাধ্যমে বর্তমান সংকট নিরসনের সমাধান করা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে খাগড়াছড়ির লহ্মীছড়ি উপজেলা পরিষদের প্রাক্তন চেয়ারম্যান সুপার জ্যোতি চাকমা বলেন, ‘পার্বত্য চট্টগ্রামের উপজেলার জনসাধারণের উন্নয়নের জন্য, মানুষের কাজ করার জন্য উপজেলা পরিষদের দায়িত্ব নিয়েছিলাম। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয়, আমাদের সম্মানি ভাতা দীর্ঘদিন বকেয়া থাকলেও তা আমাদের প্রদানের জন্য সরকারের কোনো উদ্যোগ চোখে পড়ছে না। সম্মানি ভাতাসহ ভ্রমন ভাতাও বকেয়া রয়েছে। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় ও পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক মন্ত্রণালয় বিভিন্ন সময়ে যোগাযোগ করা হলেও কোনো ধরণের সহযোগিতা মন্ত্রণালয় থেকে পাচ্ছে না।’

তিনি বলেন, ‘চতুর্থ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানগণ যেমন ভুক্তভোগী একইভাবে তার আগের পরিষদগুলো এবং বর্তমান পঞ্চম উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানগণও অনিশ্চিয়তা ও দোদুল্যমানতার মধ্য দিয়ে সময় অতিক্রম করছে। তাই আমরা মনে করি, অচিরেই এ অবস্থার সুরাহা হওয়া দারকার।’

এসময় চেয়ারম্যানদ্বয় জানিয়েছেন, রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবান- এই তিন পার্বত্য জেলার ২৬টি উপজেলার মধ্যে দুই একটা উপজেলা ছাড়া বাকী সকলেই সম্মানি ভাতা ও ভ্রমণ ভাতাসহ অন্যান্য ভাতা থেকে বঞ্চিত রয়েছেন। কোন কোন উপজেলায় ১০ মাস, কোনটাতে ২৪ মাস, কোনটাতে ৩৩ মাস বকেয়া রয়েছে। বর্তমান পরিষদগুলোতেও একই অবস্থা বিদ্যমান। তারা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানদের সম্মানি ভাতা বকেয়া পরিমাণ প্রায় দুই কোটি টাকা দাঁড়িয়েছে বলে জানিয়েছেন।

সংবাদ সম্মলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, রাঙামাটির কাউখালী উপজেলা পরিষদের প্রাক্তন চেয়ারম্যান এসএম চৌধুরী, রাজস্থলী উপজেলা পরিষদের প্রাক্তন চেয়ারম্যান উথিনসিন মারমা, নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদের প্রাক্তন নারী ভাইস চেয়ারম্যান কোয়ালিটি চাকমা, বিলাইছড়ি উপজেলা পরিষদের প্রাক্তন ভাইস চেয়ারম্যান অমৃত সেন তঞ্চঙ্গ্যা, নারী ভাইস চেয়ারম্যান শ্যামা চাকমা, জুরাছড়ি উপজেলা পরিষদের প্রাক্তন চেয়ারম্যান উদয় জয় চাকমা, বরকল উপজেলা পরিষদের প্রাক্তন ভাইস চেয়ারম্যান শুকন্তলা চাকমা, খাগড়াছড়া লহ্মীছড়ি উপজেলা পরিষদের প্রাক্তন চেয়ারম্যান সুপার জ্যোতি চাকমা, খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা পরিষদের প্রাক্তন ভাইস চেয়ারম্যান রনিক ত্রিপুরা।

 

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button