নীড় পাতা / ব্রেকিং / প্রধান শিক্ষকের চলতি দায়িত্ব নিয়ে জটিলতা রাঙামাটি সদরে

প্রধান শিক্ষকের চলতি দায়িত্ব নিয়ে জটিলতা রাঙামাটি সদরে

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের আওতায় রাঙামাটি জেলার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের শূন্যপদে (চলতি দায়িত্ব প্রদানে) জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে পদায়ন না হওয়ায় বাধার মুখে রাঙামাটি সদর উপজেলার ২২জন শিক্ষকের চলতি দায়িত্ব পদায়ন স্থগিত করা হয়েছে। এ ব্যাপারে গত ৩ অক্টোবর (বৃহস্পতিবার) রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বরাবর লিখিত অভিযোগও দিয়েছে পদায়ন বঞ্চিত শিক্ষকরা।

বঞ্চিত শিক্ষকরা জানিয়েছেন, ২০১৬ সালের ১৭ আগস্ট সদর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের শূন্যপদে জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে পদায়ন সংক্রান্ত তালিকা প্রস্তুতের বিষয়ে সহকারী শিক্ষকদের ডাকেন। এ সময় চাকরি স্থায়ীকরণ ছাড়া পদায়ন না হওয়ার বিষয়ে স্থায়ীকরণের জন্য ও প্রধান শিক্ষকের চলতি দায়িত্ব নিতে অনিচ্ছুক শিক্ষকদের ফরমে স্বাক্ষর দিতে বলেন। ওই সময় অনেকেই প্রধান শিক্ষকের শূন্যপদে চলতি দায়িত্বে পদায়ন নিতে অনিচ্ছা জানায়।

তারা আরও জানিয়েছে, চাকরি স্থায়ীকরণ করলে পদোন্নতি নিতে কোনো ধরণের ঝামেলা হবে না এমনকি প্রতি বছর গ্রেডেশন তালিকা হালনাগাদ করা হবে। – উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার এমন আশ্বাসে সহকারী শিক্ষকগণ ফরমে স্বাক্ষর দেন। বঞ্চিত শিক্ষকদের অভিযোগ, এ ঘটনার পর প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের আওতায় রাঙামাটি জেলার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়েগুলোর পরপর দুইটা সংশোধনী আসলে অন্যান্য উপজেলাগুলোতে গ্রেডিশন সম্পন্ন করা হলেও সদর উপজেলার শিক্ষকদের বিষয়টি জানানো হয়নি।

অভিযোগ রয়েছে, রাঙামাটি সদর উপজেলা শিক্ষকদের ২২ জনের পদের মধ্যে ১২জন ছাড়া বাকী ১০জন কনিষ্ট শিক্ষকদের নাম উঠে আসে। এরমধ্যে ২০০৩ থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত ও এরআগে চাকরিতে যোগদানকৃতরা শিক্ষকরা প্রধান শিক্ষকের শূন্যপদে চলতিদায়িত্ব প্রদানে বঞ্চিত থাকেন। এছাড়া ২২ জন সহকারী শিক্ষকের মধ্যে বাকী ১০জন শিক্ষক ২০১১ সালে চাকরিতে যোগদান করেছে।

তবে রাঙামাটি সদর উপজেলার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের শূন্যপদে (চলতি দায়িত্ব প্রদানে) জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে পদায়ন না হওয়ায় বাধার মুখে পরবর্তীতে এই বিষয়ে রাঙামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বরাবর শিক্ষণগণ বিষয়টি জানালে কর্তৃপক্ষ পদায়নের বিষয়টি স্থগিত করে দেন। উল্লেখ্য যে, জেলার কাপ্তাই উপজেলা ছাড়া এই বাকী নয় উপজেলাতে চলতি দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকদের শূন্যপদে পদায়নে মোট ১৬৬টি শূণ্য পদ ছিলো। এর মধ্যে সদর উপজেলাধীন ২২টি পদ ছাড়া ১৪৪টি পদে পদায়ন কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে।

নাম প্রকাশ্যে অনইচ্ছুক কয়েকজন শিক্ষক জানান, ‘এটি একটি চলমান প্রক্রিয়া। জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে চলতি দায়িত্ব পদায়ন করা হবে এটাই নিয়ম। কিন্তু, কর্মকর্তাদের অনিয়ম দুর্নীতির কারণে রাঙামাটি সদর উপজেলায় প্রধান শিক্ষকের শূন্যপদে (চলতি দায়িত্ব প্রদানে) ব্যতিক্রম ঘটনা ঘটেছে। আমরা এই ব্যাপারে জেলা পরিষদ বরাবরে লিখিত আবেদন দিয়েছি। ওই সময় চেয়ারম্যান জানিয়েছে, জেলা পরিষদের বিশেষ ক্ষমতা বলে প্রধান শিক্ষকের শূন্যপদে পদায়ন স্থগিতাদেশ করা হয়েছে। এই বিষয়ে তদন্ত করে চলতি দায়িত্বে পদায়ন সম্পন্ন করা হবে।’ তারা আরও বলেন, ‘সবেমাত্র ৭ (সাত) বছর পূর্ণ হওয়া অধিকতর কনিষ্ট সহকারী শিক্ষকের গ্রেডেশন তালিকায় অর্ন্তভূক্ত করা হয়েছে। যা সত্যিই অপমান জনক এবং বিধি বর্হিভূত।’

এ বিষয়ে রাঙামাটি সদর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ত্রিরতন চাকমা’র মুঠোফোনে একাধিকার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ না করায় কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে রাঙামাটি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. খোরশেদ আলম জানান, ‘সদর উপজেলার প্রধান শিক্ষকের শূন্যপদে চলতি দায়িত্বে পদায়ন স্থগিত করা হয়েছে। আমি একটি মিটিং আছি, পরে কথা হবে।’

প্রসঙ্গত, গত ২৭ সেপ্টেম্বর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়, বিদ্যালয় শাখা-২ এর উপসচিব মো. আব্দুল ওয়াহেদ এর স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে এ আদেশে জারি করা হয়েছিলো।

আরো দেখুন

রাঙামাটি শহরে আওয়ামীলীগ-বিএনপি সংঘর্ষে আহত ৮

পার্বত্য শহর রাঙামাটিতে নির্বাচনী পথসভাকে কেন্দ্র করে আওয়ামীলীগ ও বিএনপির কর্মীদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

1 × 4 =