খাগড়াছড়িব্রেকিং

পাহাড়ে এক মাসেই ভাঙল ৩ বেইলি সেতু !

এক মাসের মধ্যে রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবান- এই তিন পার্বত্য জেলায় তিনটি বেইলি সেতু ভেঙে পড়েছে। সর্বশেষ মঙ্গলবার ভোরে রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সড়কের কুতুকছড়ি এলাকায় পাথরবোঝাই ট্রাক বেইলি সেতু পার হতে গিয়ে সেতুটি ভেঙে খালে পড়ে যায়। এতে নিহত হয় তিনজন। এর আগে গত ২২ ডিসেম্বর বান্দরবানের নাইক্ষ্যাংছড়ি উপজেলার বাইশারীতে পণ্যবাহী ট্রাক পার হতে গিয়ে বেইলি সেতু পড়ে যায়। তবে এ ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি। আর বন্ধ হয়ে যায় বান্দরবানের নাইক্ষ্যাংছড়ি ও কক্সবাজারের রামু উপজেলার যান চলাচল। অপরদিকে ২৬ ডিসেম্বর খাগড়াছড়ির দীঘিনালা উপজেলার বোয়ালখালী বেইলি সেতু ভেঙে যায়। এতে কেউ নিহত না হলেও আট জন আহত হয়। আর বন্ধ হয়ে যায় খাগড়াছড়ির দীঘিনালা ও রাঙামাটির লংগদু উপজেলার যান চলাচল। অতিরিক্ত পণ্য বোঝাই যান চলাচলের কারণে সেতুগুলো ভেঙে পড়ে জানায় সওজ।

বান্দরবানের স্থানীয় সাংবাদিক মো. শাফায়েত হোসেন জানান, নাইক্ষ্যাংছড়ি ও রামু উপজেলার সংযোগস্থল বেইলি সেতু দিয়ে ভারি যানবাহন চলাচলে নিষেধ্বাজ্ঞা রয়েছে। অতিরিক্ত মালামাল বোঝাই করে দিনের বেলায় সেতু পার হতে পারবেনা জেনে ভোর রাতেই পার হতে গিয়ে সেতু ভেঙে খালে পড়ে যায়। এতে কেউ হতাহত না হলেও দুই সপ্তাহের মত নাইক্ষ্যাংছড়ি ও রামু উপজেলায় যান চলাচল বন্ধ ছিল।

খাগড়াছড়ির সাংবাদিক সমির মল্লিক জানান, দীঘিনালা উপজেলার বোয়ালখালী বেইলি সেতু দিয়ে দুটো অতিরিক্ত কাঠ বোঝাই ট্রাক পার হতে গিয়ে সেতু ভেঙে খালে পড়ে যায়। এই ঘটনায় কেউ নিহত না হলেও আটজন আহত হয়। ১৩ দিন লংগদু ও দীঘিনালা উপজেলা সড়কে যান চলাচল বন্ধ ছিল।

এদিকে দুটি ঘটনার মাস না পেরুতেই রাঙামাটির কুতুকছড়িতে বেইলি বেইলি সেতু ট্রাক খালে পড়ে যায়। মঙ্গলবার ভোররাতে চট্টগ্রাম থেকে পাথরবোঝাই ট্রাকটি কুতুকছড়ির বেইলি ব্রিজ পার হতে গিয়ে সেতু ভেঙে খালে পড়ে যায়। ট্রাকটি রাঙামাটির নানিয়ারচরে যাচ্ছিল। এই ঘটনায় গাড়ির চালক, হেলপার ও চালানদার আজহার, জহির ও বাচ্চু ঘটনাস্থলেই নিহত হন।

রাঙামাটি সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী শাহে আরেফিন জানান, সেতুটি ১৯৯২ সালে তৈরি। সেতুর দৈর্ঘ্য ৬৪ মিটার। ধারণ ক্ষমতার অতিরিক্ত মালবোঝাই ট্রাক উঠাতেই এই দুর্ঘটনা। তিনি ধারনা করেন, ট্রাকের বডি এবং মালামালসহ ২৫টনের মতো হবে। ট্রাকটিতে ওভারলোডেড পাথর বোঝাইয়ের কারণে সেতুটি ভেঙে গেছে। সেতুটি পুরো পাটাতন খুলে আবার নতুন করে বসাতে হবে। দুই সপ্তাহের মধ্যে সেতুটি মেরামত করে যান চলাচলের ব্যবস্থা করা হবে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button