ব্রেকিংরাঙামাটিলিড

পাহাড়ধস মোকাবেলায় প্রস্তুত রাঙামাটি

আগামী ২৪ ঘন্টায় ভারী বর্ষণের ফলে পার্বত্য জেলা রাঙামাটিতে পাহাড় ধসের শঙ্কা রয়েছে। এতে করে যেকোনো ধরণের দুর্ঘটনা এড়াতে পাহাড়ের পাদদেশে ও কাপ্তাই হ্রদের তীরবর্তী স্থানে ঝুঁকিপূর্ণভাবে বসবাসরতদের সর্তক থাকা ও আশ্রয়কেন্দ্রে নিরাপদে আশ্রয় নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন রাঙামাটির জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ।

রোববার বিকালে জেলা প্রশাসনের সম্মেলন আয়োজিত এক জরুরি সভায় তিনি এ আহ্বান জানান। জেলা প্রশাসক বলেন, ‘ভারী বর্ষণের কারণে পুরো রাঙামাটি জেলায় পাহাড়ধসের ঝুঁকি রয়েছে। যেকোনো ধরণের দুর্ঘটনা এড়াতে জেলা প্রশাসন সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। রোববার বিকেল থেকেই রাঙামাটি শহরের বিভিন্ন ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় মাইকিং করা হচ্ছে।’

সভায় জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন- অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এসএম শফি কামাল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) শারমিন আলম, জেলা বিদ্যুৎ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সবুজ কান্তি মজুমদার, জেলা সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী শংকর চন্দ্র পাল, রাঙামাটি পৌরসভার প্যানেল জামাল উদ্দিনসহ পৌর কাউন্সিলরগণ।

এদিকে রোববার বিকাল থেকেই শহরের বিভিন্ন এলাকায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাইকিং করতে দেখা গেছে। মাইকিং এ ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় বসবাসরতদের আশ্রয়কেন্দ্র নিরাপদে আশ্রয় নেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। অন্যদিকে দুর্যোগকালীন সময়ে জরুরি তথ্য জানানোর জন্য জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কন্ট্রোল রুম চালু করা হয়েছে।

সভায় বিদ্যুৎ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সবুজ কান্তি মজুমদার বলেন, ‘ভারী বৃষ্টিতে যেকোনো এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগের ত্রুটি দেখা দিতে পারে। এ ব্যাপারে আমাদের জানালে আমরা সাথে সাথেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।’

জেলা প্রশাসনের সূত্র মতে, পাহাড়ধসে প্রাণহানি ঠেকাতে এবছর রাঙামাটি শহরের ৩৩টি স্থানকে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা বলে চিহ্নিত করা হয়েছে। ঝুঁকির কথা জেনেও এসব এলাকায় বসবাস করছে অন্তত ৬২৯টি পরিবার।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের ১৩ জুন রাঙামাটিতে প্রবল বর্ষণের পর পাহাড়ধসের ঘটনায় পাঁচ সেনাসদস্যসহ ১২০ জনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। এ সময় আহত হয় আরও দুই শতাধিক মানুষ। এর এক বছর পার না হতেই ২০১৮ সালের ১২ জুন রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলায় প্রবল বর্ষণে পাহাড়ধসের ঘটনায় মৃত্যু হয় ১১ জনের।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button