খাগড়াছড়িব্রেকিং

পানছড়ি উপজেলায় জিপিএ ৫ পেয়েছে পাঁচজন

খাগড়াছড়ি জেলার পানছড়ি উপজেলায় এসএসসি পরীক্ষায় (২০২০) এবার পাঁচজন জিপিএ ফাইভ পেয়েছে। জিপিএ ফাইভ পাওয়া সবাই সাধারণ শাখার ওপানছড়ি বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী।

সবচেয়ে বেশি পাশের হার পানছড়ি সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের। ঐ বিদ্যালয় থেকে সাধারণ শাখায় পাশ করেছে ৮০.৬৪ ভাগ শিক্ষার্থী ও কারিগরী শাখার পাশর হার ৮৯.০৯%। ৫টি জিপিএ ফাইভ পাওয়াপানছড়ি বাজার উচ্চ বিদ্যালয়েরপাশের হার ৬২.৫০%।পাশের হারের দিক দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে উল্টাছড়ি উচ্চ বিদ্যালয়। পাশের হার ৭৫%। ৬৪.৫১% পাশ নিয়ে ৩য় স্থানে রয়েছে পুজগাং মুখ উচ্চ বিদ্যালয়। এরপর লোগাং বাজার আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় ৬৪.৩৮%, নালকাটা উচ্চ বিদ্যালয় ৬৩%, বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ৫৮.৫৪% এবং লোগাং উচ্চ বিদ্যালয়’র পাশের হার ৫৮.২৪%।

অন্যদিকে উপজেলা দুইটি মাদ্রাসার মধ্যে পানছড়ি ইসলামিয়া সিনিয়র মাদ্রাসা থেকে এবার ৩৪জন পরীক্ষা দিয়ে ২৪জন পাশ করেছে। পাশের হার ৭০.৫৯% এবং মধ্যনগর দাখিল মাদ্রাসা থেকে ২৪জন পরীক্ষা দিয়ে ১৮জন পাশ করেছে। পাশের হার ৭৫%। মাদ্রাসা বিভাগ ও কারিগরী শাখা থেকে কেউ জিপিএ ফাইভ পায়নি।

জিপিএ ফাইভ পাওয়া ১২৪৪৯৩ রোলধারী মেরাজ হাসান’র বাড়ি উপজেলা সদরের সাঁওতাল পাড়ায়। তার পিতার নাম আবদুল মান্নান ও মা সাহেনা বেগম। পানছড়ি পুরাতন বাজারের উজ্বল শীল ও শিপ্রা শীলের মেয়ে অর্পিতা শীল’র রোল ১২৪৪৬৯। টিএন্ডটি টিলা এলাকার ললেন্দ্র লাল ত্রিপুরা ও স্বপ্না দেবী ত্রিপুরার মেয়ে অবনী ত্রিপুরার রোল ১২৪৪৯৫ এবং একই এলাকার সুচিন্ত দেওয়ান ও আকাশী চাকমার মেয়ে অন্যন্যা দেওয়ান’র রোল ১২৪৪৬৭। সাজিবুল ইসলামের রোল ১২৪৪৯৬। সে কলাবাগানের এনায়েত হোসেন ও সেলিনা আক্তারের ছেলে।

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button