বর্ষপূর্তির বিশেষ লেখালিড

পাঠকের আস্থা পাহাড় টোয়েন্টিফোর ডটকম’ই

সাত পেরিয়ে আট বছরে

যুগ পাল্টেছে; পাল্টেছে সাংবাদিকতার ধরণও। সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে একদিকে যেমনি বাড়ছে অনলাইন নিউজ পোর্টাল, তেমনি বাড়ছে ‘ভূয়া’ কিংবা অসত্য সংবাদের ছড়াছড়ি! এখানে অবশ্য পাহাড় টোয়েন্টিফোর ডটকম বরাবরই ব্যতিক্রম। সবার আগেই ছাপাতে হবে এ ধারণা কিংবা প্রতিযোগিতার বাহিরেই আমরা।
জন্মলগ্ন থেকে পাহাড় টোয়েন্টিফোর ডটকম বিগত সাত বছরে পেরেছে পাঠকের আস্থা অর্জন করতে। দায়িত্বশীলতার জায়গা থেকে সংবাদের ‘শক্ত সোর্স’ ও অধিকতর ‘ক্রসচেক’ নীতিতেই অটুট থাকাটাও পাঠকের আস্থা তৈরির প্রথম ধাপ।
আমরা গণমাধ্যমকর্মী হওয়ায় প্রায়শই সকালে ঘুম ভাঙে পাঠকের কল-ফোনেই। ছোট-বড় খুটিনাটি ঘটনা জানতে কিংবা জানাতেই তাদের এই তৎপরতা। বিগত বছরগুলোতে পাহাড় টোয়েন্টিফোর ডটকম পাহাড়ের অসংখ্য গুরুত্বপূর্ণ ও স্পর্শকাতর সংবাদ দায়িত্বশীলতার সাথেই পাঠকের মাঝে তুলে ধরার চেষ্টা করেছে মাত্র। পার্বত্য চট্টগ্রাম দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল হওয়ার কারণে সারা দেশের থেকে এখানকার যোগাযোগ ব্যবস্থা থেকে শুরু করে দুর্গমতা জয় করে আমরা চেষ্টা করেছি পাঠকের কাছে সঠিক ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ তুলে ধরতে।
মূলতঃ রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবান এই তিন জেলার আনাচে-কানাচে যত খুটিনাটি ঘটনা, জনদুর্ভোগ, প্রাণ-প্রকৃতি, পরিবেশ-প্রতিবেশ রক্ষায় আমরা অসঙ্গতিগুলোর পাশাপাশি উন্নয়নচিত্রের দৃশ্যপট তুলে ধরছি প্রতিনিয়ত।আধুনিক সময়ে সাধারণত মানুষ ফেসবুকসহ অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া নির্ভর হওয়ায় একদিকে যেমনি ইতিবাচক দিক আছে তেমনি আছে নেতিবাচক প্রভাব। সাধারণত ফেসবুকসহ সোশ্যাল মিডিয়ায় মুহূর্তের মধ্যেই ‘গুজব’ কিংবা ‘ভূয়া খবর’ ছড়িয়ে পড়ে তা পাঠককে প্রকৃত খবর জানতে বিড়ম্বনায় ফেলে। পাহাড় টোয়েন্টিফোর ঠিক সেখানেই দায়িত্বশীল সোর্স, ক্রসচেকের মাধ্যেম সঠিক সংবাদ তুলে ধরে। এক্ষেত্রে আমাদের পাঠকরাই আমাদের সবচেয়ে বড় অনুপ্রেরণা। এমনও ঘটেছে, নিউজরুমে যখন আমরা অফিসের কর্মীরা কাজ করি, তখন অনেকেই অফিসে এসেই বলেছেন, “বিভিন্ন অনলাইনেই নিউজটা পড়েছি। আপনাদের সংবাদের ভিতটা খুব ভালো।”
সারা দেশেই যেমনি গণমাধ্যমের উপর নানাভাবে খড়্গ তোলা হয়, পাহাড় তার বাহিরে নয়। নানা পারিপার্শ্বিকতা ও নীতি-নৈতিকতার স্থান থেকে আমরা কখনোই চাই না পাঠক আমাদের সংবাদ পড়ে ‘আহত’ হন। কিংবা আমাদের সংবাদ উপস্থাপনের কারণে সাধারণ মানুষ যেন বিপদে কিংবা হয়রানির শিকার না হন। এসবকে প্রাধান্য দিতে গিয়ে আমাদেরও হতে হয় কারো কারো ক্ষোভ-ক্রোধের পাত্র। তবুও আমরা সাহসের সাথেই দায়িত্বশীলতার পরিচয় বহনের চেষ্টায় সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছি প্রতিনিয়ত…
আজ পাহাড় টোয়েন্টিফোর ডটকম পথচলার সাত বছর পেরিয়ে আট বছরে পদার্পণ করেছে। আমাদের এই পথচলার সহযাত্রী পাঠক, শুভানুধ্যায়ী ও শুভাকাঙ্খী সকলকেই এই শুভক্ষণে জানাই আন্তরিক ভালোবাসা। পূর্বের দিনে যেভাবে ভালোবেসে আমাদের পাশেই ছিলেন, সামনের দিনেও আপনাদের তেমনি পাশে পাব, আমাদের সেই প্রত্যাশাটাই থাকবে।
প্রান্ত রনি, সহ-সম্পাদক, পাহাড়টোয়েন্টিফোর ডটকম 

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button