লিড

পর্যটক কম আসছে এবার পাহাড়ে

নিজস্ব প্রতিবেদক
ঈদের ছুটিতে মানুষের শেকড়ে ফেরার টানে ভাটা পড়েছে পাহাড়ের পর্যটনে। ফি বছর প্রতি ঈদের আগাম বুকিংয়ের চাপে যেখানে পর্যটকদের ঠাঁই দিতেই নাভিশ্বাস উঠত ছোট্ট এই পাহাড়ী শহরের হোটেল মোটেল রিসোর্টগুলোতে,সেখানে এবার ঈদের দিনেও নেই পুরো বুকিং,বরং অর্ধেক বুকিং আছে এমন প্রতিষ্ঠানও যেনো হাতেগোণা ! পাহাড়ের পর্যটনে এমন খড়া খুব একটা দৃশ্যমান ছিলোনা স্বাভাবিক কোন সময়েই ! তবে কম বুকিং এর জন্য স্বল্পদিনের ছুটি,দেশের উত্তরাঞ্চলের বন্যা পরিস্থিতিকেও দুষলেন পর্যটন সংশ্লিষ্টরা।

রাঙামাটি পর্যটন কর্পোরেশন এর ব্যবস্থাপক সৃজন বিকাশ বড়য়া বলছেন, ‘ বছরের এই সময়টাতে ট্যুরিস্ট’র প্রচুর চাপ থাকে। প্রায়শই থাকে শতভাগ বুকিংও। এবার একেবারেই ভিন্ন পরিস্থিতি। আমাদের মোটেল-কটেজের বুকিং ষাট শতাশংও পেরোয়নি। এটা খুবই হতাশার। দেশের একাংশের বন্যা পরিস্থিতিই হয়ত সবকিছুই বদলে দিয়েছে।’

রাঙামাটি শহরের হোটেল স্কয়ারপার্ক এর সত্বাধিকারি নেয়াজ আহমেদ বলছেন, ‘এতটা খারাপ পরিস্থিতি সাম্প্রতিক সময়গুলোতে হয়নি। আমার হোটেলের বুকিং বিশ শতাংশও পেরোয়নি।’ সম্ভবত বন্যা পরিস্থিতি,পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর রাজধানীতে থাকা দক্ষিনাঞ্চলবাসি প্রথমবার সড়কপথে ঈদ যাত্রা করা,ঈদের আগেই ছুটি হওয়ায় ঈদের পর ছুটি না থাকার কারণে এই অবস্থা হয়েছে।’

তবে যে পরিমাণ পর্যটকই আসুক না কেনো,তাদের জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রস্তুতির কথা বলছে ট্যুরিস্ট পুলিশ। রাঙামাটি ট্যুরিস্ট পুলিশের অফিসার ইনচার্জ জহিরুল আনোয়ার জানালেন,‘ বেড়াতে আসা পর্যটকরা যেনো নির্বিঘেœ ঘোরাফেরা করতে পারে সেই বিষয়ে সতর্ক থাকবে পুলিশ। সবার নিরাপদ ভ্রমন নিশ্চিতে কাজ করছি আমরা।’

রাজধানী থেকে রাঙামাটিগামি পরিবহনগুলোর মধ্যে অন্যতম শ্যামলী পরিবহনের বাসগুলো। এইসব বাসের রাঙামাটির ইনচার্জ শারমীন সিদ্দীকা জানালেন, ঈদের সময়টাতে ট্যুরিস্টদের যে আগাম বুকিং এর চাপ থাকে সেটা এবার খুবই কম। সম্ভবত ট্যুরিস্ট কম আসতেছে এবার।’

সব মিলিয়ে খুব একটা আশাবাদের চিহ্ন নেই এবার ঈদের ছুটিতে পাহাড়ের পর্যটনে। তবে এটাকে সাময়িক সংকট বলে মনে করছেন পর্যটন বিষয়ক লেখক ও রাইন্যাটুগুন ইকো রিসোর্ট এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ললিত সি চাকমা। ললিত বলছেন, যেসব সংকটের কারণে এবার ট্যুরিষ্ট কম তার সবই সাময়িক,দ্রুতই এই সংকট কেটে যাবে এবং আবার মুখর হয়ে উঠবে পাহাড়ের পর্যটন।’

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × 4 =

Back to top button