করোনাভাইরাস আপডেটব্রেকিংরাঙামাটিলিড

নিম্ন আয়ের একজন মানুষও ত্রাণের বাহিরে থাকবে না : ডিসি

করোনা ভাইরাসের কারনে নিম্ন আয়ের মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। তাদের নিয়মিত ত্রাণ দিয়ে যাচ্ছেন রাঙামাটির জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশীদ। প্রতিদিনই ত্রাণ নিয়ে হত দরিদ্র নিম্ন আয়ের মানুষের ঘরে ঘরে ত্রাণ পৌঁছে দেয়ার কাজটি করে যাচ্ছেন তিনি। সরকার কর্তৃক রাঙামাটিতে ১০০ মেট্রিক টন চাল ও ১০ লক্ষ টাকা বরাদ্দের সাথে সাথে ১০টি উপজেলা ও রাঙামাটি পৌরসভায় বিতরণ করে দেওয়া হয়।

রাঙামাটির জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশীদ জানান, আমরা একশ মেট্রিক টন পাওয়ার সাথে সাথে বিতরণ শুরু করেছি আরো একশো মেট্রিক টন বরাদ্দ চলে এসেছে। নিম্ন আয়ের খেটে খাওয়া একজন মানুষও ত্রাণের বাহিরে থাকবে না। আজ (মঙ্গলবার) প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে একটি বিষয় স্পষ্ট করে বলেছেন তালিকার মাধ্যমে ঐসব মানুষদের ত্রাণ পৌঁছে দেওয়ার জন্য। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার পরপরই আমি মাননীয় সংসদ সদস্য, পৌর মেয়রসহ অন্যানয় জনপ্রতিনিধিদের সাথে আলোচনা করেছি দ্রুততম সময়ের মধ্যে তালিকা প্রস্তুত করে সেই অনুযায়ী ত্রাণ বিতরণ করা হবে।

ডিসি আরো বলেন, ইতোমধ্যে আমার কাছে ত্রাণ বিতরণে বিশৃঙ্খলা নিয়ে অভিযোগ এসেছে, আমি রাঙামাটিবাসীর প্রতি অনুরোধ করবো যারা ব্যক্তি, সামাজিক সংগঠন ও রাজনৈতিক ব্যানারে ত্রাণ বিতরণ করছেন এবং করবেন তারা যেন অবশ্যই ওয়ার্ড কাউন্সিলর অথবা আমাকে জানিয়ে করলে ত্রাণগুলো সুষ্ঠভাবে বন্টন করা সম্ভব হবে। না হয় দেখা যাবে একই ব্যক্তি একাধিক বার পাচ্ছে আবার কেউ একবারও পাচ্ছেনা।

ডিসি আরো জানান, ত্রাণ কার্যক্রম শেষ হওয়ার পর যদি কেউ ত্রাণ না পেয়ে থাকে এবং এমন কোন এলাকা থাকে যেখানে এখনো ত্রাণ পৌঁছায়নি, তাহলে যে কোন মাধ্যমে আমাকে জানালে আমি ত্রাণের ব্যবস্থা করবো। তারপরও কেউ ঘর থেকে বের হবেন না। অপ্রয়োজনে অনেক লোককে রাস্তায় দেখা যায়। রাঙামাটিবাসীর প্রতি অনুরোধ রাখবো কয়েকটা দিন ঘরে থাকুন নিজের পরিবার, আত্মীয় স্বজন ও দেশকে ঝুঁকিমুক্ত রাখুন।

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button