খাগড়াছড়িব্রেকিং

নিখোঁজ তিন যুবককে উদ্ধার ও পাহাড় থেকে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারের দাবি

মাটিরাঙ্গা পৌরসভার মেয়র ও মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মো: শামছুল হক অক্ষত অবস্থায় নিখোঁজ তিন যুবককে উদ্ধারের দাবি জানিয়ে বলেছেন, অবিলম্বে পাহাড় থেকে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করতে হবে। সাধারণ পাহাড়ি-বাঙালি জনগোষ্ঠির নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। এভাবে একের পর এক খুন-গুম ও চাঁদাবাজি বন্ধ করতে হবে। তিনি ইউপিডিএফকে উদ্দেশ্য করে বলেন, পাহাড়ের মানুষ সন্ত্রাসীদের অবৈধ অস্ত্রের কাছে জিম্মি থাকতে চায় না। অবৈধ অস্ত্রের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকাল চারটার দিকে মাটিরাঙ্গার নিখোঁজ তিন যুবককে উদ্ধারের দাবিতে মাটিরাঙ্গার সর্বস্তরের জনগণের ব্যানারে আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তব্য প্রদান কালে এসব কথা বলেন।

মাটিরাঙ্গা পুরাতন হাসপাতাল মোড় থেকে শুরু করে ধলিয়া ব্রিজ পর্যন্ত এক কিলোমিটার দৈর্ঘ্য ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে মাটিরাঙ্গায় বসবাসকারী চাকমা, মারমা, ত্রিপুরা ও বাঙালিসহ বিভিন্ন সম্প্রাদায়ের সর্বস্তরের মানুষ ছাড়াও ব্যাবসায়ী নেতৃবৃন্দ, নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ মাটিরাঙ্গার শান্তিপ্রিয় দুই সহ¯্রাধিক শান্তিপ্রিয় জনগণ অংশগ্রহণ করেন।

ঘন্টাব্যাপী মানবন্ধনে মাটিরাঙ্গা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মো: আবুল হোসেন, মাটিরাঙ্গা প্রেস ক্লাবের সভাপতি এমএম জাহাঙ্গীর আলম, মাটিরাঙ্গা পৌর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো: আবুল হাসেম, মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ আলী, মারমা সম্প্রদায়ের পক্ষে মানবাধিকার কর্মী আতুশী মারমা, ত্রিপুরা জনগোষ্ঠির পক্ষে মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়নের মেম্বার মলেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, চাকমা সম্প্রদায়ের পক্ষে হিমেল চাকমা বাবু, হিন্দু সম্প্রদায়ের পক্ষে বিকাশ সেন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

আজকের মানববন্ধন প্রমাণ করে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে গনআন্দোলনের খুব বেশি বেশি সময় বাকী নেই মন্তব্য করে মাটিরাঙ্গা প্রেস ক্লাবের সভাপতি এমএম জাহাঙ্গীর আলম বলেন, সাধারণ মানুষের বিরুদ্ধে অস্ত্রের রাজনীতির দিন শেষ হয়ে গেছে। মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ আলী বলেন, স্বজন হারানো মানুষের মনে ক্ষোভ দানা বেঁধে উঠেছে। যেকোন সময় এ ক্ষোভ বিক্ষোভে পরিণত হবে। মানবাধিকার কর্মী আতুশী মারমা বলেন, এ মানববন্ধনের মাধ্যমে সাধারণ মানুষ সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে এক কাতারে দাঁড়িয়েছে।

অবিলম্বে নিখোঁজ তিন ব্যবসায়ীকে উদ্ধারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করে বক্তারা বলেন, নিখোঁজের নয় দিন অতিবাহিত হলেও তাদের উদ্ধারে কোনও অগ্রগতি দেখা যাচ্ছে না। আমরা তাদের জীবন নিয়ে শঙ্কায় রয়েছি। আমরা তাদেরকে জীবিত অবস্থায় ফেরত চাই। তিন যুবক উদ্ধার না হওয়া পর্যন্ত শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ারও ঘোষণা দেন বক্তারা। সন্ত্রাসীরা কি সরকারের চেয়েও বেশি শক্তিশালী এমন প্রশ্ন রেখে বক্তারা বলেন, তাদের উদ্ধারে ব্যর্থ হলে উদ্বুদ্ধ পরিস্থিতির দায়ভার প্রশাসনকেই নিতে হবে।

ঘন্টাব্যাপী শান্তিপূর্ণ মানববন্ধনে মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সুবাস চাকমা, মাটিরাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিরনজয় ত্রিপুরা, মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আলাউদ্দিন লিটন, মাটিরাঙ্গা বাজার ব্যবসায়ী কমিটির সভাপতি ও পৌর কাউন্সিলর মো. আবুল হাসেম ভুইয়া ও মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. শহিদুল ইসলাম সোহাগ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, গেল সোমবার বিকালের দিকে কাঠ ক্রয় করতে মহালছড়ির মাইসছড়ি যাওয়ার পর থেকে নিখোঁজ হয় মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের মো. খোরশেদ আলম ড্রাইভারের ছেলে মো. সালাহ উদ্দিন (২৮), আবুল হাসেমের ছেলে মো. মহরম আলী (২৭) ও মো. বাহার মিয়া ড্রাইভার (৩০)। নিখোঁজের ৯দিন অতিবাহিত হলেও এখনো তাদের সন্ধান মেলেনি।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

ি কমেন্ট

  1. হাম্বালীগ,হাম্বাদল,চাপাতি দল,ছাগু পরিষদ এই সন্ত্রাসী সংগঠন গুলো থেকে অবৈধ অস্ত্রের উদ্ধারের দাবি জানাচ্ছি।

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button
%d bloggers like this: