ব্রেকিংরাঙামাটিলিড

নানিয়রচর : বিএনপি-আওয়ামীলীগের ভোটেই কি তবে জয় পরাজয় ?

নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের শূন্য পদে ২৫ জুলাই (বুধবার) উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচন হবে দুই আঞ্চলিক দলের শক্তির লড়াই। তবে দুই আঞ্চলিক দলের প্রার্থী তাকিয়ে আছেন জাতীয় রাজনীতির দুই বড় দলের ভোটারদের দিকে। যেহেতু জাতীয় রাজনীতির দুই বড় দলের কোন প্রার্থী নেই সেহেতু তাদের ভোটেই নির্ধারন হবে আগামী দিনের উপজেলা চেয়রাম্যান এমনাটাই বলছেন স্থানীয় ভোটাররা।

উপ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে চারজন প্রার্থীতা জমা দিলেও একজন প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেন। নির্বাচনে প্রতিযোগিতার জন্য মাঠে হইলো তিনজন প্রার্থী। তাদের মধ্যে একজনের কোন প্রচারনা নেই। ইতোমধ্যে নির্বাচনকে সুষ্ঠ করার জন্য অতিরিক্ত পুলিশ, বিজিবি এবং র‌্যাবের সদস্যরা নানিয়ারচর পৌছে কাজ শুরু করেছেন। র‌্যাবের সদস্যরা বিভিন্ন এলাকায় টহল দিতে দেখা গেছে।

স্থানীয় ও জেলার রাজনীবিদরা মনে করেন এই নির্বাচন হবে দুই আঞ্চলিক দলের শক্তির লড়াই। ইউপিডিএফ তাদের আগের অবস্থান ফিরে পাওয়ার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করবে। অন্যদিকে জেএসএস (এমএনলারমা) তাদের অবস্থান ধরে রাখার চেষ্টা করবে, এখন দেখার বিষয় ২৫ জুলাই নির্বাচনে কি হয়? যার যার নিয়ন্ত্রিক এলাকায় ভোটারদের তাদের প্রার্থীকে ভোট দিতে চাপের কথা বলছে স্থানীয়রা। কোন প্রার্থীকে ভোটাররা ভোট দিবে সেই বিষয়ে কেউ মুখ খুলছেন না।

নানিয়ারচর উপ-নির্বাচনে ৪টি ইউনিয়নে ৩২,৮৫৪ ভোটার, ১৪টি ভোট কেন্দ্রে, ৮৩টি বুথ তার মধ্যে ১৪টি ভোট কেন্দ্র মধ্যে সবকটি ঝুঁকিপূর্ণ ও গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনায় রাখা হয়েছে।

উপ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে চারজন প্রার্থীতা জমা দিলেও একজন প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেন। নির্বাচনে প্রতিযোগিতার জন্য মাঠে আছেন তিনজন প্রার্থী। তারা হলেন প্রগতি চাকমা, কল্পনা চাকমা, প্রনতি রঞ্জন খীসা। এর মধ্যে প্রনতি চাকমা ও কল্পনা চাকমা ইউপিডিএফ সমর্থিত এবং প্রগতি চাকমা জেএসএস (এমএনলারমা) সমর্থিত প্রার্থী বলে স্থানীয়ভাবে জানা গেছে। প্রার্থীরা তাদের জয়ের ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

প্রগতি চাকমা (আনারস) প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে লড়ছেন। তিনি জেএসএস (এমএনলারমা) সমর্থিত প্রার্থী। প্রগতি চাকমা বলেন, ‘সাবেক্ষ্যং ইউনিয়নে ভোটাররা কিছুটা চাপে থাকলেও আশা করছি তারা তাদের মনোনিত প্রার্থীকে চাপমুক্ত হয়ে ভোট দিতে পারবে। যদি ভোটররা চাপ মুক্ত হয়ে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে পারে তাহলে আমি জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদি।

ইউপিডিএফ সমর্থিত প্রার্থী প্রণতি রজ্ঞন খীসা নির্বাচন শুরু কয়েকদিন পর থেকে এলাকায় কোন প্রচারনায় যান নি। ভোটের দিন তার নিজ কেন্দ্রে ভোট দিবেন বলে জানিছেন তিনি। তিনি আরো বলেন, ‘আমি গত উপজেলা নির্বাচনেও জেলায় বসে নির্বাচন করেছি, এবারও তাই করছি। প্রচরনাই আমার আত্মীয় এবং বন্ধুদের সাথে সমর্থকরাই কাজ করছে।

নানিয়ারচরের উপ-নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও জেলা নির্বাচন অফিসার মো. আব্দুল লতিফ শেখ জানান, ‘নির্বাচনী বিধি মালায় উল্লেখ্য আছে যদি নির্বাচনের সময় ১৮০ দিনের বেশি থাকে তাহলে সেখানে উপ-নির্বাচনের ব্যবস্থা করা সেই লক্ষ্যে নির্বাচন কমিশন থেকে তফশীল ঘোষণা করা হয়। তিনি আরো জানান, নির্বাচনকে সুষ্ঠ করার লক্ষ্যে ইতোমধ্যে রাঙামাটির জেলা প্রশাসক ও বিগ্রেড কমান্ডারের নেতৃত্বে আইনশৃঙ্খলা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে আরেকটি আইনশৃঙ্খলা সভা হয়েছে সেখানেও জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার উপস্থিত ছিলেন। বাংলাদেশের যেকোন জায়গার তুলনায় এই উপ-নির্বাচনের তিনগুন ফোর্স নিয়োগ করা হয়েছে। যে তিনজন প্রার্থী আছে নির্বাচনী আচন বিধি নিয়ে কেউ এখনো আমাদের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন নি। তারা তাদের মতো নির্বাচনী প্রচারনা চালাচ্ছে। আমরা সকলের কাছে গ্রহণ যোগ্য একটি নির্বাচন এবং যাদে সাধারণ ভোটাররা ভোট দিতে পারে সেই ব্যবস্থা করছি।

নির্বাচনের দিন নির্বাচনকে সুষ্ঠ করার লক্ষ্যে ৫শতাধিক পুলিশ মোতায়ান থাকবে সাথে সেনাবাহিনী ও বিজিবি টহল দল কেন্দ্রের আশে পাশে থাকবে বলে জানিয়েছন রাঙামাটির পুলিশ সুপার আলগীর কবির।

রাঙামাটির পুলিশ সুপার আলগীর কবির আরো বলেন, ‘স্মরণকালের সেরা নিরাপত্তা থাকবে নির্বাচনের দিন। যেহেতু গত ৩ মে নিজ কর্যালয়ের সামনে দুবৃর্ত্তের গুলিতে নিহত হন নানিয়ারচর উপজেলা চেয়ারম্যান শান্তিমান চাকমা। তাই যে কোন ধরনের অপ্রতীর ঘটনা মোকাবেলার জন্য আমরা প্রস্তুত।

প্রসঙ্গত, গত ৩ মে নিজ কর্যালয়ের সামনে দুবৃর্ত্তের গুলিতে নিহত হন নানিয়ারচর উপজেলা চেয়ারম্যান শান্তিমান চাকমা। শুন্য পদে উপ-নির্বাচনের জন্য গত ১১ জুন রাঙামাটি জেলা নির্বাচন অফিসার ও নানিয়ারচর উপজেলা রিটার্নিং অফিসার আব্দুল লতিফ শেখ স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছিল। আগামী ২৬ জুন ছিল মনোনয়ন পত্র বাছাইয়ের তারিখ, ৩ জুলাই ছিল রিটার্নিং অফিসারের নিকট প্রার্থীতা প্রত্যাহারের তারিখ এবং (৪ জুলাই) প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া রয়েছে। আগামী ২৫ জুলাই নানিয়রচর উপজেলা পরিষদ শুণ্য পদে উপ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

১টি কমেন্ট

  1. ন্যানিয়াচর উপজেলা উপনির্বাচনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী নেই বলে প্রচার করলেও বাস্তবে কিন্তু জেএসএস সংস্কার সমর্থিত প্রার্থীটাই আওয়ামীলীগের প্রার্থী। কারণ শক্তিমান তার প্রমাণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

10 − two =

Back to top button