বান্দরবানব্রেকিংলিড

নদী দখলদারদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি বলেন, নদী দখলদারদের বিরুদ্ধে আমাদের প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। কেউ যাতে নদী দখল করে কোন স্থাপনা তৈরি করতে না পারে সেদিকে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে। দখল হয়ে গেলে খবর নিলে হবে না, দখলের আগেই সবাইকে নদীর খবরাখবর রাখতে হবে।

এসময় পার্বত্য মন্ত্রী আরো বলেন, পার্বত্য এলাকার উন্নয়নে পাহাড় কাটতেই হবে, তবে পাহাড় কাটতে এমনভাবে কাজ করতে হবে যাতে পাহাড় ধস সৃষ্টি না হয়। পাহাড় কেটে উন্নয়নের পাশাপাশি পাহাড়ের আশে পাশে উন্নতমানের ড্রেন ও গার্ডার তৈরি করতে হবে। শুধু উন্নয়নের নামে পাহাড় কাটা যাবে না,পাহাড় কাটলে আশে পাশে নিরাপত্তার জন্য উন্নত মানের সব কিছুই ঠিকাদারকে করতে হবে। নতুন নতুন বনায়ন সৃষ্টি করতে হবে আমাদের সবাইকে। আমাদের বনবিভাগকে সচেতন হতে হবে। বনবিভাগ যদি সচেতন থাকে তাহলে মানুষেরা কোন গাছটি কাটতে পারবে আর কোন গাছটি কাটতে পারবেনা সেদিকে যদি বনবিভাগের নজর থাকে তাহলে আমাদের দেশের পাহাড় ধস অনেকটাই বন্ধ হয়ে যাবে।

পার্বত্য এলাকার নদী রক্ষা ও ঝিরি ঝর্ণা সুরক্ষাকে সামনে রেখে বান্দরবানে শেষ হল পার্বত্য নদী রক্ষা সম্মিলন ২০১৯। শনিবার বিকেলে জাতীয় নদী রক্ষা কমিশন ও বাংলাদেশ পরিব্রাজক দলের যৌথ আয়োজনে বান্দরবানের হিলভিউ কনভেনশান হলে দুই দিনব্যাপী এই সম্মিলনের সমাপ্তি ঘটে।

সমাপনী দিনে জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মুজিবুর রহমান হাওলাদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি। এ সময় অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের সার্বক্ষণিক সদস্য মো: আলাউদ্দিন, সদস্য শারমিন সোনিয়ামুরশিদ, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়্যারম্যান ক্যশৈহ্লা, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমা, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, বান্দরবান পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম বেবী, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: নোমান হোসেন, বাংলাদেশ নদী পরিব্রাজক দলের সভাপতি মো: মনির হোসেন, বাংলাদেশ নদী পরিব্রাজক দল বান্দরবান জেলা শাখার সভাপতি অলক দাশ গুপ্ত, সাধারণ সম্পাদক মো: কামাল পাশা, অর্থ সম্পাদক লিটন চক্রবর্তী, সদস্য কৌশিক দাশ, সদস্য রাহুল বড়–য়া ছোটন, সদস্য ইয়াছিনুল হাকিম চৌধুরীসহ নদী গবেষক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা।

অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রজেক্টরের মাধ্যমে বান্দরবানের বিভিন্ন ঝিরি ঝর্ণার তথ্য তুলে ধরে আয়োজকেরা। অনুষ্ঠানে বক্তারা পার্বত্য এলাকার নদী রক্ষায় সবাইকে সচেতন হওয়ার আহবান জানান এবং অবৈধ দখলদারদের হাত থেকে নদীকে সুরক্ষিত রাখতে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করারঅনুরোধ করেন।

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button
Close