রাঙামাটিলিড

দীপংকরের নামে হল নামকরণের প্রস্তাব

রাঙামাটিতে জেলার সার্বিক উন্নয়ন এবং ঐতিহ্য সংরক্ষণ বিষয়ে আলোচনাসভা

ডেস্ক রিপোর্ট॥
রাঙামাটিতে জেলার সার্বিক উন্নয়ন এবং ঐতিহ্য সংরক্ষণ বিষয়ে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার সকালে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সভাকক্ষে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অংসুইপ্রু চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য দেন রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য হাজী মুছা মাতব্বর।

সভায় বক্তারা জেলার সার্বিক উন্নয়নে সমন্বয়হীনতাকে একমাত্র বাধা হিসাবে চিহ্নিত করেন। তারা বলেন, জেলার বিভিন্ন উন্নয়ন সংস্থাগুলোর মধ্যে সমন্বয়সাধন করা গেলে প্রকল্পের ওভারলেপিং এবং সরকারের অপচয় হ্রাস পাবে। তারা পরামর্শ রাখেন জেলা উন্নয়ন সভার মাধ্যমে পরিষদ বিভিন্ন উন্নয়ন সংস্থার মধ্যে সার্বিক সমন্বয়ের কাজ করতে পারে।

সভাপতির বক্তব্যে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অংসুইপ্রু চৌধুরী বলেন, উন্নয়ন কাজে যেখানে যা দরকার পরিষদ সেখানে সমন্বয়ের কাজ করবে। নারী উন্নয়ন, সংস্কৃতি উন্নয়ন, বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর শিক্ষার উন্নয়নে ছাত্রাবাস নির্মাণে পরিষদ ব্যবস্থা নেবে। কাপ্তাইয়ের চিৎমরম এবং রাঙামাটি শহরের রাজবনবিহারকে ঐতিহ্য হিসাবে স্বীকৃতির জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠানো হবে। তিনি বলেন, মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে বঙ্গবন্ধু হত্যা ও ৭৫ পরবর্তী প্রতিবাদকারী, শান্তিচুক্তিতে বিশেষ অবদান, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা এবং জেলার শিক্ষা উন্নয়নে বিশেষ অবদান রাখার জন্য জননেতা দীপংকর তালুকদারের নামে রাঙামাটি মেডিকেল কলেজ এবং রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের যেকোন হলের নামকরণ করার জন্য মন্ত্রণালয়ে আজকের সভার রেফারেন্সে প্রস্তাব পাঠানো হবে। এছাড়া নানিয়ারচর উপজেলায় নির্মিত ব্রিজ বীরশ্রেষ্ট মুন্সী আবদুর রউফের নামে নামকরণের প্রস্তাব মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয় এবং যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করা হবে। জেলার উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন পেশাজীবিদের সঙ্গে পরবর্তীতে আলোচনা করে পরিষদ বাজেট প্রস্তাব তৈরি করবে।

আলোচনাসভায় পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান চিংকিউ রোয়াজা, সাবেক চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ সদস্য মো: কামাল উদ্দীন, রাঙামাটি সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ শহীদুজ্জামান মহসীন, কাপ্তাই উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মফিজুল হক, জুরাছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সুরেশ কুমার চাকমা, কাউখালী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ সামশুদ্দোহা চৌধুরী, রাজস্থলী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান উবাচ মারমা, বরকল উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বিধান চাকমা, পরিষদ সদস্য সবির কুমার চাকমা, পরিষদ সদস্য প্রিয় নন্দ চাকমা, পরিষদ সদস্য প্রবর্তক চাকমা, পরিষদ সদস্য ইলিপন চাকমা, পরিষদ সদস্য মোঃ আব্দুর রহিম, পরিষদ সদস্য বাদল চন্দ্র দে, পরিষদ সদস্য অংসুই ছাইন চৌধুরী, পরিষদ সদস্য নিউচিং মারমা, পরিষদ সদস্য মিসেস ঝর্ণা খীসা, পরিষদ সদস্য মোছাঃ আছমা বেগম, পরিষদ সদস্য বিপুল ত্রিপুরা, পরিষদ সদস্য দীপ্তিময় তালুকদার, পরিষদ সদস রেমলিয়ানা পাংখোয়া, সাবেক সদস্য ত্রিদিব কান্তি দাশ, সাবেক সদস্য অভিলাষ তঞ্চঙ্গ্যা, সাবেক বরকল উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সন্তোষ কুমার চাকমা, বিশিষ্ট সাংবাদিক সুনীল কান্তি দে, কাউখালী উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অংপ্রু মারমা, ভার্য্যাতলী মৌজা হেডম্যান থোয়াই অং মারমা, নারাইছড়ি মৌজা হেডম্যান শান্তি বিজয় চাকমা, মৈদং মৌজা হেডম্যান দীপন দেওয়ান, ফারুয়া ইউপি চেয়ারম্যান বিদ্যালাল তঞ্চঙ্গা, লংগদু মৌজা হেডম্যান বকুল বিকাশ চাকমা, নারানগিরি মৌজা হেডম্যান উবাথোয়াই চৌধুরী, সানুচিং মারমা, হেডম্যান, পেকুয়া মৌজা হেডম্যান সানুচিং মারমা, নানিয়ারচরের মহাপ্রুম মৌজা কার্বারী শান্তনা খীসা, সাপছড়ি মৌজা কার্বারী ডায়না চাকমা, আসবাবপত্র কল্যাণ সমিতির সভাপতি মো: মহিউদ্দীন পেয়ারু, ওয়াগ্যা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান চিরঞ্জীব তঞ্চঙ্গা, পাংখো সম্প্রদায়ের প্রতিনিধি এফত সাংয়া পাংখোয়া, বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা পাড়া এর নির্বাহী পরিচালক আব্বাস উদ্দীন চৌধুরী, প্রগ্রেসিভ নির্বাহী পরিচালক সুচরিতা চাকমা, সাবেক রাজস্থলী উপজেলা চেয়ারম্যান উথিনচিন মারমা, কলমপতি ইউপি চেয়ারম্যান ক্যজাই মারমা, মারমা সংস্কৃতি সংস্থার সদস্য মিন্টু মারমা ও মংউচিং মারমা, ত্রিপুরা কল্যাণ ফাউন্ডেশনের সভাপতি সুরেশ ত্রিপুরা, সাবেক মৎস্য কর্মকর্তা ইন্দু লাল চাকমা, কালচারাল অফিসার শোভিত চাকমা, নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আছমা আক্তার, জীবতলী মৌজার হেডম্যান হিটলার দেওয়ান, তঞ্চঙ্গ্যা কল্যাণ সংস্থার মহাসচিব এ্যাডভোকেট দীননাথ তঞ্চঙ্গা, সুভলং ইউপি চেয়ারম্যান তরুণ জ্যোতি চাকমা, রাঙামাটি পৌরসভার কাউন্সিলর কালায়ন চাকমা, হেডম্যান কেরোল চাকমা, জুম ঈস্টেথিক্স কাউন্সিল এর সভাপতি সুস্মিতা চাকমা, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন এর সাবেক সদস্য নিরূপা দেওয়ান, সাবেক কাউখালী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এসএম চৌধুরী, চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ এর সভাপতি আব্দুল ওয়াদুদ, কাউখালী উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নিংবাই উ মারমা, কাপ্তাই ইউপি চেয়ারম্যান ,মো: আব্দুল লতিফ, বাঘাইছড়ি পৌরসভার কাউন্সিলর মো:পারভেজ আলী, চন্দ্রঘোনা ইউপি চেয়ারম্যান মো: আনোয়ারুল ইসলাম বেবী, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মীর সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, বিভিন্ন ব্যবসায়ী সমিতি নেতৃবৃন্দ যথাক্রমে মো: আবু সৈয়দ, হাজী মো: আব্দুল জব্বার, হাজী আনোয়ার মিয়া, মো: নাজিম উদ্দিীন, মো: হেলাল উদ্দীন, কানুদাস গুপ্ত অংশগ্রহণ করেন।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button