নীড় পাতা / পাহাড়ের রাজনীতি / পাহাড়ে নির্বাচনের হাওয়া / দীপংকরকে পূর্ণমন্ত্রী চায় রাঙামাটি আওয়ামীলীগ

দীপংকরকে পূর্ণমন্ত্রী চায় রাঙামাটি আওয়ামীলীগ

ইতোমধ্যেই বিপুল ভোটে রাঙামাটির সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন দীপংকর তালুকদার। তার জয়ে উচ্ছসিত রাঙামাটির নেতাকর্মীরা।

বর্তমানে রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য দীপংকর তালুকদার ছাত্রজীবন থেকেই ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। স্বাধীনতাউত্তর দেশে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করা দীপংকর ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে নৃশংস হত্যার পর কাদের সিদ্দিকীর নেতৃত্বে গড়ে উঠা প্রতিরোধ বাহিনীর অন্যতম সদস্য হিসেবে ভারতে আশ্রয় নিয়ে প্রতিরোধযুদ্ধে অংশ নেন। সামরিক শাসনামলে দীর্ঘ নির্বাসন জীবন শেষে নব্বইয়ের দশকে দেশে ফিরেই ১৯৯১ সালে রাঙামাটি জেলায় আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পান। মনোনয়ন পেয়েই বিজয়ী হয়ে সবাইকে চমকে দেন তিনি। সেই নির্বাচনে সারাদেশে আওয়ামীলীগ পরাজিত হলেও বিজয়ী হন তরুণ দীপংকর। সেই থেকে এবারের ২০১৮ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পর্যন্ত প্রতিটি নির্বাচনেই নৌকার প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পেয়ে আসা দীপংকর ২০০১ ও ২০১৪ সালে দুইবার পরাজিত হলেও ১৯৯১, ১৯৯৬, ২০০৮ সালে এবং এবার বিজয়ী হয়েছেন। এইবারের নির্বাচনে সংঘবদ্ধভাবে কাজ করে নিজেদের প্রিয় নেতাকে বিজয়ী করার ক্ষেত্রে ব্যাপক পরিশ্রম করে দলটির তৃণমূল কর্মীরা। প্রিয় নেতা বিজয়ী হওয়ায় উচ্ছসিত দলটির নেতাকর্মীরা এবার চান দীপংকরকে পূর্ণমন্ত্রী করা হোক।

রাঙামাটি জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি সাইফুল আলম রাশেদ জানিয়েছেন,সকল ষড়যন্ত্রকে উপেক্ষা করে দীপংকর তালুকদার বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়ে তার জনপ্রিয়তা ও গ্রহযোগ্যতা প্রমাণ করেছেন। সুখে দুখে তিনি বরাবরই আমাদের কান্ডারি এবং পার্বত্য জনপদের পাহাড়ী বাঙালী সবার কাছেই সবচে জনপ্রিয় নেতা হিসেবে পরিচিত। আমরা তাকে এবার পূর্ণমন্ত্রী হিসেবে দেখতে চাই।’

রাঙামাটি জেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক নুর মোহাম্মদ কাজল বলেছেন, ‘ জননেত্রী শেখ হাসিনা দীপংকর তালুকদারকে এই আসনে মনোনয়ন দিয়েছেন,এই এলাকার মানুষও এই আস্থার মূল্যায়ণ করেছে তাকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করে। দীপংকর তালুকদার পার্বত্য এলাকার উন্নয়নে সুষম দৃষ্টিভঙ্গী লালন করেন,সেটা অতীতে প্রমাণিত হয়েছে। এবং রাঙামাটি জেলা পার্বত্য চট্টগ্রামের ‘মাদারডিস্ট্রিক্ট’ এবং পাহাড়ের নির্বাচিত তিন এমপির চেয়ে দীপংকর তালুকদার সবচে অভিজ্ঞ এবং পরীক্ষিত রাজনীতিবিদ হিসেবে নেত্রীরও আস্থাভাজন। একই সাথে তিনি বর্তমানে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী কমিটিরও সদস্য। পাহাড়ের সুষম উন্নয়নের জন্য তার বিকল্প নেই। আমাদের বিশ^াস আমাদের প্রিয় নেত্রী এই আস্থা ও ভালোবাসার মূল্যায়ণ করবেন। আমরা জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে দীপংকর তালুকদারকে পূর্ণমন্ত্রী করার জোর দাবি জানাচ্ছি।’ কাজল আরো বলেছেন, ‘ বর্তমান প্রতিমন্ত্রীর আমলে পার্বত্য দুই জেলা রাঙামাটি উন্নয়ন বৈষম্যের স্বীকার হয়েছে,আমরা এর অবসান চাই।’

রাঙামাটির লংগদু উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বাবুল দাশ বাবু বলেছেন, ‘ দাদা যখন দায়িত্বে ছিলেন তখন পার্বত্য চট্টগ্রামের তিন জেলায় ব্যাপক উন্নয়ন কাজ হয়েছিলো,কিন্তু পার্বত্য মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রীত্ব এখান থেকে চলে যাওয়ার পর উন্নয়নবঞ্চিত হয় রাঙামাটি। এবার আমরা আবারো আমাদের প্রিয় নেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে অনুরোধ করবে,দীপংকর তালুকদারকে পার্বত্য মন্ত্রনালয়ের পূর্ণমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব প্রদান করে পার্বত্য এলাকায় সুষম ও বৈষম্যহীন উন্নয়নে ভূমিকা রাখার সুযোগ দেয়ার।’

রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক হাজী মোঃ মুছা মাতব্বর বলেছেন, পার্বত্যাঞ্চলের গণমানুুষের নেতা দীপংকর তালুকদারই একমাত্র পার্বত্য মন্ত্রনালয়ের দায়িত্বে ছিলেন,যার আমলে তিন পার্বত্য জেলায় সমান উন্নয়ন কর্মকান্ড হয়েছে। এবারো আমরা তাকে পূর্ণমন্ত্রী হিসেবেই চাইব নেত্রীর কাছে,যাতে কোন পার্বত্য জেলাই উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত না হয়। বর্তমান সরকারের উন্নয়নের মহাসড়কে পার্বত্য চট্টগ্রামকে সম্পৃক্ত করতে হলে জননেতা দীপংকর তালুকদারকে পার্বত্য মন্ত্রনালয়ের দায়িত্ব দেয়ার বিকল্প নেই।’

রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি নিখিল কুমার চাকমা জানিয়েছেন, সুষম উন্নয়নের জন্যই দীপংকর তালুকদারকে প্রয়োজন। জননেত্রী শেখহাসিনা ভালোই জানেন,কাকে দায়িত্ব দিলে পার্বত্য এলাকার সঠিক উন্নয়ন হবে। যেহেতু ইতোপূর্বে তিনি পার্বত্য মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বে ছিলেন,সুতরাং এবার আমরা তাকে পূর্ণমন্ত্রী হিসেবে দেখতে চাই।’

আরো দেখুন

আত্মীয়-স্বজনের ঘরেই ঠাঁই পেল অগ্নিদুর্গতরা

মাসুম, বয়স ৮ বছর। সকাল বেলার নাস্তা সেরে ঘর থেকে বের হয়েছিলো বন্ধুদের সাথে খেলতে। …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

twenty + sixteen =