নীড় পাতা / ব্রেকিং / দীঘিনালা-বাঘাইছড়ি সড়কে মালবাহী ট্রাকে আগুন, অভিযোগের তীর ইউপিডিএফের দিকে
parbatyachattagram

দীঘিনালা-বাঘাইছড়ি সড়কে মালবাহী ট্রাকে আগুন, অভিযোগের তীর ইউপিডিএফের দিকে

রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলায় একটি মালবাহী ট্রাকে আগুন দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। সোমবার ভোর ৬টার দিকে উপজেলার বাঘাইছড়ি-দীঘিনালা সড়কের রাবার বাগান এলাকায় আগুন দেয় সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় অভিযোগের তীর প্রসিত খীসার নেতৃত্বাধীন ইউনাইটেড পিপল্স ডেমোক্রেট্রিক ফ্রন্টের (ইউপিডিএফ) দিকেই।

গাড়ির হেলপার ও স্থানীয়রা জানান, সোমবার ভোর ছয়টার দিকে চট্টগ্রাম থেকে বাঘাইছড়িগামী একটি মালমাল বোঝাই ট্রাক অস্ত্রেরমুখে থামিয়ে চালক ও হেলপারকে নামিয়ে পেট্রোল দিয়ে গাড়িতে আগুন দেয় চার সন্ত্রাসী। এসময় চারজনের হাতেই অস্ত্রছিলো। আগুনের ঘটনায় গাড়িতে থাকা ১০ লক্ষ টাকার মুদিমালসহ সম্পূর্ণ ট্রাকটি পুড়ে যায়। এতে প্রায় ২৫ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়। এ ঘটনার পরপরই বাঘাইহাট জোন ও হাজা ছড়া ৫৪ বিজিবির টহলদরেল সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে চালক ও হেলপারকে উদ্বার করে আগুন নেভানোর চেষ্টা চালায়। পরে দীঘিনালা ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট এসে আগুন নিয়ন্ত্রন আনে।

আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত ট্রাকের মালিক ও বাঘাইছড়ি পৌরসভার সাবেক কমিশনার মো. আলী হোসেন বলেন, আমার গাড়িতে পাহাড়ের আঞ্চলিক দল ইউপিডিএফ আগুন দিয়েছে। আগুন দেয়ার পূর্বে শুকনা ছড়া নামক জায়গায় ১ হাজার টাকা চাঁদাও নিয়েছে।

তিনি বলেন, আমি আওয়ামীলীগের রাজনীতি করি এটাই আমার বড় অপরাদ। এজন্য ইউপিডিএফ আমার গাড়িতে আগুন দিয়েছে। না হয় দুইটি গাড়ি একই সাথে আসছিলো একটি ছেড়ে দিয়ে আমার গাড়িতে কেন আগুন দেবে?

মারিশ্যা বাজারের ব্যবসায়ী ও মালামাল পরিবহন মাঝি সাহাব উদ্দিন বলেন, দীর্ঘদিন যাবত বাজারের ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে আসছিলো ইউপিডিএফ। কিন্তু সময়মতো চাঁদা না দেয়ায় রাস্তায় গাড়ি থামিয়ে অতিরিক্ত চাঁদা আদায়সহ নানা রকম হয়রানি করতো তারা। গত কিছুদিন পূর্বেও গাড়ি ঢিল ছুড়ে গ্লাস ভেঙে দেয় এবং আজকে সকালে গাড়িতে আগুন দেয়।

অন্যদিকে ট্রাকে আগুনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষের মধ্যে উত্তেলনা বিরাজ করছে। তারা বলছেন, অনতিবিলম্বে এসব সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে সরকারকে ব্যবস্থা নিতে হবে। সরকার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা না নিলে তারা দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবেন।

তবে অভিযোগ প্রসঙ্গে ইউপিডিএফের প্রচার ও প্রকাশনা বিভাগের প্রধান নিরন চাকমা মুঠোফোনে চেষ্টা করলে সেটি বন্ধ পাওয়া যায়।

এদিকে এ ঘটনার পর সীমানা জটিলতায় নানা বিভ্রান্তিমূলক তথ্য দিচ্ছে পুলিশ। এ প্রসঙ্গে বাঘাইছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল মনজুর বলেন, ‘বিষয়টি আমি জেনেছি সন্ত্রাসীরা একটি গাড়িতে আগুন দিয়েছে। ঘটনাস্থল সাজেক থানার আওতাধীন হওয়ায় সাজেক থানার ওসি বিষয়টি দেখছেন।’

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে সাজেক থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নুরুল আনোয়ার বলেন, ঘটনাস্থল এলাকাটি আমার থানায় পড়েনি। কবাখালি দিঘিনালা থানায় পড়েছে।’

Micro Web Technology

আরো দেখুন

দুর পাহাড়ে ম্যালেরিয়ার হানা বাড়ছেই

রাঙামাটি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলার দুর্গম এলাকায় ম্যালেরিয়া রোগের প্রকোপ বেড়েছে। গত কয়েকদিন ধরে এ উপজেলার …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

2 × 1 =