খাগড়াছড়িব্রেকিংলিড

দীঘিনালায় জনসংহতি(এমএনলারমা)’র ভোট বর্জন

উল্লেখযোগ্য কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই সম্পন্ন হয়েছে খাগড়াছড়ির দীঘিনালা উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। সকাল থেকেই কেন্দ্রে ভোটারদের স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতি ছিল। তবে একটি কেন্দ্রে বিশৃংখলা দেখা দিলে পুলিশ ফাঁকা গুলি ছোড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এছাড়া দুপুরের দিকে আঞ্চলিক সংগঠন জেএসএস (এমএন লারমা) সমর্থিত প্রার্থীরা ভোটে কারচুপির অভিযোগ তুলে ভোট বর্জনের ঘোষনা দেয়; এবং দীঘিনালায় অনিদ্দিষ্টকালের সড়ক অবরোধের ডাক দেয়।

সকালে থেকেই বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায় ভোটারদের দীর্ঘ লাইন। পাহাড়ি এবং বাঙ্গালি অধ্যুষিত কেন্দ্রগুলোতে একই চিত্র চোখে পড়ে। সকাল ১১টার দিকে উপজেলা দূর্গম জারুলছড়ি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দিয়ে বের হন ধনপাতা এলাকার বুদ্ধ কুমার চাকমা (৭০)। তিনি জানান, সুষ্ঠ পরিবেশে ভোট দিয়েছেন। সেসময় ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার মো. শহিদুল ইসলাম জানান, ততক্ষনে ৪০% ভোট কাষ্ট হয়েছে। একই চিত্র দেখা গেছে অন্যান্য কেন্দ্রগুলোতেও। তবে দুপুরের পর থেকে কেন্দ্রে ভোটারের উপস্থিতি কম ছিল।

এদিকে মধ্যবোয়ালখালি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সাড়ে ১১টার দিকে উশৃংখল পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে পুলিশ ৫রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। এর পর অবশ্য পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসলে ভোটারদের উপস্থিতিতে ভোট প্রদান শুরু হয়। দীঘিনালা থানার অফিসার ইনচার্জ উত্তম চন্দ্র দেব জানান, ফাঁকা গুলি ছোড়ে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখতে পেরেছে এবং ভোট প্রদানে কোন বিঘœ হয়নি।

বিকাল ৫টায় উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা রকর চাকমা জানান, বড় ধরনের কোন অপ্রীতিকর ঘটনা বা অভিযোগ ছাড়াই ভোট গ্রহন সম্পন্ন হয়েছে।

জেএসএস (এমএন লারমা) পক্ষ্যের অভিযোগঃ দীঘিনালায় তিন পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন ৯জন। তার মধ্যে পাহাড়ের আঞ্চলিক সংগঠন জেএসএস (এমএন লারমা) সমর্থিত ৩জন। চেয়ারম্যান পদে সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসাংগঠনিক সম্পাদক প্রফুল্ল কুমার চাকমা, ভাইস চেয়ারম্যান পদে সমদানন্দ চাকমা এবং নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে গোপাদেবী চাকমা। দুপুরের পর প্রফুল্ল কুমার চাকমা, সমদানন্দ চাকমা এবং গোপা দেবী চাকমার পৃথক পৃথক স্বাক্ষরিত তিনটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি দেন সংবাদকর্মীদের। লিখিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে ২৮ কেন্দ্রের মধ্যে ১৭টি কেন্দ্রের নাম উল্লেখ পূর্বক অভিযোগ করা হয় এসব কেন্দ্রে আওয়ামীলীগ প্রার্থীর পক্ষের লোকেরা জেএসএসের এজেন্টদের বের করে দিয়ে ভোটে কারচুপি করেছে। এ কারণে তাঁরা তিনজনেই ভোট বর্জন করেছেন এবং এর প্রতিবাদে দীঘিনালায় অনিদ্দিষ্ট কালের সড়ক অবরোধের ঘোষনা দেন।

জেএসএস (এমএন লারমা) উপজেলা শাখার সভাপতি শান্তি লোচন চাকমা জানান, ক্ষমতাসীন দলের ভোট কারচুপির কারণে সংগঠনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button