বান্দরবানব্রেকিং

থানচিতে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ করল শিক্ষক !

বান্দরবানের থানচিতে চতুর্থ শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে শিক্ষক। রোববার বিকালে ভুক্তভোগির পিতা বাদী হয়ে থানচি থানায় স্কুল শিক্ষক সাইন থোয়াই মারমার বিরুদ্ধে মামলা করেছে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত শিক্ষক পলাতক রয়েছে।

থানচি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুচ সাত্তার জানান, থানচির বড় মদক ভিতর পাড়ার এক জুম চাষির কন্যা ক্রংক্ষ্যং পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী। সে ঐ পাড়ার বৌদ্ব বিহারের হোস্টেলে থেকে পড়ালেখা করে। স্কুলের অন্যান্য শিক্ষার্থীদের সাথে ঐ ছাত্রী ক্রংক্ষ্যং পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সাইন থোয়াই মারমার কাছে প্রাইভেট পড়ত।

এই সুযোগে সাইন থোয়াই মারমা গত এপ্রিল মাসে চতুর্থ শ্রেণীর স্কুল ছাত্রীকে দু’বার ধর্ষণ করেছে। ধর্ষণের ফলে ঐ ছাত্রী অন্তসত্বা হয়ে পরলে ঘটনাটির জানাজানি হয়। ভুক্তভোগির পিতা গত বুধবার (২৩ মে) বড় মদক থেকে থানচি এসে বিষয়টি উপজেলা চেয়ারম্যান ক্যহ্লাচিং মারমার কাছে বিচার দিলে তিনি বিষয়টি মীমাংসার জন্য সময় নেন। তবে শনিবার পর্যন্ত বিষয়টির কোন সুরাহা না হওয়ায় রবিবার ধর্ষতার পিতা বাদি হয়ে স্কুল শিক্ষককে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় উপজেলা চেয়ারম্যান ক্যহ্লাচিং মারমাকেও আসামি করা হয়েছে।

ভুক্তভোগির পিতা জানান, ধর্ষক স্কুল শিক্ষক উপজেলা চেযারম্যানের ভাগিনা হওয়ায় বিচার দেয়ার পরও তিনি বিচার না করে উল্টো প্রভাব বিস্তার করায় তাকেও মামলায় আসামী করা হয়েছে।

তবে এ বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান ক্যহ্লাচিং মারমা জানান বিষয়টি নিয়ে সোমবার প্রথাগত সামাজিক বিচারের আয়োজন করা হয়েছিল। তবে থানায় মামলার বিষয়টি সম্পর্কে তিনি কিছু জানেন না বলে জানিয়েছেন। এদিকে স্কুল ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনা এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button